নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, শুক্রবার ১১ জানুয়ারি ২০১৯, ২৮ পৌষ ১৪২৫, ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০
ধলাই সেতুর সাইড সিস্নপার ভেঙে গেছে ঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবাহন
কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি
মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল-শমশেরনগর-ব্রাহ্মণবাজার ব্যস্ততম সড়কের ২৬তম কি. মি. এলাকায় কমলগঞ্জ উপজেলার ভানুগাছ বাজার সংলগ্ন সড়ক ও জনপথ বিভাগের অধীনে ধলই নদীর উপর প্রায় ১৪ বছর আগে নির্মিত সেতুটি হঠাৎ করে পূর্ব অংশের সাইড সস্নিপার ভেঙ্গে পড়েছে। এই পথ দিয়ে এখন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন চলাচল করছে। ফলে যেকোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটার আশংকা রয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই ঝুঁকি নিয়েই যান চলাচল করছে। সংশ্লিষ্ট বিভাগের পক্ষ থেকে লাল নিশানা টাঙিয়ে বিপদজনক হিসেবে চিহুিত করলেও এখন পর্যন্ত যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। এদিকে কয়েক বছরের মধ্যে ব্রীজটি এভাবে ভেঙ্গে পড়ায় জনমনে বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। কমলগঞ্জের ধলাই সেতুর পিচ উঠে গিয়ে সৃষ্টি হয়েছে খানা খন্দ। উল্লেখ্য, শ্রীমঙ্গল-শমশেরনগর-ব্রাহ্মণবাজার সড়কের কমলগঞ্জের ধলাই সেতুটির ১৯৯৮ সালের ১লা ডিসেম্বর তৎকালীন যোগাযোগমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জুর উপস্থিতিতে তৎকালিন হুইপ উপাধ্যক্ষ মো. আব্দুস শহীদ এমপি ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছিলেন। ঢাকার রূপায়ণ নামক একটি কোম্পানী ৩ কোটি ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে ধলাই সেতুর নির্মাণ কাজ পায়। রাজনৈতিক কারণে পরে কাজটি সাব কণ্ট্রাক হিসাবে হাতিয়ে নেন আওয়ামী ঘরনার সিলেটের জনৈক ঠিকাদার। সেতু নির্মাণের কাজের শুরুতেই নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠে। নির্মাণ কাজের সিডিউলের নিয়ম কানুনের তোয়াক্কা না করে সাব-ঠিকাদার রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে কাজ করায় কাজের মান নিয়ে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছিল। এ বিষয়ে তখন যোগাযোগ মন্ত্রণালয়, সড়ক ও জনপথ বিভাগসহ সংশ্লিষ্ট দফতরে স্থানীয়রা লিখিত অভিযোগ করলেও রহস্যজনক কারণে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। এ নিয়ে স্থানীয় পত্রপত্রিকায় লেখালেখি হলেও টনক নড়েনি সংশ্লিষ্ট দফতরের। নানা অনিয়ম দুর্নীতির মধ্যে তারাহুরো করে সেতুটির নির্মাণ কাজ শেষ করা হলে ২০০৫ সালের ২৫ ডিসেম্বর তৎকালীন অর্থমন্ত্রী এম, সাইফুর রহমান ধলাই সেতুটির উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনের ৬ বছরের মাথায় গত বছরের ডিসেম্বর মাস থেকেই সেতুটির পূর্ব অংশের পিচ উঠে গিয়ে গর্তের সৃষ্টি হলে রাতের আধারে পাথর গালা দিয়ে তা সংস্কার করে স্থানীয় সড়ক ও জনপথ বিভাগ। বর্তমানে সেই সংস্কারকৃত গর্তগুলোর পিচ উঠে যাওয়ার পাশাপাশি পাশে আরো ৪-৫টি স্থানে পিচ উঠে গিয়ে ছোট-বড় নতুন গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। বড় বড় সেতুগুলোর স্থায়িত্ব ৬৫-৭০ বছর হলেও কমলগঞ্জের ধলাই সেতুটি উদ্বোধনের ৬ বছরের মাথায় একাধিক স্থানে গর্ত সৃষ্টি ও পিচ উঠে গেলেও মাথাব্যথা নেই সংশ্লিষ্ট বিভাগের। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সড়ক ও জনপথ বিভাগ, মৌলভীবাজার-এর নির্বাহী প্রকৌশলী শেখ সোহেল বলেন, আমরা এ ব্যাপারে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করব।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীসেপ্টেম্বর - ২২
ফজর৪:৩২
যোহর১১:৫২
আসর৪:১৪
মাগরিব৫:৫৮
এশা৭:১১
সূর্যোদয় - ৫:৪৭সূর্যাস্ত - ০৫:৫৩
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৫০১৭.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.