নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১২ জানুয়ারি ২০১৭, ২৯ পৌষ ১৪২৩, ১৩ রবিউস সানি ১৪৩৮
শেরপুরে তীব্র শীতে বিপর্যস্ত জনজীবন
শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি
সকাল থেকেই গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি। সঙ্গে হিমেল হাওয়া বইতে শুরু করেছে। শীতের তীব্রতাও বেড়েছে। পৌষের বৃষ্টি আর হাঁড় কাঁপানো শীতে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। প্রয়োজন ছাড়া কেউ ঘর থেকে বের হচ্ছেন না। এ অবস্থায় সামর্থবানরা ঘরে অবস্থান করতে পারলেও গরিবের পক্ষে তা সম্ভব হয়ে উঠছে না।

দু'মুঠো অন্নের জন্য তাদের ছুটতে হচ্ছে কাজের সন্ধানে। জীবন ধারণের জন্য এই গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি উপেক্ষা করে প্রচ- শীতের সঙ্গে পাল্লা দিয়েই চলতে হচ্ছে তাদের। আলমারিতে তুলে রাখা ছাতা বের করেই তাদের রাস্তায় দেখা যায়। বগুড়ার শেরপুর উপজেলায় মঙ্গলবার মেঘে ঢাকা আকাশে দিনভর গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি ঝরে।

ফলে জনজীবনও স্থবির হয়ে পড়ে। দিনমজুর কাশেম আলী, হাছেন আলী, বদিউজ্জামান জানান, বৃষ্টির সঙ্গে হিমেল বাতাস বইতে থাকায় কাজের সন্ধানে বের হতে পারছেন না। এই অবস্থায় পরিবার পরিজন নিয়ে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন তারা।

শিশু ও বৃদ্ধরা ঠা-াজনিত নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। বাড়ির উঠানে খড় কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছেন। রিকশা চালক মাহফুজার রহমান মাফু জানান, ঘরে স্ত্রী ছাড়াও তিনটি সন্তান রয়েছে। প্রতিদিন রিকশা চালিয়ে যে টাকা আয় হয় তা দিয়েই সংসারের খরচ চালাতে হয়। একদিন রিকশা না চালালে তাদের মুখে ভাত তুলে দেয়া সম্ভব হয় না। তাই বৃষ্টি ও শীত উপেক্ষা করেই বাড়ি থেকে বের হয়েছি।

এদিকে শীতের তীব্রতা বৃদ্ধি পাওয়ায় উপজেলার নদীর উপকূলবর্তী সুঘাট, খানপুর, খামারকান্দি, গাড়িদহ, শাহবন্দেগী ও মির্জাপুর ইউনিয়নের গ্রামগুলোতে ব্যাপকহারে শীতজনিত রোগ ছড়িয়ে পড়ছে। প্রতিদিনই অসংখ্য রোগী শীতজনিত রোগের ওষুধ কিনতে শহরের বিভিন্ন ওষুধের দোকানে ছুটছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোখলেছুর রহমান বলেন, শীতের কারণে মানুষের নিউমোনিয়া, সর্দি, জ্বর, কাশি, আমাশয় রোগ হচ্ছে। এসব রোগে মহিলা, শিশু ও বৃদ্ধরা বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন। স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক বেশি রোগী চিকিৎসা নিতে হাসপাতালে আসছেন।

সাধ্যানুযায়ী তাদের চিকিৎসা সেবাও দেয়া হচ্ছে বলে তিনি দাবি করেন। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা খাজানুর রহমান জানান, তীব্র শীত আর এই গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিতে সরিষা খেতের উপকার হলেও আলু খেতে রোগ হওয়ার শঙ্কা রয়েছে। তাই আলু চাষিদের সতর্ক থাকতে হবে। তাই সময়মতো প্রয়োজনীয় কীটনাশক প্রয়োগ করার পরামর্শ দেন এই কৃষি কর্মকর্তা।
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীজানুয়ারী - ১৭
ফজর৫:২৩
যোহর১২:০৯
আসর৩:৫৯
মাগরিব৫:৩৭
এশা৬:৫৪
সূর্যোদয় - ৬:৪২সূর্যাস্ত - ০৫:৩২
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
১৫৭৮.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.