নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১২ জানুয়ারি ২০১৭, ২৯ পৌষ ১৪২৩, ১৩ রবিউস সানি ১৪৩৮
দারুস সালামে ২ সন্তান হত্যা স্ত্রীর আত্মহত্যার ঘটনায় স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা
স্টাফ রিপোর্টার
রাজধানীর দারুস সালাম এলাকায় নিজের দুই সন্তানকে হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যার ঘটনায় স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঐ দুই সন্তানের মা আনিকার স্বামী শামীম হোসেনকে আত্মহত্যার প্ররোচনাকারী হিসেবে তার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বেলা ২টার দিকে দারুস সালাম থানায় মামলাটি দায়ের করেন আনিকার মা নাদিরা বেগম। মামলা নম্বর ১১। মামলার একমাত্র আসামি শামিম হোসেনকে গত মঙ্গলবার রাতেই আটক করা হয়েছিল। গতকাল আনুষ্ঠানিকভাবে তাকে এই মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। দারুস সালাম থানার ওসি (তদন্ত) ফারুকুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। গত মঙ্গলবার বেলা দেড়টায় রাজধানীর মিরপুরের দারুস সালামের ছোট দিয়াবাড়ি পানির পাম্পের পাশের একটি বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশের দাবি, মা আনিকা ২ শিশুকে বঁটি দিয়ে জবাই করে হত্যা করে নিজে আত্মহত্যা করেন। পুলিশ জানায়, মায়ের নাম আনিকা। দুই শিশুর নাম শামীমা (৫) ও আবদুল্লাহ (৩)। ওইদিন বেলা সাড়ে ৩টায় ২৯/১ ছোট দিয়াবাড়ির বাসায় পুলিশ দরজা ভেঙে ঢুকে দেখতে পায় আনিকা ফ্যানে ঝুলন্ত। পাশেই দুই শিশুর গলাকাটা মরদেহ পড়েছিল। এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত মঙ্গলবার এলাকাবাসীর কাছে খবর পেয়ে বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে পুলিশ গিয়ে তাদের লাশ উদ্ধার করে। তবে কি কারণে এমন নির্মম ঘটনা ঘটিয়েছেন আনিকা, সে ব্যাপারে পুলিশ ও তার পারিবারিক সূত্র কিছুই নিশ্চিত করে জানাতে পারেনি। পুলিশের ধারণা স্বামীর পরকীয়া সম্পর্কের জের ধরে এবং দারিদ্র্যের কারণে এ ঘটনা ঘটতে পারে। দারুসসালাম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ফারুকুল আলম জানান, ঘরের দরজা ভেঙে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে বটি ও বিছানা থেকে সুইসাইড নোটসহ হত্যার অন্য আলামত জব্দ করে পুলিশ।

আশপাশের মানুষের বরাত দিয়ে ফারুকুল আরো বলেন, শামীম বেড়িবাঁধে সেলুনের কাজ করেন। অন্য এক নারীর সঙ্গে তার পরকীয়া সম্পর্ক রয়েছে। যা নিয়ে তাদের মধ্যে দাম্পত্য কলহ চলছিল। সবগুলো বিষয় মাথায় নিয়েই তদন্ত চলছে। পুলিশ জানায়, সুইসাইড নোটে লেখা আছে, 'শামীম তোমার একটা ভুলের জন্য এত বড় ঘটনা। তুমি ভেবেছ আমি শুধু শুনব না। তুমি সবার কথা ভাব, আমাদের কথা ভাব না। আমি সবাইকে ছেড়ে যাচ্ছি। থাকব না। পৃথিবী ছেড়ে চলে যাব। আর বলেছিলাম না আমি যেখানে, ওরা সেখানে। একটাই কষ্ট মা ভাই বোন নানি আর অনেকের মুখ দেখতে পেলাম না। ছেলে মেয়ে নিয়ে গেলাম। সবাই ভালো থাকো, মা আমি এই দুই হাত দিয়ে ওদের খাইয়েছি, তেল দিছি (দিয়েছি) আর আজ আমি সেই হাত দিয়ে মারলাম। আমাকে তোমরা মাপ করে দেও (দিও), আমাদের কপালে এ ছিল। ওরা দুজন নিষ্পাপ। আমার মৃত্যুর জন্য কেও (কেউ) দায়ী না। ইতি আনিকা।'

আনিকার প্রতিবেশী সুমন বলেন, শামীম হোসেন পেশায় নাপিত। সে দিয়াবাড়ী বেড়িবাঁধ এলাকায় একটি টং দোকানের সেলুনে কাজ করে। দুই বছর আগে শামীম তার পরিবার নিয়ে ২৯/১ নম্বর ছোট দিয়া বাড়ির আবু সাইদ মিয়ার একটি টিনশেড ঘর ভাড়া নেন। সেলুনের কাজে তার আয়-রোজগার তেমন একটা হোত না। সংসারে অভাব অনটন লেগেই থাকত। এছাড়া শামীমের সঙ্গে কোনো এক নারীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সংসারের অভাব ও স্বামীর পরকীয়া নিয়ে প্রায়ই আনিকার সঙ্গে ঝগড়া হতো শামীমের। গত মঙ্গলবার সকালেও স্বামীর সঙ্গে এসব বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এরপর স্বামী বাসা থেকে বের হয়ে যায়। দুপুর আড়াইটার দিকে ওই রুমের দরজা ভেতর থেকে বন্ধ পাওয়া যায়। অনেকবার ডাকাডাকি করেও কোনো সাড়া না পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়া হয়। পুলিশ গিয়ে শিশু দুটির লাশ ও ঝুলন্ত অবস্থায় অনিকার লাশ উদ্ধার করে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীঅক্টোবর - ২৪
ফজর৪:৪৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৪৮
মাগরিব৫:২৯
এশা৬:৪২
সূর্যোদয় - ৫:৫৯সূর্যাস্ত - ০৫:২৪
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৫৬৭.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.