নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১২ জানুয়ারি ২০১৭, ২৯ পৌষ ১৪২৩, ১৩ রবিউস সানি ১৪৩৮
জনতার মত
শিক্ষা চাই ভিক্ষা নয়
মো. শামীম মিয়া
ইংরেজি নতুন বছরের আগমন, পুরাতন বছরের দুঃখ কষ্ট মুছে যাক, সুখ_সমৃদ্ধে ভরে উঠুক সবার জীবন। শিক্ষা নিয়ে গড়বো দেশ, শেখ হাসিনার বাংলাদেশ, এই সেস্নাগানে বই বিতরণ করা হয়। বর্তমান সরকারের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী জানুয়ারির প্রথম তারিখেই প্রাথমিক পর্যায় থেকে উচ্চ পর্যায়ের সকল শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরণ হয়েছে। নতুন বইয়ের গন্ধে আনন্দিত সব শিক্ষার্থী। বই পাওয়া শিশুদের পবিত্র হাসি দেখলেই বুঝা যায়, এরাই জাতির কর্ণধার, দেশের ভবিষ্যৎ, এক ভাস্বর জ্যোতি। এরাই একদিন আমাদের এই দেশটা পরিচালনা করবে। গড়বে জাতির জনকের সোনার বাংলাদেশ। একদিকে নতুন বই পেয়ে যখন আনন্দিত ভাগ্যবান শিশুগুলো, তখন অন্যদিকে খাদ্যের সন্ধ্যানে ব্যস্ত কিছু শিশু। এরা হতদরিদ্র, বসতহীন, পথশিশু বা পথকলি। এরা দারিদ্র্যের যাঁতাকলে পিষ্ট হয়ে, অবহেলা, অনাদর ও অযত্নে বেড়ে ওঠা মানুষ মাত্র। এরা মানুষ হয়ে জন্ম নিলেও মানুষের প্রায় সব রকম মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত। জন্মের পর থেকে মা-বাবার ভালোবাসা, আদর, স্নেহ থেকেও বঞ্চিত। এরা ময়লা আবর্জনা কুড়িয়ে ক্ষুধা নিবারণ করে। পথশিশু রোধে সরকারের দৃষ্টি থাকলেও অহরহ সৃষ্টি হচ্ছে পথশিশু। সম্প্রতি যৌন নির্যাতন বিরোধী নীতিমালা বেশ আলোচনা হলেও পথশিশু, কিশোরীদের নিরাপত্তা নিয়ে ভাবছে না কেউ। পথে-ঘাটে রাত যাপনের ফলে তারা নানাভাবে যৌন নির্যাতনের শিকার হয়, অথচ সংশ্লিষ্টদের কোনো ভাবনা নেই। পথশিশু বলে আমাদের সমাজ তাদের কাজ দেয় না। অনেক সময় তারা বাধ্য হয়েই পতিতাবৃত্তি, ভিক্ষাবৃত্তি, চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, মাদক পাচারের মতো নানামুখী অপরাধমূলক কাজে জড়িয়ে পড়ছে। সরকারি সহায়তা অনেক, কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে হতদরিদ্র পথশিশুদের কাছে তা পৌঁছে না। খাতা কলমের পৃষ্ঠা ভরা ঠিকই থাকে বিতরণের চিত্র দিয়ে। আমি ব্যক্তিগত জীবনে একজন শিশু শ্রমিক থেকে আজ তরুণ শ্রমিক। শুধু দূর থেকেই দেখার সৌভাগ্য হয়েছে সাহেবদের নিষ্ঠুরতা। সহায়তা দূরের কথা সান্ত্বনা পর্যন্ত পাইনি কারোর। আমার মতো লাখ লাখ শিশু সরকারি সহায়তা থেকে বঞ্চিত। শুধু দুষ্টু কিছু কর্মকর্তার জন্য। আমরা স্বাধীন বাংলাদেশের নাগরিক, আমরা চাই নাগরিকত্ব। চাই মৌলিক অধিকারগুলো। শিক্ষা চাই, ভিক্ষা নয়। আমি আজ কয়েক লক্ষ্য পথশিশু শিশুশ্রমিকের পক্ষ হয়ে এই পত্রিকার মাধ্যমে আমাদের দুঃখ-কষ্ট জানাতে চাই। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা দেশ রত্ন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে। আপনি ছাড়া আমাদের পাশে কেউ দাঁড়াবে না জানি। আপনার জীবন যে জাতির জনকের আদর্শে গড়া। আপনি আমাদের আশা, ভরসা। আপনি জানেন ইতোমধ্যে রাজন রাকিবসহ অনেকে তাদের মূল্যবান জীবন দিয়ে বুঝিয়েছে আমরা শিশুশ্রমিকরা কতটা কষ্টে বা নিষ্ঠুরতার মধ্যে আছি। আমরা মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত সব শিশু আপনার মমতামাখা আঁচলের ছায়ায় আশ্রয় চাই। আমরা আর এই সমাজে, পথশিশু হয়ে থাকতে চাই না। কুকুরের সাথে যুদ্ধ করে খাবার খেতে চাই না, রাতে পথে ঘাটে ঘুমাতে চাই না। আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে বাঁচতে চাই, গড়তে চাই বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাদেশ। চাই ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে। তাই আমরা অধিকার বঞ্চিত পথশিশু বা শিশু শ্রমিকদেরকে আত্মশক্তিতে বলীয়ান করে গড়ে তুলতে চাই উপযুক্ত শিক্ষা ও অনুকূল পরিবেশ। আমরা কয়েক লাখ অধিকার বঞ্চিত শিশু বিশ্বাস করি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নতুন বছরে পথশিশু, শিশুশ্রম রোধে আপনি একটি ইতিহাস সৃষ্টি করবেন সুদৃষ্টি দিয়ে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীফেব্রুয়ারী - ২০
ফজর৫:১২
যোহর১২:১৩
আসর৪:২০
মাগরিব৬:০০
এশা৭:১৩
সূর্যোদয় - ৬:২৮সূর্যাস্ত - ০৫:৫৫
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
১৭৫৫.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.