নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, শনিবার ১৩ জানুয়ারি ২০১৮, ৩০ পৌষ ১৪২৪, ২৪ রবিউস সানি ১৪৩৯
কয়রায় বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের সভায় সংঘর্ষে আহত ১৮
কয়রা (খুলনা) প্রতিনিধি
কয়রা উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের সভা চলাকালে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে অন্তত ১৮ জন আহত হয়েছে। গতকাল ১০ জানুয়ারি সকাল ১১টায় দলীয় কার্যালয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জিএম মহসিন রেজার সভাপতিত্বে সভা চলাকালে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান জামাল সভাস্থলে উপস্থিত হন। জেলার এই নেতার উপস্থিতিতে উপজেলা ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদকের বক্তব্য চলাকালে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দলীয় কার্যালয়ের পেছনে আওয়ামী লীগের দুগ্রুপের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এতে উভয় গ্রুপের কমপক্ষে ১৮ জন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে। গুরুতর আহত ৫ জনকে উপজেলা স্বাস্থ কেন্দ্রে ভর্তি করা হয় এবং অন্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

জানা যায়, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জিএম মহসিন রেজার সঙ্গে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বিজয় কুমার সরদার ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি এস এম শফিকুল ইসলামের দীর্ঘদিন ধরে আধিপত্য নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। গত বুধবার সকালে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্রকরে দলীয় কার্যালয়ের পেছনে উভয় গ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার এক পর্যায়ে সংঘর্ষকারীরা একে অপরকে ইট দিয়ে আঘাত করে।

এ সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের কমপক্ষে ১৮ সমর্থক আহত হয়। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্তথানায় কোনো মামলা হয়নি। কয়রা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি এস এম শফিকুল ইসলাম বলেন, সভা চলাকালে কিছু উশৃঙ্খল লোক সভার কার্যক্রমকে ব্যহত করার জন্য পরিকল্পিত ভাবে এ হামলা চালিয়েছে এতে তার ৯ জন অনুসারি আহত হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।

কয়রা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জিএম মহসিন রেজা বলেন, জেলা আ'লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক থানা আওয়ামী লীগকে না জানিয়ে সভায় হাজির হওয়া ও এই হামলা সবই পূর্ব পরিকল্পিত।

জেলার এই নেতা অনাকাঙ্খিত হাজির হওয়াতে অতি উৎসাহি কিছু লোক আমার কর্মী সমর্থকদের উপর হামলা করে।এতে আমার ৯ জন কর্মী আহত হয়েছে। জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান জামাল বলেন, অনুষ্ঠানে বিশৃঙ্খলা করীদের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কয়রা থানা অফিসার ইনচার্জ মো. এনামুল হক বলেন, বিবাদমান দুই গ্রুপের আধিপত্যের কারনে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীজুলাই - ২৩
ফজর৩:৫৯
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪৪
মাগরিব৬:৪৯
এশা৮:১০
সূর্যোদয় - ৫:২৪সূর্যাস্ত - ০৬:৪৪
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৫০৬৮.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.