নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, শনিবার ১৩ জানুয়ারি ২০১৮, ৩০ পৌষ ১৪২৪, ২৪ রবিউস সানি ১৪৩৯
ভুয়া বিএড সনদে প্রধান শিক্ষক এমপিওভুক্তির আবেদন
শিক্ষক মহলে তোলপাড়
বরিশাল থেকে গৌতম কুমার দে
জালজালিয়াতির মাধ্যমে বিএড ডিগ্রি সনদ বের করে প্রধান শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ লাভের পর এমপিওভুক্তির জন্য অনলাইনে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের মাধ্যমে জেলা শিক্ষা অফিসে যাবতীয় কাগজপত্র প্রেরণ করেছিলেন কেএম নাসির উদ্দিন সবুজ খান নামের এক প্রধান শিক্ষক। জেলা শিক্ষা অফিসারের যাচাই বাছাইয়ে উপর্যুক্ত বিষয়ে বর্ণিত শিক্ষকের বিএড ডিগ্রি সঠিক নয়, ভুয়া মর্মে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের মহাপরিচালক, শিক্ষা মন্ত্রণালয়, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বরাবরে অনুলিপি প্রেরণ করা হয় (যার স্মারক নং জেশিঅ/পটু/৭৩/৪ তারিখ: ২৩ জানুয়ারি ২০১৭)। এ সংক্রান্ত সংবাদ বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর থমকে যায় নাসির উদ্দিনের এমপিওভুক্তি।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, পূর্বের জমা দেয়া কাগজপত্র গোপন রেখে অতিসমপ্রতি মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে জেলা শিক্ষা অফিসের কতিপয় কর্মকর্তার যোগসাজশে ২৪ মাস পর ওই প্রধান শিক্ষকের এমপিওভুক্তির সুপারিশ করা হয়েছে। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি সর্বত্র ছড়িয়ে পড়লে শিক্ষক ও সুশীল সমাজের মধ্যে ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে বিষয়টি তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে লিখিত আবেদন করেছেন শিক্ষক সমাজের নেতৃবৃন্দরা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বরিশাল বিভাগীয় মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস ও সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে জানা গেছে, বিভাগের পটুয়াখালী জেলার বাউফল উপজেলার নওমালা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে কেএম নাসির উদ্দিন সবুজ খান ২০১৬ সালের ২ জানুয়ারি বিএড ডিগ্রির ভুয়া সনদ দিয়ে প্রধান শিক্ষক পদে যোগদান করেন। পরবর্তীতে তিনি (প্রধান শিক্ষক) অনলাইনে এমপিওভুক্তির জন্য উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের মাধ্যমে জেলা শিক্ষা অফিসে যাবতীয় কাগজপত্র প্রেরণ করেন। ২০১৭ সালের ২৩ জানুয়ারি জেলা শিক্ষা অফিসার রুহুল আমীন খান উপর্যুক্ত বিষয়ে বর্ণিত শিক্ষকের বিএড ডিগ্রি সঠিক নয়, ভুয়া মর্মে সংশ্লিষ্ট সকল দফতরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বরাবরে অনুলিপি প্রেরণ করেন। ফলে প্রধানশিক্ষক নাসির উদ্দিনের এমপিওভুক্তি থমকে যায়।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত প্রধানশিক্ষক কেএম নাসির উদ্দিন সবুজ খানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমার বিএড ডিগ্রির সনদপত্র সঠিক। এ ব্যাপারে বরিশাল বিভাগীয় মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের ডিডি ড. মুস্তাফিজুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীজানুয়ারী - ২৪
ফজর৫:২৩
যোহর১২:১১
আসর৪:০৪
মাগরিব৫:৪৩
এশা৬:৫৮
সূর্যোদয় - ৬:৪১সূর্যাস্ত - ০৫:৩৮
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩০০০.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.