নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, মঙ্গলবার ১৪ জানুয়ারি ২০২০, ৩০ পৌষ ১৪২৬, ১৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১
মধ্যপ্রাচ্যের ৬৫ হাজার মার্কিন সেনার উপস্থিতিতে অবরুদ্ধ ইরান
জনতা ডেস্ক
মধ্যপ্রাচ্যের ৩৫টি ঘাঁটির অন্তত ৬৫ হাজার মার্কিন সেনার অবস্থানে একরকম অবরুদ্ধ ইরান। অন্যদিকে, আটলান্টিক সাগরের ওপারে অনেকটায় নিরাপদ যুক্তরাষ্ট্র। তুরস্কের বার্তা সংস্থা আনদোলু-এর বিশ্লেষণ বলছে, মধ্যপ্রাচ্যে যুক্তরাষ্ট্রের আধিপত্য কমানোর প্রথম শর্ত হচ্ছে, এ অঞ্চলে মার্কিন ঘাঁটিগুলোকে নিয়ন্ত্রণ আনা। তবে, নিজেদের ঘাঁটি টেকাতে যেকোন পদক্ষেপ নিতে দ্বিধা করবে না ওয়াশিংটন।

গ্লোবাল ফায়ার পাওয়ারের হিসেবে, সামরিক সক্ষমতার দিক থেকে বিশ্বের এক নম্বর শক্তিধর রাষ্ট্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। যেখানে ইরানের অবস্থান ১৪ নম্বরে। এমন প্রেক্ষাপটে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সরাসরি যুদ্ধে জড়াতে চাইবে না ইরান। তবে জেনারেল সোলেইমানি হত্যাকা-ের পর, একটা শক্ত জবাব দেয়া ছিলো ইরানের অস্তিত্ব জানান দেয়ার প্রশ্ন। সেই কাজটি করে দেখিয়েছে ইরানি বিমান বাহিনী।

অন্যদিকে, মধ্যপ্রাচ্যে নতুন কোন সংঘতে জড়াতে চাইবে না যুক্তরাষ্ট্রও। বাগদাদে দুটি মার্কিন ঘাঁটিতে হামলার পরও, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ভাষণে মিলেছে এমন ইঙ্গিত। আলোচনা চেয়ে জাতিসংঘে চিঠিও দিয়েছে হোয়াইট হাউজ।

যুক্তরাষ্ট্র-ইরান পাল্টাপাল্টি হামলায় বিশ্বেজুড়ে ভাবমূর্তি চরমভাবে খুইয়েছে ওয়াশিংটন। মধ্যপ্রচ্যের দেশগুলির দাবি আরো জোরদার হয়েছে দীর্ঘদিন ইরাকে থাকা মার্কিন সেনাদের ফেরত নেয়ার। এর আগে, ২০১৮ সালে সিরিয়া থেকে সেনা প্রত্যাহার করে যুক্তরাষ্ট্র। ওই বছরই আফগানিস্তান থেকে সেনা কমিয়ে আনে ট্রাম্প প্রশাসন।

বিশ্লেষকেরা বলছেন, ক্ষমতাধর যুক্তরাষ্ট্রে পরোক্ষভাবে আঘাত করার একটা প্রেক্ষাপট তৈরি হয়েছে জেনারেল সোলেইমানি হত্যার মধ্য দিয়ে। এই অবস্থায় আরবদেশগুলো এক হলেই কেবল, মধ্যপ্রাচ্য মুক্ত হবে মার্কিন খবরদারি থেকে। তবে সেই সম্ভাবনা একেবারেই কম। মধ্যপ্রাচ্যে বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক সৌদি আরবের পাশাপাশি সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহারাইন, কাতার, কুয়েত, জর্ডান, ওমান ও তুরস্কে ঘাঁটি আছে ওয়াশিংটনের। অবশ্য, কাতারের ওপর ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞা, সেনা অভ্যুত্থানে মার্কিন মদদের অভিযোগে তুরস্কের সঙ্গেও সম্পর্কের অবনতি ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রের। অন্যদিকে, লেবানন, ফিলিস্তিন, ইয়েমেনসহ এ অঞ্চলের অনেক রাষ্ট্রও চাইছে মার্কিন মুক্ত মধ্যপ্রাচ্য। যদিও খনিজ সম্পদে ভরপুর অঞ্চলটিতে আধিপত্য ধরে রাখতে, যেকোন পদক্ষেপ নিতে বিন্দুমাত্র দ্বিধা করবে না যুক্তরাষ্ট্র, এমনটাই ধারনা আন্তর্জাতিক বিশ্লেষকদের।
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীজানুয়ারী - ২৪
ফজর৫:২৩
যোহর১২:১১
আসর৪:০৪
মাগরিব৫:৪৩
এশা৬:৫৮
সূর্যোদয় - ৬:৪১সূর্যাস্ত - ০৫:৩৮
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৫২৬.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.