নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, সোমবার ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২৯ মাঘ ১৪২৫, ৫ জমাদিউস সানি ১৪৪০
ঈশ্বরগঞ্জে জনগুরুত্বপূর্ণ রাস্তা কেটে ফেলায় এলাকাবাসীর দুর্ভোগ
ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি
ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে জনগুরুত্বপূর্ণ একটি রাস্তা কেটে ফেলায় চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন এলাকাবাসী। বিষয়টি নিয়ে ঈশ্বরগঞ্জ ভূমি অফিস, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, জেলা প্রশাসক ও দুর্নীতি দমন কমিশন বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

সরেজমিন ঘুরে জানা যায়, উপজেলার তারুন্দিয়া ইউনিয়নের একটি গরুত্বপূর্ণ রাস্তা হচ্ছে গোয়ালপাড়া- ছোট রাগবপুর রাস্তা। রাস্তাটি তারুন্দিয়া সড়ক থেকে ছোট রাগবপূর রাস্তার সাথে মিলিত হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে রাস্তাটিতে ঐ এলাকার মানুষ সুবিধা ভোগ করে আসলেও গত ১৪ জানুয়ারি রাস্তার পূর্বে পাশের মালিক আব্দুর রসূল (৬০) ও তার ছেলেরা মিলে কেটে ফেলে। রাস্তাটি কাটার পর থেকে ঐ এলাকার কয়েক গ্রামের মানুষ চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন।

১০ ফুট রাস্তার অন্তত ৪ ফুট রাস্তা কেটে বোরো চাষ করে ফেলায় রাস্তাটি সরু হয়ে গেছে। রাস্তাটি কেটে ফেলার পর থেকে রিকশা ভ্যান চলাচল করতে পারছে না। তাতে এলাকাবাসী তাদের ভারী পণ্যদ্রব্য মাথায় নিয়ে চলাচলে বাধ্য হচ্ছেন। এতে চরম জনদুর্ভোগে পড়েছেন এলাকাবাসী।

অভিযুক্ত আব্দুর রসূল বলেন, রাস্তাটির ঐ অংশের মালিকানা হচ্ছে তাদের। আগে প্রয়োজন থাকায় তিনি রাস্তাটি করতে সম্মতি দিয়েছিলেন। এখন তার দরকার না থাকায় কেটে ফেলেছেন।

বিষয়টি নিয়ে সাবেক ইউপি সদস্য নূরুল হক জানান, রাস্তাটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সেটি কেটে ফেলা দুঃখজনক। রাস্তাটি তার আমলে উভয় পাশের জমির মালিকদের সম্মতিতে করা হয়েছিল।

এব্যাপারে বর্তমান ইউপি সদস্য আলতাফ হোসেন বলেন, রাস্তা কেটে ফেলার পর তিনি সরেজমিন দেখে এসেছেন। বিষযটি মিটমাট করতে ইউপি চেয়ারম্যানকে একাধিকবার তাগিদও করেছেন।

তারুন্দিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল হালিম জানান, রাস্তাটি কেটে ফেলার বিষয়টি তাকে জানানো হয়েছে। বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। রাস্তাটিতে গত বছরেও টিআর প্রকল্পের মাধ্যমে মাটি কাটিয়েছেন। জনদুর্ভোগ লাঘবের জন্যে দ্রুতই সমাধানের চেষ্টা করবেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে রুমানা তুয়া জানান, অভিযোগ পেয়েছেন বিষয়টি তদন্ত করতে প্রকল্পবাস্তবায়ন কর্মকর্তাকে নিদের্শ দেয়া হয়েছে। অভিযোগ সত্য হলে জড়িত ব্যক্তিদের শাস্তির আওতায় আনা হবে।
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীজুলাই - ১৬
ফজর৩:৫৫
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪৪
মাগরিব৬:৫১
এশা৮:১৪
সূর্যোদয় - ৫:২০সূর্যাস্ত - ০৬:৪৬
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৫৫২৯.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.