নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১ ফাল্গুন ১৪২৪, ২৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৯
তারাগঞ্জে কর্মসৃজনের শ্রমিক দিয়ে কাবিটা প্রকল্পে কাজ করার অভিযোগ
তারাগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি
কর্মসৃজনের শ্রমিক দিয়ে গম ক্ষেতের জমিতে কাজ করার অভিযোগে সংবাদ প্রকাশে ওই ইউপি সদস্যের দৌড়-ঝাপ মিলছে রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলায় সাইনবোর্ড ও জব কার্ডসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ।

পিআইও অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি অর্থ বছরের কর্মসৃজন প্রকল্পের আওতায় উপজেলায় ৪৫টি প্রকল্প বরাদ্দ রয়েছে। আর এ প্রকল্পে উপজেলায় মোট ১৯৮১ জন শ্রমিক কাজ করছে।

জানা গেছে, গত শনিবার ওই প্রকল্পের প্রথম পর্যায়ের দু'দিনের কাজ চলছিলো ।আর সেখানেও ওই ইউপি সদস্য আব্দুল মজিদ (সুকারু) কর্মসৃজনের শ্রমিক দিয়ে কাবিটা প্রকল্পের কাজ করছিলেন।

এদিকে এর মধ্যে সাইন বোর্ড বাবদ বরাদ্দ থাকলেও তাকোন প্রকল্পে লাগানো হয়নি।পরে ওই প্রকল্পের সংবাদ প্রকাশের পরে তড়িঘড়ি করে সাইনবোর্ড স্থাপন।এতে প্লেন সিট দিয়ে সাইন বোর্ড দেওয়ার নিয়ম থাকলেও তা না করে প্লাস্টিকের (প্যানা) তৈরি করে লাগানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সাধারন ভুক্তভোগিরা অভিযোগ করেন ইউপি সদস্য ও চেয়াম্যানরা আত্নীয় স্বজনদের নাম তালিকায় রয়েছে।এছাড়াও কর্মসৃজনের শ্রমিকদের কাছ থেকে ১শত থেকে দেড়শ টাকা জব কার্ডের জন্য নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ বিষয়ে গত মঙ্গলবার উপজেলার ইকরচালী ইউনিয়নের ম-ল পাড়া গ্রামের ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুল মজিদ (সুকারু) তার নিজের গম ক্ষেতে কর্মসৃজনের শ্রমিক দিয়ে নীরানি করায় অনিয়মের সংবাদ প্রকাশিত হয়। বর্তমানে ওই ইউপি সদস্য ও উপজেলা পিআইও অফিসের অনিয়মের বিষয়ের দৌড় ঝাপ সৃষ্টি হয়েছে শাক দিয়ে মাছ ঢাকতে।

ইউপি সদস্য আব্দুল মজিদ মিয়ার কাছে জানতে চাইলে বলেন, আমি আওয়ামী লীগের ওয়ার্ড সভাপতি গত নির্বাচনে ৫ লক্ষাধিক টাকা ব্যয় করে মেম্বার হয়েছি। আমার ওয়ার্ডে কি করব তা আমি ভাল জানি। ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আপনার কাজ আপনি করেন।

উপজেলা পিআইও অফিসের সহকারি কর্মকর্তা মাজেদুল ইসলাম বলেন, চলতি অর্থ বছরে কর্মসৃজনের শ্রমিক দিয়ে আসলে রাস্তা সংস্কারের কাজ করার নিয়ম। তবে ইকরচালী ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের যে কাবিটা প্রকল্প বরাদ্দ রয়েছে। আর সেই প্রকল্পে কর্মসৃজনের শ্রমিক দিয়ে কাজ করেছেন বলে আমি জেনেছি।

সাইবোর্ডের বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন, এবারে কোন প্রকল্পের সাইবোর্ড বরাদ্দ নেই আপনি ভালো করে খোঁজ নেন। আরও বলেন আমি জব কার্ডের টাকা নেয়ার ব্যাপারে জানিনা।

তবে কর্মসৃজনের সদ্দারাই এ অনিয়ম করেছে। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বলেন, আমি তারাগঞ্জ উপজেলায় অতিরিক্ত দায়িত্ব পালনে ছিলাম এখন নেই এখন দায়িত্বে বাবুল চন্দ্র রায় আছেন।আর সকল বিষয়ে মাজেদুল ইসলাম ভাল বলতে পারবেন। তবে কর্মসৃজন প্রকল্পের সাইনবোর্ড বরাদ্দ আছে। জব কার্ডের বিষয়ে টাকা নেয়ার কথা জানতে চাইলে তিনি অস্বীকার করেন। প্রকল্প সভাপতি উপজেলা নির্বাহী অফিসার জিলুফা সুলতানা বলেন, সাইনবোর্ডের টাকা বরাদ্দ রয়েছে ও আমি তা বিল পাশ করে দিয়েছি। তবে অন্যান্য বিষয়ে অনিয়ম থাকলে সে ব্যাপারে আমি খুব দ্রুত ব্যবস্থা নেব।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীফেব্রুয়ারী - ১৯
ফজর৫:১৩
যোহর১২:১৩
আসর৪:২০
মাগরিব৫:৫৯
এশা৭:১২
সূর্যোদয় - ৬:২৯সূর্যাস্ত - ০৫:৫৪
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৯৩১.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.