নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, মঙ্গলবার ১৩ মার্চ ২০১৮, ২৯ ফাল্গুন ১৪২৪, ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৩৯
বিপিসি'র এলপিজি উৎপাদনে ধস
বাজার যাচ্ছে বেসরকারি কোম্পানির হাতে
জনতা ডেস্ক
বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশনের (বিপিসি) নিয়ন্ত্রণে চট্টগ্রামের ইস্টার্ন রিফাইনারি ও সিলেটের কৈলাশটিলায় স্থাপিত এলপিজি প্ল্যান্টে উৎপাদনে ধস নেমেছে। মূলত যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে কৈলাশটিলা প্ল্যান্টে গত প্রায় ৩ সপ্তাহ যাবত উৎপাদন বন্ধ রয়েছে। আর মেরামত কাজের পরও ইস্টার্ন রিফাইনারীর এলপিজি প্ল্যান্টে উৎপাদন অর্ধেকে নেমে এসেছে। তাছাড়া দেশের গ্যাস ফিল্ড থেকেও এখন কনডেনসেট কম পাওয়া যাচ্ছে। ফলে এলপি গ্যাস উৎপাদন কমে গেছে। ফলে বিপিসির ওই প্ল্যান্ট দু'টি বাজারে বেসরকারি কোম্পানিগুলোর সাথে প্রতিযোগিতায় টিকতে পারছে না। আর এলপি গ্যাসের বাজার বেসরকারি কোম্পানিগুলোর নিয়ন্ত্রণে চলে গেছে। বাজারে চাহিদা বৃদ্ধি ও বাজারজাত নীতিমালা না থাকায় বেসরকারি কোম্পানিগুলোর মর্জির উপরই বাজার দর নির্ভর করছে। তবে সরকারি দু'টি এলপিজি প্ল্যান্টে এই দুরাবস্থা নিয়ে কেউ মুখ খুলছে না। বিপিসি সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, সিলেটের এলপিজি প্ল্যান্টে উৎপাদন ক্ষমতা মাসিক ৯০০ মেট্টিক টন।

কিন্তু গত জানুয়ারিতে প্ল্যান্টটিতে উৎপাদন হয়েছে ৪৫০ মেট্টিক টন। মূলত দেশের গ্যাস ফিল্ড থেকে কনডেনসেট কম পাওয়ায় উৎপাদন কমে গেছে। আর গ্যাস ফিল্ড থেকে কনডেনসেট বেসরকারি কোম্পানিগুলো নিয়ে নিচ্ছে। আবার গ্যাস ফিল্ডগুলোতে উৎপাদন কমে যাওয়ায় কনডেনসেটের উৎপাদনও কমে গেছে। বিপিসির এলপিজি প্ল্যান্টগুলোতে তার প্রভাব পড়েছে। পাশাপাশি ইস্টার্ন রিফাইনারীর এলপিজি প্ল্যান্টে ৎ্পাদন অর্ধেকে নেমে এসেছে। অথচ ২/৩ মাস আগে ওই প্ল্যান্টে ওভারহোলিংয়ের কাজ শেষ হলেও উৎপাদন বাড়ানো যাচ্ছে না। বর্তমানে বিপিসির কৈলাশটিলার প্ল্যান্টের অবস্থা নাজুক। রক্ষণাবেক্ষণে ত্রুটির কারণে মেশিনগুলো ক্রমশ জরাজীর্ণ হয়ে পড়েছে। মেরামত কাজেও নানা অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। আর ইষ্টার্ন রিফাইনারী প্ল্যান্টের ওভারহোলিংয়ের পরও কেন উৎপাদন বাড়ছে না তা নিয়ে নানা আলোচনা হচ্ছে।

সূত্র জানায়, বিপিসির প্ল্যান্টগুলোর উৎপাদন কমে যাওয়ায় দেশের এলপি গ্যাসের বাজার বেসরকারি নিয়ন্ত্রণে চলে যাচ্ছে। দুর্বল ব্যবস্থাপনার কারণে প্রতিযোগিতায় টিকতে পারছে না বিপিসির এলপিজি। বিপিসির নিয়ন্ত্রণাধীন পদ্মা, মেঘনা, যমুনা প্রতি সিলিন্ডার ডিলারদের নিকট ৬৭৫ টাকায় বিক্রি করে। আর ভোক্তা পর্যায়ে প্রতি সিলিন্ডার গ্যাস ৭০০ টাকা দরে বিক্রি করার নির্দেশনা রয়েছে। কিন্তু বাজারে চড়া দামে সরকারি এলপিজি সিলিন্ডার বিক্রি করা হচ্ছে। বিপিসির গ্যাস সিলিন্ডার নিয়ে ডিলারদের নানা অভিযোগ রয়েছে। সিলিন্ডারগুলো জরাজীর্ন ও মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে গেছে। ফলে দুর্ঘটনার ঝুঁকি বাড়ছে। ইতিমধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ ৩০ হাজার সিলিন্ডার পরিত্যক্ত করা হয়েছে। নতুন করে ২০ হাজার সিলিন্ডার ক্রয় করা হয়েছে। বর্তমানে বিপিসির সাড়ে ৪ লাখ সিলিন্ডার রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে বিপিসির এলপি গ্যাস লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার ফজলুর রহমান জানান, যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে কৈলাশটিলা প্ল্যান্টে উৎপাদন বন্ধ রয়েছে। গত জানুয়ারি মাসে উৎপাদন হয়েছে মাত্র ৪৫০ মেট্টিক টন। আর মেরামত কাজের পরও ইস্টার্ন রিফাইনারীর প্ল্যান্টে মাসে ৬০০ টনের বেশি উৎপাদন বাড়ানো যাচ্ছে না। যদিও প্ল্যান্টের উৎপাদন ক্ষমতা তার দ্বিগুণ।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীঅক্টোবর - ১৮
ফজর৪:৪১
যোহর১১:৪৪
আসর৩:৫২
মাগরিব৫:৩৪
এশা৬:৪৫
সূর্যোদয় - ৫:৫৭সূর্যাস্ত - ০৫:২৯
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৯৬৮.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.