নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, মঙ্গলবার ১৩ মার্চ ২০১৮, ২৯ ফাল্গুন ১৪২৪, ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৩৯
বিশ্বনাথে বিদ্যুৎ অফিসে ঘুষ ছাড়া কাজ হয় না। গ্রাহকরা অতিষ্ঠ
বিশ্বনাথ (সিলেট) প্রতিনিধি
বিশ্বনাথে পল্লীবিদ্যুৎ অফিসে ঘুষ ছাড়া কোন কাজ হয় না। পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি মানুষকে সেবা দেয়ার পরিবর্তে হয়রানি করছে বেশি। কোন অভিযোগের তদন্ত হয় না, ফাইলও নড়ে না। কর্মকর্তা কর্মচারীদের যন্ত্রনায় গ্রাহকরা অতিষ্ঠ। ঊর্ধ্বতন মহলে অভিযোগ দিলেও কোন কাজ হয়না বরং হয়রানির মাত্রা আরও বেড়ে যায়।

গত ডিসেম্বরের মধ্যে শতভাগ বিদ্যুৎ সম্পাদন করার কথা থাকলেও বিশ্বনাথ পল্লীবিদ্যুৎ কর্মকর্তা কর্মচারীদের কোন মাথা ব্যথা নেই। তারা গ্রাহকদের সাথে যা ইচ্ছা তাই ব্যবহার করছে। স্থানীয় সাংবাদিকরা বিদ্যুৎ সংক্রান্ত কিছু জানতে চাইলে সব কথায় না বলে উড়িয়ে দেয়। ভুয়া বিদ্যুৎবিল, মিটার স্থাপন, ট্রান্সফরমার পরিবর্তন, নতুন সংযোগ, নুয়ে পড়া খুঁটি পরিবর্তন, মানুষের বসতবাড়ির উপর দিয়ে লাইন টানানো পরিবর্তনসহ যেকোন কাজ টাকা ছাড়া কেউ কথা বলে না। পল্লীবিদ্যুতের নিজস্ব কিছু লোক আছে যারা নানা কৌশলে টাকা আদায় করে ভাগ-ভাটোয়ারা করে থাকেন। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি কিংবা জোঁকের মত টাকা চুষে খাচ্ছে পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি।

খাজাঞ্চি ইউনিয়নের নোয়ারাই গ্রামের কৃষক আব্দুল খালিক টাকা না দেয়ায় তার বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হচ্ছে না। পাশের বাড়ির একজনের অভিযোগের প্রেক্ষিতে নতুন সংযোগ বন্ধ রাখা হয়েছে। ৬মাস পূর্বে সিলেট পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির জি এম, বিশ্বনাথ জোনাল অফিসের ডিজিএম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে আব্দুল খালিক লিখিত অভিযোগ দিয়েও কোন কাজ হয়নি। একই ইউনিয়নের হামদরচক গ্রামে টাকার বিনিময়ে খুঁটি স্থাপন করা হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। রামপাশা ইউনিয়নের দোহাল রামচন্দ্রপুর গ্রামের আ'লীগ নেতা আব্দুল হামিদের বাড়িতে টাকা না দেয়ায় বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হচ্ছে না। তার বাড়িতে খুঁটি স্থাপন করে বিদ্যুৎ সংযোগের ঠিকাদার কাজ করছি/করব বলে সময়ক্ষেপণ করছেন। অলংকারি ইউনিয়নের টেংরা এলাকায় নুয়ে পড়া খুঁটি পরিবর্তনের আবেদন করলেও কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে না। রোববার সরেজমিনে দেওকলস এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, বাঁশের খুঁটির ৫/৬ ফুট উপর দিয়ে বিদ্যুতের লাইন টানা রয়েছে। ঝড় তোফানের সময় বা রাতের অন্ধকারে সেই এলাকায় যেকোনো ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। রশিদপুর-বিশ্বনাথ-রামপাশাসহ মানুষ চলাচলে রাস্তার পাশ দিয়ে বিদ্যুতের লাইন টানা হয়েছে। এসব রাস্তায় অনেক প্রজাতি বৃক্ষ রোপণ করা হয়েছে। কিন্তু পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি প্রতি বছর বিদ্যুতের লাইন মেরামতের নামে বৃক্ষের ডালপালা ও মাথা কেটে উজাড় করছে। অথচ উঁচ খুঁটি দিয়ে ক্যাবলযুক্ত লাইন টানা হলে বৃক্ষের কোন ক্ষতি হত না। ঝড় বৃষ্টির দিন আসার আগেই গত ২/৩দিন ধরে বিশ্বনাথে দুই তিনবার করে বিদ্যুতের লোডশেডিং করা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে বিশ্বনাথ জোনাল অফিসের ডিজিএম অমলেস বর্মনের সাথে কথা হলে তিনি জানান, বিশ্বনাথে বিদ্যুতের কোন সমস্যা নেই, নুয়ে পড়া লাইন, খুটি মেরামত সংক্রান্ত বিষয়ে তার কোন করণীয় নেই, এটা নির্বাহী প্রকৌশলীর দায়িত্ব।

নির্বাহী প্রকৌশলী জগলুল হায়দার বলেন, পুরাতন লাইন খুঁটির বিষয়ে তার কোন দায়িত্ব নেই, তবে নতুন লাইনের কোন সমস্যা হলে ডিজিএম তাকে জানানোর কথা। এ ধরনের ঠেলাঠেলির ফাঁকে পড়ে অতিষ্ঠ বিশ্বনাথের বিদ্যুৎ গ্রাহকরা ।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ১০
ফজর৫:০৮
যোহর১১:৫১
আসর৩:৩৭
মাগরিব৫:১৬
এশা৬:৩৩
সূর্যোদয় - ৬:২৯সূর্যাস্ত - ০৫:১১
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৫৪৭৬.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.