নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, মঙ্গলবার ১৩ মার্চ ২০১৮, ২৯ ফাল্গুন ১৪২৪, ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৩৯
শেরপুরে স্বাস্থ্য বিভাগে কাজের স্থবিরতা চিকিৎসাসেবায় ভোগান্তি চরমে
শেরপুর থেকে জিএইচ হান্নান
শেরপুর জেলায় স্বাস্থ্য প্রশাসনের সঠিক তদারকি, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সাথে সমন্বয় না থাকায় শেরপুর জেলার সদর হাসপাতাল, নকলা, নালিতাবাড়ী, ঝিনাইগাতী ও শ্রীবরদী উপজেলা হাসপাতালসহ পাঁচটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙ্রে চিকিৎসা সেবা ভেঙে পড়ার উপক্রম হয়ে পড়েছে। সেই সাথে কাজের স্থবিরতায় চিকিৎসাসেবার ভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, শেরপুর জেলার পাঁচটি স্বাস্থ্য কমপ্লেঙ্রে মধ্যে একমাত্র জেলা সদর হাসপাতাল চিকিৎসাসেবা প্রদান করে যাচ্ছে। কিন্তু যে সংখ্যক চিকিৎসক থাকার কথা তা নেই এবং চিকিৎসক স্বল্পতার পরও এ হাসপাতালের চিকিৎসাসেবা অনেকটাই ভালো থাকলেও অন্য উপজেলার ৪টি স্বাস্থ্য কমপ্লেঙ্ েএকে বারেই নাজুক অবস্থা বিরাজ করছে। এছাড়াও জেলার ৯টি উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা ভেঙে পড়েছে। সেই সমস্ত উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসকরা দুপুর ১টার পর থাকে না বলে বিস্তর অভিযোগ রয়েছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সদর উপজেলার গাজীরখামার স্বাস্থ্য উপকেন্দ্রের চিকিৎসক দুপুর দেড়টার সময় নেই হাসপাতালে রোগী বসে আছে। এমন চিত্র অনেক স্বাস্থ্য উপকেন্দ্রেই থাকে প্রতিনিয়ত।

এদিকে টেন্ডার বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বছরের শুরুতে অথাৎ জুলাই-আগস্ট মাসে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে এমএসআর মালামাল ক্রয়ের কথা থাকলেও এবার সঠিক সময়ে তা ক্রয় করা হচ্ছে না বলেও অভিযোগ রয়েছে।

উল্লেখ্য, প্রতি অর্থ বছরের শুরুতেই এসেনসিয়াল ড্রাগস কোম্পানি থেকে প্রায় তিন কোটি টাকার সরকারি ওষুধ চাহিদার মাধ্যমে আনার কথা থাকলেও ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরে চাহিদা প্রেরণ না করায় ওষুধ আনা হয়নি। এতে সাধারণ রোগীদের ওষধের চাহিদা পূরণ হচ্ছে না। সূত্রে আরও জানা যায় বর্তমান সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ রেজাউল করিম যোগদানের পর থেকে এই স্থবিরতা দেখা দিয়েছে। তিনি তার অধীনস্থ কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সাথে প্রতিনিয়তই অশালীন আচরণ করেন। এতে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মাঝে চাপা অসন্তোষ বিরাজ করছে। এ ব্যাপারে সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ রেজাউল করিমের সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। এব্যাপারে শেরপুর জেলার সাধারণ সম্পাদক জনগণ সদর আসনের এমপি ও জাতীয় সংসদের হুইপ বীর মুক্তিযোদ্ধা আতিউর রহমান আতিকসহ বিভাগীয় ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীসেপ্টেম্বর - ২৪
ফজর৪:৩২
যোহর১১:৫১
আসর৪:১২
মাগরিব৫:৫৬
এশা৭:০৯
সূর্যোদয় - ৫:৪৭সূর্যাস্ত - ০৫:৫১
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৮১১.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.