নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, মঙ্গলবার ১৩ মার্চ ২০১৮, ২৯ ফাল্গুন ১৪২৪, ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৩৯
নেপাল কর্তৃপক্ষের দাবি
পাইলটের ভুলেই দুর্ঘটনা
জনতা ডেস্ক
চালকের ভুলের কারণে নেপালের কাঠমাণ্ডুতে ঢাকা থেকে যাওয়া ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের যাত্রীবাহী উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হয়েছে বলে দাবি করেছে নেপাল কর্তৃপক্ষ। দেশটির বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের মহাপরিচালক সঞ্জিব গৌতম সংবাদমাধ্যম বিজনেস ইনসাইডারকে বলেন, পাইলটের ভুলেই দুর্ঘটনা ঘটেছে

বলে প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে। সঞ্জিব জানান, দুপুর ২টা ২০ মিনিটে ঢাকা থেকে আসা ‘বিএস-২১১’ বিমানটিকে রানওয়ের দক্ষিণ পাশ থেকে নামার অনুমতি দেয়া হয়েছিল। কিন্তু বিমানটি গতি কম নিয়ে উত্তর দিক থেকে অবতরণ করার চেষ্টা করে। এতে বিমানটি রানওয়ের পাশে ছিটকে পড়ে এবং আগুন ধরে যায়। এ দুর্ঘটনাকে পাইলটের ভুল বলে উল্লেখ করেছেন নেপালের বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের মহাপরিচালক। নেপালে এই দুর্ঘটনায় অন্তত ৫০ জন নিহত হয়েছেন বলে নেপালি সংবাদ মাধ্যমগুলোর বরাত দিয়ে জানাচ্ছে হিন্দুস্থান টাইমস। হাসপাতালে নেয়া হয়েছে অন্তত ২১ জনকে। এদিকে আনিকা পা-ে নামে এক প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে বিজনেস ইনসাইডার জানায়, নামার সময় স্বাভাবিক গতি ছিল না ইউএস বাংলার বিমানটির।

শেষ মুহূর্তে বিমানটি নামতে গিয়ে গতিপথ পরিবর্তনের চেষ্টা করে। এর পর মুহূর্তেই বিমানটি রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ে যায়। এর আগে দুর্ঘটনার পরপরই নেপালের সিভিল অ্যাভিয়েশনের মহাপরিচালক সঞ্জীব গৌতমকে উদ্ধৃত করে কাঠমা-ু পোস্ট জানায়, অবতরণের সময়ে বেশ অস্বাভাবিক আচরণ দেখা যায় ফ্লাইটিতে। সেটি অনেকটা নিয়ন্ত্রণহীন ছিল। রানওয়ের দক্ষিণ দিকে অবতরণের অনুমতিও দেয়া হয়েছিল। কিন্তু দক্ষিণ দিকের অনুমতি নিয়ে সেটি উত্তর দিকের রানওয়েতে ল্যান্ড করে। তিনি সন্দেহ করছেন, কোনো কারিগরি ত্রুটির কারণেই এমনটা ঘটেছে।

তবে দুর্ঘটনার প্রকৃত কারণ এখনো জানা যায়নি। টেলিভিশনের খবরে আরও বলা হয়েছে, উড়োজাহাজটি ক্যাপ্টেন বেঁচে আছেন বলে আশা করা হচ্ছে। ঢাকা থেকে পাওয়া তথ্যে জানা যাচ্ছে- ক্যাপ্টেন হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন আবেদ সুলতান নামের একজন। ঢাকায় ইউএস-বাংলার একজন কর্মকর্তা জানান, আবেদ সুলতানই ঐ ফ্লাইটের ক্যাপ্টেন হিসাবে ছিলেন। নেপাল টিভি জানাচ্ছে, পাইলটের সহকারী হিসাবে ছিলেন একজন নারী। যিনি মারা গেছেন বলেই ধারণা করা হচ্ছে।
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ১৬
ফজর৫:১২
যোহর১১:৫৪
আসর৩:৩৯
মাগরিব৫:১৭
এশা৬:৩৫
সূর্যোদয় - ৬:৩৩সূর্যাস্ত - ০৫:১২
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৫৫৪৮.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.