নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, শুক্রবার ১৫ মার্চ ২০১৯, ১ চৈত্র ১৪২৫, ৭ রজব ১৪৪০
প্রকল্প নেই বরাদ্দও নেই
সাবেক পুলিশ সদস্যের বাড়ি পর্যন্ত রাস্তা নির্মাণে এত কেন তৎপর ইউএনও?
হোসেনপুর (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি
জেলা প্রশাসক, উপজেলা ও অন্যান্য কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন সত্ত্বেও সবকিছু উপেক্ষা করে চাকরিচ্যুত পুলিশের সদস্য নজরুল ইসলাম উজ্জ্বলের ইচ্ছা অনুযায়ী দক্ষিণ গোবিন্দপুর মেইন রোড থেকে তার বাড়ি পর্যন্ত রাস্তা করার উদ্যোগ নিয়েছেন ইউ.এন.ও.। সে অনুযায়ী একটা কাজের বিনিময়ে খাদ্য 'কাবিখা' প্রকল্প দেয়া হয়েছিল কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলার সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে। কিন্তু তা বিধি বহির্ভূত হওয়ায় জেলা ত্রাণ কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে বাতিল হয়ে যায়। কিন্তু তাতে থেমে যাননি উপজেলা নির্বাহী অফিসার কমল কুমার ঘোষ। তিনি এলাকাবাসীর শত আপত্তির মুখেও হোসেনপুর থানার অফিসার্স ইনচার্জ ওসিসহ ২০/২৫ জনের ফোর্স নিয়ে নিজে উপস্থিত থেকে মাটি কেটে রাস্তা নির্মাণ করেছেন। রাস্তা নির্মাণ করতে গিয়ে ভাঙা পড়েছে

বাড়ি-ঘর, স্যালো মেশিন এবং এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তির কবরস্থান। কাটা পড়েছে বেশ কিছু ফলফলাদির গাছ। কিন্তু তাতেও ভ্রুক্ষেপ নেই তাদের।

দক্ষিণ গোবিন্দপুর গ্রামের বাসিন্দারা বলেছেন, বিকল্প রাস্তা থাকার পরও ইউএনও এবং থানার ওসি'র তৎপরতা রহস্যজনক। বাসিন্দারা জানিয়েছেন, ইউএনও সাহেবের উপস্থিতিতে ওসি প্রকাশ্যে সবাইকে বলেছেন, রাস্তা নির্মাণে বাধা দিলে গুলি করে মারা হবে। এবিষয়ে গত সোমবার কথা হয় হোসেনপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইউএনও কমল কুমার ঘোষের সঙ্গে। তিনি বলেন, সরকারি জায়গা উদ্ধারে তিনি বল প্রয়োগ করেছেন। তবে রাস্তা নির্মাণের খরচের বিষয়ে কিছু বলেননি। তবে তিনি বলেছেন, ইচ্ছে করলে তিনি ঐ দিন গ্রামবাসীদের গ্রেফতার করে নিয়ে আসতে পারতেন।

এলাকাবাসী জানান, পুলিশের সদস্য নজরুল ইসলাম উজ্জ্বল চাকরিচ্যুত, কিন্তু তিনি বলেন ২০১৮ সালের ডিসেম্বর মাসের ২৫ তারিখ অবসরে গেছেন। বাড়িতে তার পোল্ট্রিফার্ম রয়েছে। মুরগির খাবার আনতে তার বেশ অসুবিধা হয়। একথা জানানোর পর ইউএনও রাস্তা নির্মাণের কথা বলেন। আর বিকল্প রাস্তা দিয়ে এসব আনতে গেলে তার এক সময়ের বন্ধু শাহজাহান সাজু বকাঝকা করেন। প্রকল্প পাস হয় নাই রাস্তা নির্মাণের খরচ কোথায় থেকে আসলো জানতে চাইলে তিনি জানান, তিনি মাত্র দুই হাজার টাকা দিয়েছেন। বাকি টাকা কোথা থেকে আসল তা রহস্যজনক। উজ্জ্বল পুলিশ বলেন স্ইে টাকা ম্যানেজ করে নিবেন। একথা স্বীকার করেছেন ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম ভূইয়া হিমেল।

প্রসঙ্গত, উপজেলা কার্যালয়ের পক্ষ থেকে বিধি বহির্ভূত রাস্তা নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হলে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে জেলার প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কার্যালয়ে অভিযোগ দেয়া হয়। তাতে বলা হয়, গোবিন্দপুর ইউপি'র ৬ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য এর কার্যালয়ের পাশে আব্দুস সালামের বাড়ি হতে নূরু মুনশির ও উজ্জ্বল পুলিশের বাড়ি পর্যন্ত হালট রাস্তাটি কাবিখা প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হলে বিধি বহির্ভূত হয় এবং বসতবাড়ী, কবরস্থান, ফসলি জমি এবং বড় বড় গাছপাল ক্ষতিগ্রস্ত হবে। এছাড়া কাবিখার রাস্তার জন্য সবখানে ১২ ফুট জায়গা প্রয়োজন হলেও সেখানে সমপরিমাণ জায়গা নেই। সরকারি য়ারের রিপোর্ট অনুযায়ী কোথাও তিন ফুট আবার কোথাও ৫ ফুট আবার কোথাও ১২ ফুট রয়েছে। এলাকাবাসী বলছেন, মানুষের চলাচলের জন্য বিকল্প থাকার পরও মানুষের বসতবাড়ী ক্ষতিগ্রস্থ রাস্তা বানানোর জন্য কিছু লোক ওঠেপড়ে লেগেছে। উপজেলা সার্ভেয়ার মনিরুজ্জামান এর সত্যতা স্বীকার করে বলেন, তিনি মাপতে গিয়ে কোথাও ৫ ফুট কোথাও ৮ ফুট এবং কোথাও তার চেয়ে বেশি পেয়েছেন।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীসেপ্টেম্বর - ২১
ফজর৪:৩১
যোহর১১:৫২
আসর৪:১৫
মাগরিব৫:৫৯
এশা৭:১২
সূর্যোদয় - ৫:৪৬সূর্যাস্ত - ০৫:৫৪
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৭৩৫৪.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.