নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, রোববার ১৪ এপ্রিল ২০১৯, ১ বৈশাখ ১৪২৬, ৭ শাবান ১৪৪০
হোমনায় প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ভাতা আত্মসাতের অভিযোগ
হোমনা প্রতিনিধি
কুমিল্লার হোমনায় স্বাক্ষর জাল করে সমাজসেবা কার্যালয় থেকে অন্য শিক্ষার্থীদের দিয়ে তিন প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীর ভাতা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে এক প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। উপজেলার আসাদপুর হাজী সিরাজ-উদ-দৌল্লা ফারুকী উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. জালাল উদ্দিন বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে এ টাকা আত্মসাতের লিখিত অভিযোগ করেন তিন ভুক্তভোগি প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী।

এই ঘটনায় গত ৭ এপ্রিল বিদ্যালয়ের প্রতিবন্ধী তিন শিক্ষাথী মো. নুর নবী, মো. আজিজুল হক ও মো. রাব্বী তাদের টাকা ফেরত চেয়ে এ অভিযোগ করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার আসাদপুর ইউনিয়নের আসাদপুর হাজী সিরাজ-উদ-দৌল্লা ফারুকী উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. জালাল উদ্দিন গত ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯খ্রি. তারিখ তিন প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীর স্বাক্ষর জাল করে উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয় থেকে তাদের নামীয় ৭ হাজার ২০০ টাকা করে ৩টি চেক গ্রহণ করে সোনালী ব্যাংক থেকে ২১ হাজার ৬০০ টাকা উত্তোলন করেন । তবে চেক বিতরণ সিটে যে স্বাক্ষর রয়েছে এটি তাদের স্বাক্ষর নয় বলে ছাত্ররা অভিযোগে উল্লেখ করেন। তাদের নামের ৭ হাজার ২শত টাকা করে উওোলন করা হলেও তাদের মাত্র ২ হাজার টাকা করে দেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. জালাল উদ্দিন। বিষয়টি জানার পর টাকা ফেরত পেতে প্রতিবন্ধী তিন শিক্ষার্থী উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেন।

এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. জালাল উদ্দিন বলেন, আমি টাকা উওোলন করিনি অফিস সহকারী টাকা উওোলন করেছেন, আমি কোন টাকা আত্মসাত কারিনি, তারা তাদের টাকা পেয়ে গেছে। সমাজসেবা অফিসার তাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তদন্ত করছেন।

এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হাজী রোস্তম আলম স্বপন এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বিষয়টি আমি শুনেছি। সভাপতি হিসেবে যতটুকু ক্ষমতা আছে, সত্যতা পেলে ঐ প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অফিস সহকারী আবদুল আজিজ তার বিরুদ্ধে প্রধান শিক্ষকের করা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি হচ্ছি হুকুমের গোলাম। প্রধান শিক্ষক আমাকে যেভাবে বলেন, আমি সে অনুযায়ী কাজ করি। আমি টাকা তুলে প্রধান শিক্ষকের কাছে দিয়েছি। স্যার কীভাবে বিতরণ করেছেন তা তিনিই জানেন। ছাত্ররা অভিযোগ করার পর তিন জনকে আটত্রিশ হাজার টাকা ফেরত দিয়েছেন।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. রমজান আলী বলেন, চেক বিতরণের সময় প্রতিস্বাক্ষরের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া প্রয়োজন ছিল। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। ইএনও স্যার আমাকে বিষয়টি তদন্ত করতে দিয়েছেন। যথাযথভাবেই তদন্ত করা হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আজগর আলী বলেন, শিক্ষার্থীদের অভিযোগ পেয়েছি। সমাজসেবা কর্মকর্তাকে জরুরিভিত্তিতে তদন্ত করার দায়িত্ব দিয়েছি। তদন্ত প্রতিবেদন পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীজুলাই - ১৭
ফজর৩:৫৫
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪৪
মাগরিব৬:৫১
এশা৮:১৩
সূর্যোদয় - ৫:২১সূর্যাস্ত - ০৬:৪৬
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৬৫৫৮.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.