নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, রোববার ১৪ এপ্রিল ২০১৯, ১ বৈশাখ ১৪২৬, ৭ শাবান ১৪৪০
তেঁতুল তত্ত্বের কারণেই নুসরাত হত্যাকান্ড : ইনু
স্টাফ রিপোর্টার
তেঁতুল তত্ত্বের লোকেরাই ফেনীর মাদরাসাছাত্রী নুসরাতকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন জাসদ সভাপতি ও সাবেক তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেন, নুসরাত হত্যাকান্ড আবারো প্রমাণ করলো ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের জন্য আসলে তেঁতুলতত্ত্ব দায়ী। গতকাল শনিবার রাজধানীর সিরডাপমিলনায়তনে 'অনলাইন সাংবাদিকতা : চ্যালেঞ্জ ও সম্ভবনা' শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনা অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন। দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে অনলাইন নিউজ পোর্টাল আন্দোলন ৭১ ডটকম এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

হাসানুল হক ইনু বলেন, তেঁতুল তত্ত্বের মালিকরা একাত্তরে নারীর গায়ে হাত দিয়েছিল। এই তেঁতুল তত্ত্বের লোকেরাই আজকে নারীর গায়ে হাত দিয়েছে। নুসরাতকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে। তিনি বলেন, গণমাধ্যমের আগের চ্যালেঞ্জ ছিল এইসব ধর্ম ব্যবসায়ী, সাম্প্রদায়িক শক্তি ও স্বৈরাচারের দালালরা। তাদের অস্ত্র ছিল মিথ্যাচার, ইতিহাস বিকৃতি, হলুদ সাংবাদিকতা। সুতরাং এই মিথ্যাচার, ইতিহাস বিকৃতি ও হলুদ সাংবাদিকতা থেকে দেশকে রক্ষা করাই এখন গণমাধ্যমের চ্যালেঞ্জ।

গণমাধ্যমের আরেকটি চ্যালেঞ্জ হচ্ছে, তেঁতুল তত্ত্বের সাম্প্রদায়িকতা মোকাবিলা করা। ডিজিটাল সমাজের দায়বদ্ধতা সম্পর্কে সচেতনতা অর্জন করা। ডিজিটাল সমাজে থাকতে হলে ডিজিটাল সমাজের নিরাপত্তা প্রদান করা।

অনলাইন এবং আইপিটিভিকে প্রাতিষ্ঠানিক আওতার মধ্যে নিয়ে আসতে হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, সম্প্রচার নীতিমালা করার পর অনেকেই সমালোচনা করেছেন, কিন্তু এটা নিয়ে আলোচনার জন্য ডাকা হলে তখন কেউ সাড়া দেয়নি। এটা দুঃখজনক। তথ্য অধিকার আইন প্রতিষ্ঠায় তথ্য কমিশন গঠন শেখ হাসিনা সরকারের একটি বড় অর্জন উল্লেখ করেন সাবেক এই তথ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, এই তথ্য অধিকার আইনটা প্রয়োগ করা নিয়েও গণমাধ্যমের কোনো মাথাব্যথা নেই। খুবই দুঃখজনক ব্যাপার হলো, প্রত্যেকটি উপজেলায় তথ্য কর্মকর্তা রয়েছেন। কিন্তু সেখান থেকে কেউ সেই সুযোগটা নেয় না। বর্তমান সরকার গণতন্ত্রের যাত্রা শুরু করেছে সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও সাম্প্রদায়িকতা মুক্ত রাখতে। এই যাত্রায় নিত্যসঙ্গী হিসেবে গণমাধ্যমকে শরিক করেছে। সেই জন্য তথ্য অধিকার আইন, তথ্য কমিশন গঠন করা হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌসের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, তথ্য কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান ড. গোলাম রহমান, সারাবাংলা.নেটের নির্বাহী সম্পাদক মাহমুদ মেনন খান, সাবেক হুইপ ও অনুমতি হিসাব সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুস শহীদ, সাংবাদিক রাহুল রাহা, প্রথম আলো অনলাইনের ড. কাবিল খান, এবিসিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের সম্পাদক সুভাষ সিংহ রায় প্রমুখ।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ১০
ফজর৫:০৮
যোহর১১:৫১
আসর৩:৩৭
মাগরিব৫:১৬
এশা৬:৩৩
সূর্যোদয় - ৬:২৯সূর্যাস্ত - ০৫:১১
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
১১৫০৬.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.