নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, সোমবার ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ৩ বৈশাখ ১৪২৫, ২৮ রজব ১৪৩৯
কুড়িগ্রামে শত শত সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের শিক্ষা অনিশ্চিত
সরকারি হস্তক্ষেপ কামনা
কুড়িগ্রাম থেকে নুরুল ইসলাম
কুড়িগ্রাম সদর উপজেলায় প্রায় ৪ হাজারেরও বেশি সুবিধাবঞ্চিত প্রতিবন্ধী শিশু শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের জন্য সরকারিভাবে কোনো পদক্ষেপ না থাকায় শিক্ষা গ্রহণ ও প্রশিক্ষণ নেয়া তাদের পক্ষে সম্ভব হচ্ছে না। দিনে দিনে এসকল শিশু সমাজে বঞ্চিত ও অবহেলিত হয়ে পড়ছে।

জানা যায়, কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার জেল শহরে মাত্র ১টি বুদ্ধি-প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় শহরের কিছু প্রতিবন্ধী শিশু এ বিদ্যালয়ে লেখাপড়াসহ প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে। কিন্তু যাত্রাপুর পাঁচগাছী, ভোগডাঙ্গা ও ঘোগাদহ ইউনিয়ন গুলি চরাঞ্চল হওয়ায় এ অঞ্চলগুলোতে প্রতিবন্ধী বহু শিশু জন্ম নিয়েছে। কুড়িগ্রাম সমাজসেবা অফিসের তথ্য অনুযায়ী যাত্রাপুর পাঁচগাছী চরাঞ্চলে প্রায় ৪শ শিশু-প্রতিবন্ধী। এদের লেখাপড়া ও প্রশিক্ষণের জন্য পাঁচগাছী ইউনিয়নের উত্তর নওয়াবশ মৌজায় শিশু এতিম প্রতিবন্ধী বুদ্ধি ও অটিস্টিক বিদ্যালয়টি দীর্ঘ ১২ বছর ধরে কাজ করে চলছে।

সরকারি পর্যায়ে মিনিস্টারি অডিটসহ জেলা-উপজেলা কর্মকর্তারা বিভিন্ন সময়ে তদারকি করে প্রতিবন্ধী শিশুদের জীবন মান উন্নয়নের অনেক কার্যক্রম এই বিদ্যালয়ের মাধ্যমে দেখতে পেয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে বিদ্যালয়টি একাডেমি স্বীকৃতির জন্য সুপারিশ করে। সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের বিগত ২০০৯ সালে বুদ্ধি ও অটিস্টিক বিদ্যালয়ের নীতিমালা অনুযায়ী বিদ্যালয়টি পরিচালিত হয়ে আসলেও বর্তমানে অর্থের অভাবে ব্যবস্থাপনা কমিটি সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের লেখাপড়া ও প্রশিক্ষণের ব্যয় বহন করতে অপারগতা প্রকাশ করছে। ফলে শিক্ষকেরা বিদ্যালয়ে আসলেও দীর্ঘদিন হতে বেতন ভাতা না পাওয়ায় প্রতিবন্ধী শিশুদের লেখাপড়া ও প্রশিক্ষণ দিতে অনীহা প্রকাশ করছে।

এছাড়াও এ সকল সুবিধা বঞ্চিত প্রতিবন্ধী শিশুদের খাওয়ার জন্য ব্যয় বহন করার মতো এ অঞ্চলে তেমন কোনো বিত্তবান ব্যক্তি না থাকায় প্রতিবন্ধী শিশুরাও খাদ্য পুষ্টির অভাবে দিন দিন নানান রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। উপজেলা পর্যায়ে এই বিদ্যালয়টি নেয়ার জন্য কুড়িগ্রাম সমাজসেবার উপপরিচালক জোবায়দুর রহমান ও সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার আমিন আল পারভেজ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে সুপারিশসহ প্রতিবেদন দাখিল করেন কিন্তু অদ্যাবধি পর্যন্ত সরকারি পর্যায়ে এ সকল বিদ্যালয়ের একাডেমিক স্বীকৃতি ও বিল ভাতা প্রদানের কোনো ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ না হওয়ায় অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে সুবিধাবঞ্চিত প্রতিবন্ধী শিশুদের শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীজুন - ২৫
ফজর৩:৪৫
যোহর১২:০১
আসর৪:৪১
মাগরিব৬:৫২
এশা৮:১৭
সূর্যোদয় - ৫:১২সূর্যাস্ত - ০৬:৪৭
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৮৩৪.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.