নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, সোমবার ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ৩ বৈশাখ ১৪২৫, ২৮ রজব ১৪৩৯
মাদারীপুরে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মিথ্যা চাঁদাবাজির অভিযোগ করায় থানায় জিডি
মাদারীপুর প্রতিনিধি
মাদারীপুরে 'হোটেল থেকে অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগে বেয়াই-বেয়াইন আটক' শীর্ষক সংবাদ প্রকাশের জের ধরে ভিত্তিহীন চাঁদাবাজির অভিযোগ এনে মিথ্যা সংবাদ প্রচার ও হুমকি দেয়ায় সদর মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। গত বুধবার রাতে সময় টেলিভিশনের স্টাফ রিপোর্টার সঞ্জয় কর্মকার অভিজিৎ মাদারীপুর সদর মডেল থানায় এই জিডি করেন। জিডিটি গুরুত্ব সহকারে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শিগগিরই তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। জিডি সূত্রে জানা যায়, গত সোমবার মাদারীপুর শহরের একটি আবাসিক হোটেলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগে এক নারী ও এক পুরুষকে আটক করে। এ বিষয়ে প্রথমে ঐ দিন সন্ধ্যা ৭টা ৩৯ মিনিটে দৈনিক যুগান্তর পত্রিকার অনলাইন লঁমধহঃড়ৎ.পড়স এবং পরে রাত ৮টা ২৮ মিনিটে লধমড়হবংি২৪.পড়স-এ সংবাদ প্রকাশ হয়। এরপর ঐ নিউজটি দেখে সময় টিভি'র অনলাইন থেকে অভিজিতের কাছে মোবাইল ফোনে কল দিয়ে সময় টিভির অনলাইন থেকে নিউজটি চাইলে প্রকৃত তথ্য-প্রমাণসহ নিউজটি পাঠানো হয়। এরপর রাত ৯টা ২০ মিনিটে টিভির অনলাইনতে প্রকাশ হয়। অথচ, নিউজটি প্রকাশ হওয়ার দুই দিন পরে বুধবার অভিজিতের নামে মিথ্যা অভিযোগ এনে তাকে হেয়প্রতিপন্ন করার জন্য ঐ হোটেল মালিক ও ডিবি পুলিশের ঐ কর্মকর্তার বক্তব্য দিয়ে অভিজিতের বিরুদ্ধেসহ কয়েকটি অনলাইনে মাদারীপুর প্রতিনিধি সাবি্বর হোসাইন আজিজের করা একটি মিথ্যা ও মনগড়া সংবাদ প্রকাশ করা হয়। জিডিতে আরও উল্লেখ্য করা হয়েছে, অভিজিতের বিরুদ্ধে প্রচারিত বিষয়টি বিব্রতকর ও মানহানিমূলক। এছাড়া ঐ হোটেল মালিক ও পুলিশ সদস্যের ঘনিষ্ঠ সাংবাদিকসহ প্রভাবশালী একাধিক ব্যক্তি নিউজ করার জন্য দেখে নেয়ার হুমকি-ধামকি প্রদান করছে বলেও জিডিতে উল্লেখ্য করেন তিনি। এ ব্যাপারে সাংবাদিক সঞ্জয় কর্মকার অভিজিৎ বলেন, আমাকে নিয়ে চাঁদার অভিযোগ এনে যে নিউজ করা হয়েছে সেটা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। সংবাদের প্রচারের পরে এমন অভিযোগ আনা হাস্যকর। আমি চাঁদা চাইলে আমার বিরুদ্ধে তারা আইনগত ব্যবস্থা নেননি কেন? মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন দেব বলেন, যেহেতু সাংবাদিক অভিজিৎ আইনগত ব্যবস্থা চেয়েছেন, আমরা তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেবো। আসামাজিক কাজে হোটেল মালিক কিংবা পুলিশের কোন কর্মকর্তা লিপ্ত থাকলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেবো।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ১৯
ফজর৫:১৫
যোহর১১:৫৬
আসর৩:৪০
মাগরিব৫:১৯
এশা৬:৩৬
সূর্যোদয় - ৬:৩৫সূর্যাস্ত - ০৫:১৪
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৬১৪৭.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.