নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, সোমবার ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ৩ বৈশাখ ১৪২৫, ২৮ রজব ১৪৩৯
মহেশপুরে মনোয়ারা (প্রাঃ) হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভুল চিকিৎসায় বাড়ছে মৃত্যু
মহেশপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি
গতকাল রাতে ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার জিন্নানগর বাজারে অবস্থিত মনোয়ারা প্রাইভেট হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে সিজারের কারণে রেহেনা বেগম (৩৫) নামের এক প্রসূতি মায়ের করুণ মৃত্যু হয়েছে। রেহেনা বেগম উপজেলার কাজীরবেড় ইউপির পলিয়ানপুর গ্রামের জামাত মন্ডলের ছেলে মহর আলীর স্ত্রী। জানা গেছে, গতকাল সকালে রেহেনা বেগমের সিজারের জন্য জিন্নানগর বাজারে অবস্থিত মনোয়ারা প্রাইভেট এন্ড ডায়গনস্টিক সেন্টারে তার স্বামী মহর আলী ভর্তি করেন এবং দুপুরে সোহেল রানা নামের এক ভাড়াটিয়া ডাক্তার দিয়ে সিজার করলে রেহেনার শারীরিক জ্বালা যন্ত্রণা বেড়ে যায়।

এসময় ক্লিনিকে রেখেই ঐ ভাড়াটিয়া ডাক্তার দ্বারা বিভিন্ন রকমের চিকিৎসা দেওয়া হয়। রোগীর স্বামী মহর আলী জানান, রোগীর অবস্থার অবনতি হলে ক্লিনিক পরিচালক মঞ্জুয়ারা বেগম ডাক্তারের পরামর্শ না নিয়ে ঘুমের ইনজেকশন দেন এবং পরিচালক মঞ্জুয়ারা ও সহকারী পরিচালক জুলফিক্কার আলী ক্লিনিক থেকে সন্ধ্যায় গোপনে যশোর নেয়ার পথে রেহেনা মারা যায়। এ খবর মুহূর্তের মধ্যে এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে রাতেই ক্লিনিক মালিক গোপন আঁতাতে অর্থের বিনিময়ে রফা দফা করে মাটি দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। মৃত্যুকালে তিনি স্বামী সন্তান শশুর শাশুড়ি পিতা মাতা সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

সকাল সাড়ে ১১টায় গ্রামের মাদ্রাসা মাঠে নামাজে জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। এভাবে গত এক বছরে ঐ ক্লিনিকে শিশুসহ ৪টি মানুষ মারা গেলেও ক্লিনিক মালিকের কোন কিছুই হয়নি। টাকার জোরে সব কিছু ম্যানেজ করে চালিয়ে যাচ্ছে তার ক্লিনিক ব্যবসা। বিষয়টি নিয়ে ক্লিনিকের সহকারী পরিচালক লেখাপড়া না জানা মূর্খ জুলফিক্কারের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, রোগীর অবস্থা খারাপ ছিল বাঁচানোর জন্য অনেক চেষ্টা করেছি না বাঁচলে আমরা কি করবো যা হবার তাই হবে। তিনি আরও বলেন সাঁতারের উপর কোন পানি নেই সিভিল সার্জন অফিসের নওশের আলী ঠিক থাকলে সব ঠিক। এঘটনায় ঝিনাইদহ সিভিল সার্জনের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। তবে সিভিল সার্জন অফিসের সিএস নওশের আলীর সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, মহেশপুর উপজেলায় ছোট বড় প্রায় ২৫/৩০টি ক্লিনিক রয়েছে। কয়েকটির কাগজপত্র ছাড়া বাকিদের উল্লেখযোগ্য কোন কাগজপত্র ও যন্ত্রপাতি নাই। আমরা অতি সত্বর ঝিনাইদহ এবং খুলনার একটি টিম ইনভেস্টিগেশনে নামছি তাতে মহেশপুরে অধিকাংশ ক্লিনিক বন্ধ হয়ে যাবে। এতে জিন্নানগর বাজারে অবস্থিত মনোয়ারা প্রাইভেট হাসপাতালটির বিরুদ্ধে এপর্যন্ত অনেক অভিযোগ পেয়েছি। এর বিরুদ্ধে দ্রুতই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ ব্যাপারে মহেশপুর হাসপাতালের টিএইচও ডা. নাসির উদ্দিন বলেন, প্রাইভেট হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়গনিস্টিক সেন্টারগুলো নিয়ন্ত্রণ করেন ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন। এর আগেও ঐ ক্লিনিকে কয়েকটি মানুষ মারা গিয়াছে যার রিপোর্ট আমরা এখান থেকে দিয়েছি এবং গতকাল যে মেয়েটি মারা গেছে এবিষয়েও জানিয়েছি কিন্তু ব্যবস্থা নিবেন সিভিল সার্জন । একের পর এক দুর্ঘটনা ঘটায় এলাকাবাসী এই মনোয়ারা প্রাইভেট হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার-এর পরিচালকের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীএপ্রিল - ২৭
ফজর৪:০৮
যোহর১১:৫৭
আসর৪:৩২
মাগরিব৬:২৮
এশা৭:৪৫
সূর্যোদয় - ৫:২৮সূর্যাস্ত - ০৬:২৩
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৮৫৩.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.