নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, সোমবার ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ৩ বৈশাখ ১৪২৫, ২৮ রজব ১৪৩৯
ডিসিসিআই'র মতবিনিময় সভায় অভিমত
দ্রব্যমূল্য সহনীয় রাখতে ব্যবসায়ীদের স্বদিচ্ছা ও সরকারের কার্যকর উদ্যোগ জরুরি
রমজান মাসে নৈতিকতার সাথে ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর। পরিবহণ খাতে চাঁদাবাজি ও যানজট নিয়ন্ত্রণে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান ব্যবসায়ীদের
অর্থনৈতিক রিপোর্টার
আসন্ন রমজান মাসে পণ্যের মূল্য সহনীয় রাখতে ব্যবসায়ীদের স্বদিচ্ছা এবং সরকারের কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ জরুরি বলে অভিমত ব্যক্ত করা হয়েছে। একই সঙ্গে পরিবহণ খাতে চাঁদাবাজি ও যানজট নিয়ন্ত্রণে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছে ব্যবসায়ীরা।

তারা বলেন, ব্যবসায়ী সমাজ ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও সরকারি সংস্থার সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমেই নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য এবং আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্থিতিশীল রাখা সম্ভব। গতকাল রোববার রাজধানীর মতিঝিলস্থ ডিসিসিআই অডিটরিয়ামে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই)'র উদ্যোগে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় এসব কথা উঠে আসে।

ব্যবসায়ীদের পক্ষে বক্তব্য তুলে ধরেন ঢাকা চেম্বারের সভাপতি আবুল কাসেম খান। তিনি বলেন, ২০১৭ সালের এপ্রিল থেকে মে মাসের ব্যবধানে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম গড়ে ১৭ দশমিক ৫১ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছিল এবং এই মূল্যবৃদ্ধির মূলে রয়েছে প্রথাগত বাজার সরবরাহ প্রক্রিয়া, অতিরিক্ত মজুদকরণের মাধ্যমে বাজারে পণ্যদ্রব্যের কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টি, অপর্যাপ্ত ও সমন্বয়হীন বাজার মনিটরিং, পরিবহণখাতে চাঁদাবাজি, দুর্বিষহ যানজট এবং অতিরিক্ত পরিবহণ ব্যয়। বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য মতে, ২০১৮ সালে দেশে গড় মূদ্রাস্ফীতি ৫ দশমিক ৮২ শতাংশ এবং খাদ্যদ্রব্যে গড় মূদ্রাস্ফীতি ৭ দশমিক ১৩ শতাংশ। এ পরিস্থিতে আসন্ন রমজান মাসে খাদ্যদ্রব্যের দাম আরও বাড়লে মধ্যবিত্ত আয়-ব্যয়ে সমন্বয় করতে হিমশিম খাবে। তিনি বলেন, বর্তমানে ঋণ প্রদানের ক্ষেত্রে ব্যাংকগুলো দুই অঙ্কের উচ্চ সুদের হার এবং কোনো কোনো ব্যাংকের ১৬ শতাংশ থেকে ১৭ শতাংশ সুদ হার উৎপাদন খরচ বাড়াতে পারে, পাশাপাশি রয়েছে ঋণ পাওয়ার জটিলতা ও অপ্রয়োজনীয় সময়ক্ষেপণ। এই সব কিছুর চাপ শেষ পর্যন্ত গিয়ে উৎপাদন খরচের সাথে যোগ হয় এবং ভোক্তাকেই তা বহন করতে হয়। পাশাপাশি রমাজানে ট্যারিফ কমিশন ও রাজস্ব বোর্ড এসব নির্দিষ্ট ভোগ্যপণ্যে ট্যারিফ ও শুল্ক হরাস করতে পারে এবং ব্যবসায়ীরা রমজানে পাইকারী পর্যায়ে বিক্রয় করার ক্ষেত্রে অন্যান্য মাসের তুলনায় সুলভমূল্যে বিক্রয় করতে পারবে।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এম.পি। তিনি বলেন, দেশের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যবৃন্দ কোনো ধরনের অনৈতিক কার্যক্রমকে প্রশয় দিবে না এবং এ ধরনের পরিস্থিতি কঠোর হস্তে দমন করা হবে। এ ধরনের অসাধু কার্যক্রমে আইন-শঙ্খলা বাহিনীর কোনো সদস্য জড়িত থাকলে তাকেও কোনো ধরনের ছাড় দেয়া হবে না। মহাসড়াকে যানজটের বিষয়ে তিনি গাড়ির চালকদেরকে নিয়ম মেনে গাড়ি চালানোর এবং মাত্রাতিরিক্তি পণ্য পরিবহণে বিরত থাকার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান। এসময় তিনি আসন্ন রমজান মাসে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম সহনীয় পর্যায়ে রাখা এবং বিপনী বিতানসমূহে নিরাপত্তা বিধানে সরকারের পক্ষ হতে সকল ধরনের উদ্যোগ গ্রহণের আশ্বাস প্রদান করেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কনজুমারস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব)-এর সভাপতি গোলাম রহমান। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে পণ্যের দাম স্থিতিশীল থাকা সত্ত্বেও ডলারের দামের ওঠা-নামার ফলে আমাদের আভ্যন্তরীণ বাজারে পণ্যের দাম বৃদ্ধি পায় এবং এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ব্যাংক, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট সকলকে আরও সচেতন থাকতে হবে। রাস্তাঘাটে যানজট, বন্দরসমূহে জাহাজ ও পণ্যবাহী ট্রাকের জটের ফলে বিশেষ করে রমজান মাসে চাহিদা মাফিক পণ্যের সরবরাহ ব্যাহত হয়, তাই এ সমস্যা সমাধানে বন্দর কর্তৃপক্ষ এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে আরও উদ্যোগী হতে হবে। তিনি বলেন, ভেজাল ও নিম্নমানের পণ্য রোধকল্পে অবশ্যই সকল সংস্থার সমন্বয়ে নিয়মিতভাবে মোবাইল কোট পরিচালনা করতে হবে। এসময় তিনি জানান, বাংলাদেশে সয়াবিন তেলের চেয়ে পামওয়েল বেশি আমদানি করা হলেও বাজারে সয়াবিন তেলের আধিক্য পরিলক্ষিত হয়, এ অবস্থা নিরসনে দুটো পণ্য আমদানিতে বিদ্যমান শুল্ক কাঠামোর সংষ্কার আবশ্যক। পঁচনশীল পণ্য সংরক্ষণে পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা না থাকার এ ধরনের পণ্যের দাম অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পায়।

মতবিনিময় সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাধ তত্ত্ব বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. জিয়া রহমান, ডিসিসিআই ঊর্ধ্বতন সহ-সভাপতি কামরুল ইসলাম, এফসিএ, ডিসিসিআই সহ-সভাপতি রিয়াদ হোসেন, পরিচালক হোসেন এ সিকদার, ইমরান আহমেদ, মহাসচিব এএইচএম রেজাউল কবির প্রমুখ।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীএপ্রিল - ২৭
ফজর৪:০৮
যোহর১১:৫৭
আসর৪:৩২
মাগরিব৬:২৮
এশা৭:৪৫
সূর্যোদয় - ৫:২৮সূর্যাস্ত - ০৬:২৩
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৮৭৭.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.