নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বুধবার ১৬ মে ২০১৮, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৯ শাবান ১৪৩৯
বিএনপি'কে জবাব দিতে গণমাধ্যমে সরব থাকবে আ'লীগ
স্টাফ রিপোর্টার
সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের পাশাপাশি এখন থেকে গণমাধ্যমে সরব থাকবেন আওয়ামী লীগের একাধিক কেন্দ্রীয় নেতা। এসব নেতা ইস্যুভিত্তিক বিভিন্ন বিষয়ে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ বিএনপি'র বক্তব্যের জবাব দেবেন। পাশাপাশি সরকারের উন্নয়ন কর্মকা-ও তুলে ধরবেন তারা। এক্ষেত্রে যে নেতা যে বিষয়ে তথ্যসমৃদ্ধ তাকে সেই ইস্যুতে কথা বলতে দেয়া হবে। সমপ্রতি আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমন নির্দেশনা দিয়েছেন বলে দলটির একাধিক কেন্দ্রীয় নেতা নিশ্চিত করেছেন। এরই মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর এই নির্দেশনার বাস্তবায়নও চোখে পড়েছে। এর অংশ হিসেবে গত তিন দিনে দলের তিনজন নেতা গণমাধ্যমে কথা বলেছেন। পাশাপাশি দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরও গণমাধ্যমে তার সক্রিয়তা অব্যাহত রেখেছেন। জানা গেছে, আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা দলের সভাপতিম-লী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, সাংগঠনিক সম্পাদক ও প্রচার সম্পাদক পর্যায়ের নেতাদের বিভিন্ন ইস্যুতে, বিএনপি'র মিথ্যা অভিযোগ, সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যাচারের জবাব দিতে দলের ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করে কথা বলার নির্দেশ দিয়েছেন।

আওয়ামী লীগের সম্পাদকম-লীর একাধিক নেতা জানান, বিএনপি'র যগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করে সাংবাদিক সম্মেলন করলে আওয়ামী লীগের পক্ষে এর জবাব দেবেন প্রচার ও সাংগঠনিক সম্পাদকরা। বিএনপি'র মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম সাংবাদিক সম্মেলন করলে আওয়ামী লীগের পক্ষে পাল্টা কথা বলবেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পর্যায়ের নেতারা। বিএনপি'র স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ-নজরুল ইসলামরা মিথ্যাচার করলে তাদের জবাব দেবেন সভাপতিম-লীর সদস্যরা। আগামী নির্বাচন পর্যন্ত এই ধারাবাহিকতা বজায় রেখে প্রতিনিয়ত কথা বলতে দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা নেতাদের নির্দেশ দিয়েছেন। মাঠে-ঘাটে বিভিন্ন সভা-সমাবেশে কথা বললেও দলীয় সভাপতির কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করা এখন অনেকটা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। অন্যদিকে দলের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ওবায়দুল কাদের জাতীয় রাজনীতিসহ বিভিন্ন বিষয়ে কথা তো বলবেনই। সম্পাদকম-লীর অন্তত তিনজন নেতা জানান, দলীয় প্রধানের এই নির্দেশনা এরই মধ্যে নেতাদের অবহিত করেছেন ওবায়দুল কাদের। এরই অংশ হিসেবে গত তিন দিনে দলের সভাপতিম-লীর সদস্য ড. আবদুর রাজ্জাক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ ও প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ ধানমন্ডির কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করে বিএনপি'র বিভিন্ন বক্তব্যের জবাব দিয়েছেন। সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক থাকার সময় জরুরি ও গুরুত্বপূর্ণ কোনো ইস্যু ছাড়া তিনি গণমাধ্যমের মুখোমুখি হতেন না। সে সময় আনুষ্ঠানিকভাবে কাউকে দলের মুখপাত্র নিয়োগ দেয়া না হলেও মধ্যম পর্যায়ের বেশ কয়েকজন নেতা বিভিন্ন ইস্যুতে দলের পক্ষে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হতেন। তাদের কাউকে কাউকে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা নিজেই কথা বলার জন্য বলতেন। এতে তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক আশরাফেরও মৌন সম্মতি ছিল বলে জানা যায়। সবশেষ সম্মেলনে নতুন নেতৃত্ব আসার পরে এই দৃশ্যপট কিছুটা পাল্টে যায়। দলের নতুন সাধারণ সম্পাদক গণমাধ্যমবান্ধব হওয়ায় প্রথমদিকে অন্য নেতাদের কথা বলার প্রয়োজন পড়েনি। তবে সম্মেলনের কিছু দিন পর সাধারণ সম্পাদককে প্রধান মুখপাত্রের দায়িত্বের পাশাপাশি দলের ৪ নেতাকে মুখপাত্রের দায়িত্ব দেয়া হয়। তারা হলেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, দীপু মনি ও প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীঅক্টোবর - ১৮
ফজর৪:৪১
যোহর১১:৪৪
আসর৩:৫২
মাগরিব৫:৩৪
এশা৬:৪৫
সূর্যোদয় - ৫:৫৭সূর্যাস্ত - ০৫:২৯
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৮৫২.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.