নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বুধবার ১৬ মে ২০১৮, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৯ শাবান ১৪৩৯
নওগাঁর রাণীনগরে কলেজছাত্রীর ছবি দিয়ে পর্নোগ্রাফি টাকা না দিলে ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ার হুমকি
নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি
নওগাঁর রাণীনগরে কলেজ পড়ুয়া এক ছাত্রীর স্থির ছবি দিয়ে পণর্োগ্রাফী তৈরি করে ছাত্রীর বাবার কাছে টাকা দাবি করেছে এলাকার স্মৃতি স্টুডিও'র কর্মচারী গোবিন্দ। দাবিকৃত টাকা না দিলে মেয়ের নগ্ন ছবি ইন্টারনেট ও ফেসবুকে ছেড়ে দেয়ার হুমকিও দেন ঐ কর্মচারী। বিষয়টি কয়েক দিনের মধ্যে এলাকায় জানাজানি হলে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে ময়িয়া হয়ে উঠে এক শ্রেণীর চালবাজরা।

জানা গেছে, উপজেলার কালীগ্রাম সিলমাদার গ্রামের জনৈক ব্যক্তির মেয়ে আবাদপুকুর মহাবিদ্যালয়ের একাদশ শ্রেণীর ছাত্রী (১৮) তার মোবাইল ফোনে তুলা স্থির ছবি প্রিন্ট করার জন্য আবাদপুকুর বাজারে শ্রী বিপ্লবের স্মৃতি স্টুডিও'তে যায়। মোবাইল ফোন থেকে ছাত্রীর ছবি প্রিন্ট করার সময় ঐ স্টুডিও'তে কর্মরত কর্মচারী একই উপজেলার রায়পুর গ্রামের সুরেন্দ্রনাথের ছেলে শ্রী গোবিন্দ মন্ডল কলেজ ছাত্রীর অজান্তে তার ফোন নাম্বার, ফোনে থাকা আরো ছবি ও ইমু নাম্বার নেয়। পরে ঐ ছবি গুলো ফটোশপের মাধ্যমে পর্ণোগ্রাফী করে গত ৬ মে রোববার সন্ধ্যায় ছাত্রীর ইমু নাম্বারে সেন্ট করে গোবিন্দ। তারপর গোবিন্দ ছাত্রীর বাবাকে ফোন করে মেয়ের ইমু খুলে দেখতে বলে। কিছু সময় পর গোবিন্দ আবার ফোন করে বলে ঐ রকম আরো অনেক ছবি আছে। এমন কথা শুনে কলেজ ছাত্রীর বাবা মান-সম্মানের ভয়ে অসহায়ত্ব বোধ করলে চতুর গোবিন্দ তার কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা দাবি করে। টাকা না দিলে সব গুলো ছবি ইন্টারনেট ও ফেসবুকে ছেড়ে দেয়ার হুমকি দেয়। বিষয়টি কয়েক দিনের মধ্যে এলাকায় জানাজানি হলে চতুর গোবিন্দ তার মোবাইল ফোন বন্ধ রেখে গাঁ ঢাকা দিয়েছে বলে ছাত্রীর বাবা জানান। অপর দিকে গত সোমবার বিকেলে গোবিন্দর পক্ষ থেকে ঘটনাটি গোপনে মীমাংসার মাধ্যমে ধামাচাপা দিতে ময়িয়া হয়ে উঠছে এলাকার এক শ্রেণীর চালবাজ লোকজন। কলেজ ছাত্রীর বাবা জানান, আমার মেয়ের ছবি গোবিন্দ নগ্ন করে ২০ হাজার টাকা দাবি করেছে এবং টাকা না দিলে ইন্টারনেট ও ফেসবুকে ছেড়ে দিবে বলে হুমকি দেয়। ঘটনাটি নিয়ে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সাথে পরামর্শ করায় বিষয়টি জানাজানির এক পর্যায় গোবিন্দ গাঁ-ঢাকা দিয়ে কালীগ্রাম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলামের মাধ্যমে মীমাংসার প্রস্তাব দিয়েছে। কি করবো এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেইনি।

রাণীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ এএসএম সিদ্দিকুর রহমান জানান, ঘটনাটি লোক মারফৎ শুনেছি। এখন পর্যন্ত মেয়ের কোন অভিভাবক থানায় বিষয়টি জানায়নি। তবে ঘটনাটি গুরুত্ব সহকারে দেখছি।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীজুলাই - ১২
ফজর৩:৫২
যোহর১২:০৪
আসর৪:৪৪
মাগরিব৬:৫২
এশা৮:১৫
সূর্যোদয় - ৫:১৯সূর্যাস্ত - ০৬:৪৭
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
১০৭০৪.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.