নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বুধবার ১৬ মে ২০১৮, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৯ শাবান ১৪৩৯
নতুন ব্যবস্থাপনায় চলবে ফারমার্স ব্যাংক
অর্থনৈতিক রিপোর্টার
নতুন ব্যবস্থাপনায় অবশেষে কার্যক্রম চালাতে যাচ্ছে ফারমার্স ব্যাংক। ব্যাংকের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মাসুদ ও ভাইস চেয়ারম্যান মারুফ আলমসহ ৪ পরিচালক বাদে অন্য পরিচালকরা পদত্যাগ করেছেন। ব্যাংকটির আগামী বোর্ড সভায় রাষ্ট্রায়ত্ত ৪ ব্যাংকের ৪ জন এবং ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ'র (আইসিবি) একজন পরিচালক হিসেবে যোগ দেবেন। তাদের সঙ্গে আরও দু'জন স্বতন্ত্র পরিচালক নিয়োগ দেবে বাংলাদেশ ব্যাংক। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে এসব তথ্য।

এদিকে সরকারি ৪ ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের এমডিরা ফারমার্স ব্যাংকের শেয়ার কেনার জন্য ইচ্ছাপত্র (ইওআই) পর্ষদে জমা দিয়েছেন। এটি অনুমোদন হলে প্রতিষ্ঠানগুলো মূলধন জোগান দিয়ে পরিচালনা পর্ষদের সদস্য হিসেবে মনোনীত হবেন তারা। এ প্রসঙ্গে ফারমার্স ব্যাংকের উপদেষ্টা প্রদীপ কুমার দত্ত বলেন, গত মাসেই ব্যাংকটির পর্ষদ থেকে সব পরিচালক পদত্যাগ করেছেন। বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী তারা পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। ব্যাংকের পর্ষদও সেই পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছে। আগামী বোর্ড সভাতে রাষ্ট্রায়ত্ত ৫ প্রতিষ্ঠানের ৫ জন পরিচালক যুক্ত হবেন। জানা গেছে, ব্যাংকটির পুনর্গঠনের অংশ হিসেবে তারা পদত্যাগ করেছেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা বলছেন, জাতীয় নির্বাচনের বছর হওয়ায় সরকার ব্যাংকটি বন্ধ করার মতো কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে চাইছে না। এ কারণে ব্যাংকটি পুনর্গঠনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে ৪ রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক সোনালী, জনতা, অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংকের পাশাপাশি সরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠান ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি) এই ৫ প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ব্যাংকটি পুনর্গঠনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ব্যাংকটি পুনর্গঠনের অংশ হিসেবে সোনালী, জনতা, অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংক ১৬৫ কোটি টাকা করে মোট ৬৬০ কোটি টাকা এবং আইসিবি ৫৫ কোটি টাকাসহ সর্বমোট ৭১৫ কোটি টাকার মূলধনের জোগান দেবে। ফারমার্স ব্যাংকে অনুমোদিত মূলধন রয়েছে ১ হাজার ৫০০ কোটি টাকা। এর মধ্যে ৪০১ কোটি টাকা পরিশোধিত মূলধন রয়েছে। ফলে ব্যাংকটিতে মূলধনের প্রায় ৬৪ শতাংশ থাকবে সরকারি ৫ প্রতিষ্ঠানের দখলে। এই ৫ প্রতিষ্ঠানের এমডিরা পদাধিকার বলে ফারমার্স ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য হিসেবে থাকবেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ব্যাংকটিতে সরকারের শেয়ার থাকবে ৬৪ শতাংশ। আর বেসরকারি উদ্যোক্তাদের শেয়ার থাকবে ৩৬ শতাংশ। এর আগে বাংলাদেশ ব্যাংক গত ৮ মে এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে সোনালী, জনতা, অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংককে 'ব্যাংক কোম্পানি আইন, ১৯৯১' এর ১৪ক এবং ২৬ক ধারার বিধান পরিপালন থেকে অব্যাহতি দেয়। এর মধ্য দিয়েই ফারমার্স ব্যাংকের পর্ষদে রাষ্ট্রায়ত্ত ঐ ৫ প্রতিষ্ঠানের একজন করে প্রতিনিধি থাকার বিষয়টি পাকাপোক্ত হয়। উল্লেখ্য, গত বছরের ২৭ নভেম্বর বাংলাদেশ ব্যাংক ফারমার্স ব্যাংকের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয়। ঐদিন ব্যাংকটির তৎকালীন চেয়ারম্যান সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীরকে ও অডিট কমিটির চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক চিশতীকে পরিচালক পদ থেকে অপসারণ করা হয়। একই দিনে ব্যাংকটির নতুন চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান নিয়োগ দেয়া হয়। এরপর ব্যাংকের এমডি এ কে এম শামীমকে অপসারণ করে বাংলাদেশ ব্যাংক। মহীউদ্দীন খান আলমগীর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থাকার সময়ই ফারমার্স ব্যাংকের অনুমোদন দেয়া হয়। অনুমোদন পাওয়ার পর থেকেই ব্যাংকটি ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে প্রায় দেউলিয়া হয়ে যায়। আর্থিক সংকটের কারণে গ্রাহকরা তাদের আমানতও তুলতে পারছেন না মাসের পর মাস। শুধু তা-ই নয়, সরকারের জমা রাখা জলবায়ু তহবিলের টাকাও ফেরত দিতে অপারগতা প্রকাশ করেছে ব্যাংকটি।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীমে - ২৬
ফজর৩:৪৭
যোহর১১:৫৬
আসর৪:৩৫
মাগরিব৬:৪১
এশা৮:০৪
সূর্যোদয় - ৫:১৩সূর্যাস্ত - ০৬:৩৬
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৭৮৩.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.