নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৬ মে ২০১৯, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১০ রমজান ১৪৪০
বগুড়া ধুনটে যমুনা নদীর তীর সংরক্ষণ প্রকল্পের ৫৬ মিটার ধসে যাওয়ায় এলাকায় আতঙ্ক
বগুড়া প্রতিনিধি
নদীর পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে যমুনার কুল ভাঙন শুরু হয়েছে। গত দুই দিনে প্রবল স্রোতের টানে বগুড়া ধুনটের ভান্ডারবাড়ি কৈগাড়ি ও বরইতলী এলাকায় ৫৬ মিটার পাড় ধসে গেছে। এতে নদীর তীরবর্তী কৈয়াগাড়ী, বানিয়াযান, বরইতলী, ভান্ডারবাড়িসহ আশ পাশের কয়েকটি গ্রামের মানুষ মধ্যে আবারও নদ ইউনিয়নের নদী ভাঙন আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, নদীর পানি ধীরে ধীরে বৃদ্ধি পাওয়ায় স্রোতে টানে রোববার কৈয়াগাড়ি ও বরইতলী গ্রামের সামনে দুই পাড়ে ধস নেমে সোমবার দুপুর পর্যন্ত ৫৬ মিটার পাড় ধসে পড়েছে। বগুড়া পাউবোর উপ-সহকারী প্রকৌশলী আসাদুল বারী যমুনার পাড় ধসে যাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, ধস ঠেকানোর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, ২০১৫ /১৬ অর্থ বছরে প্রায় ৩১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে যমুনা নদীর সিরাজগঞ্জজেলার কাজিপুরের সীমানা থেকে ধুনটের ৬ কিলোমিটার এলাকায় যমুনার ডানতীর সংরক্ষন প্রকল্প (রিভেটমেন্টের ) কাজ করা কারনে নদী ভাঙন আতঙ্ক দুর হয়। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, গত কয়েক বছর থেকে উপজেলার ভান্ডাবাড়ি ইউনিয়নের যমুনা নদীর তীরবর্তী ভান্ডারবাড়ি , শহরাবাড়ি, শিমুলবাড়ি, বানিয়াযান , বরইতলী, কৈয়াগাড়ি, পুকুরিয়া, ভুতবাড়িসহ ৭/৮ গ্রামের মানুষ নদী ভাঙন থেকে অনেকটাই নিরাপদে ছিল।

গত কয়েকদিন ধরে যমুনার পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে পানির স্রোত ও ঘর্নাবর্তে কৈয়াগাড়ি ও বরই তলী এলাকায় ২০১১ সালে ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে এলাকায় তীর সংরক্ষন প্রকল্পের ৫৬ মিটার ধসে যাওয়ায় নদী পাড়ের মানুষের মধ্যে আরারও নতুন করে নদী ভাঙন আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। ভান্ডারবাড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আতিকুল করিম আপেল বলেন, নদী তীরে ভাঙ্গন শুরু হওয়ার পর বিষয়টি বগুড়া পানি উন্নয়ন বোডের কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে। তিনি জানান, যমুনার ডানতীর সংরক্ষন প্রকল্প রক্ষা করা না গেলে ৪/৫টি গ্রামসহ আবাদি জমিজমা ও মূল্যবান স্থাপনা যমুনার পেটে যাবে। বগুড়া পাউবোর দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা জানান, যমুনা নদীর ডানতীর সংরক্ষন প্রকল্পের ধুনটের অংশের কাজ সমাপ্তির ২/৩ বছরের মধ্যে কৈয়াগাড়ী এলাকায় সামনে যমুনার নদীর মূল অংশে হঠাৎ চর জেগে ওঠায় পানির গতি পথ পরিবর্তন হয়ে খরস্রোত সরাসরি তীর সংরক্ষন প্রকল্পে আঘাত করার কারণে ঝুঁকিপূর্ন হওয়ায় ধসে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীজুলাই - ১৬
ফজর৩:৫৫
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪৪
মাগরিব৬:৫১
এশা৮:১৪
সূর্যোদয় - ৫:২০সূর্যাস্ত - ০৬:৪৬
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩১৩২.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.