নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বুধবার ১২ জুন ২০১৯, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ৮ শাওয়াল ১৪৪০
বাড়ছে সঞ্চয়পত্র কেনার প্রবণতা
স্টাফ রিপোর্টার
ঝুঁকিহীন বিনিয়োগ ও কর সুবিধা বিবেচনায় বাজেটের আগ দিয়ে বেড়েছে সঞ্চয়পত্র কেনার প্রবণতা। সঞ্চয়পত্রের সুদের হার না কমানোর দাবি তাদের। অর্থনীতিবিদরা বলছেন, আসছে বাজেটে সঞ্চয়পত্র বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা আর সুদহার যাই নির্ধারণ করা হোক, তা সুবিধাভোগীর কাছে পৌঁছে দিতে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করা জরুরি। এদিকে, সঞ্চয়পত্র কেনার ক্ষেত্রে অনলাইন পদ্ধতি চালু ও টিন নম্বর দেয়ার বাধ্যবাধকতার নতুন নিয়ম নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া রয়েছে গ্রাহকদের। ব্যাংকে প্রায়ই লম্বা সারি পড়ে সঞ্চয়পত্রের মুনাফাভোগী গ্রাহকদের।

মুনাফা উত্তোলনের পাশাপাশি কেউ কেউ আসেন নতুন সঞ্চয়পত্র কিনতে। এক্ষেত্রে ট্যাঙ্ আইডেন্টিফিকেশন নম্বর-টিন দেয়ার বাধ্যবাধকতা নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন অনেকেই।

সামাজিক নিরাপত্তার আওতায় এই সুবিধাভোগী সকলেই চান, বাজেটে যেন না কমে সঞ্চয়পত্রের সুদের হার।

জাতীয় সঞ্চয় অধিদপ্তরের তথ্য মতে, চলতি অর্থবছরে সঞ্চয়পত্র বিক্রি থেকে যে পরিমাণ অর্থ সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ছিল, তার চেয়ে ৩৬ শতাংশ বেশি বিক্রি হয়েছে প্রথম আট মাসেই। ব্যাংক কর্মকর্তারা জানালেন, গেল মে মাস থেকে বেড়েছে সঞ্চয়পত্র বিক্রির পরিমাণ।

সোনালী ব্যাংক লি. এর সিএফও সুভাষ চন্দ্র দাস বলেন, সঞ্চয়পত্রে সুদহার বাড়লে দাম বাড়ার আশঙ্কায় মানুষ মে এবং জুনে সঞ্চয়পত্র বেশি পরিমাণে কেনে।

অর্থনীতিবিদরা বলছেন, বাজেটে অভ্যন্তরীণভাবে অর্থ সংগ্রহে সঞ্চয়পত্র একটি বড় উৎস হলেও এক্ষেত্রে এখনও অনেক বড় চ্যালেঞ্জ স্বচ্ছতা নিশ্চিত করা।

অর্থনীতিবিদ খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম বলেন, বড় বাজেট বাস্তবায়নের জন্য সরকারের অর্থ প্রয়োজন। তবে খেয়াল রাখতে হয় যেন তা কম ব্যয়বহুল হয়। সেক্ষেত্রে সঞ্চয়পত্রের মত ব্যয়বহুল উৎস সরকার যতটা কম ব্যবহার করতে পারে ততটাই ভালো।

দেশে বর্তমানে ব্যাংকিং খাতে চার ধরনের ও ডাকঘরে এক ধরনের সঞ্চয়পত্র চালু বিক্রি করার হয়। আর সঞ্চয়পত্রের সুদের হার ১১ শতাংশের বেশি।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীঅক্টোবর - ১৪
ফজর৪:৩৯
যোহর১১:৪৫
আসর৩:৫৫
মাগরিব৫:৩৭
এশা৬:৪৮
সূর্যোদয় - ৫:৫৫সূর্যাস্ত - ০৫:৩২
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৬৮৬৯.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.