নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বুধবার ১৩ জুন ২০১৮, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৭ রমজান ১৪৩৯
জনতার মত
বিশ্বকাপের জার্সিতে বাংলাদেশ
দিলীপ কুমার আগরওয়ালা
রাশিয়ায় অনুষ্ঠেয় বিশ্বকাপ ফুটবলের একবিংশতম আসরে সরাসরি অংশগ্রহণ করতে না পারলেও সেখানে নানাভাবে উপস্থিত থাকতে পারছে বাংলাদেশ। এর মধ্যে অন্যতম উপস্থিতি চোখে পড়বে 'মেড ইন বাংলাদেশ' শীর্ষক জার্সির মাধ্যমে। এর বাইরেও দেশের অন্যতম বৃহৎ রফতানিমুখী পোশাক শিল্প খাতে বিশ্বকাপ ফুটবলের আরও নানা অনুষঙ্গ যেমন জ্যাকেট, টুপি, মোজা, গ্লাভস ও অন্যান্য। নিঃসন্দেহে এটি দেশের জন্য গৌরবের, পাশাপাশি বৈদেশিক মুদ্রা উপার্জনের অন্যতম হাতিয়ারও বটে।

বাংলাদেশ থাকছে এবারের ফিফা বিশ্বকাপে। মাঠের লড়াইয়ে লাল-সবুজদের থাকার কথা এখনও কল্পনাতীত। তবে বাংলাদেশের নামটি এবার থাকছে ফুটবলের মহাযজ্ঞে। কারণ, ব্রাজিলের বিশ্বকাপ জার্সি তৈরি করে সরবরাহ করছে বাংলাদেশের পোশাক কারখানা। আর পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের হলুদ জার্সির নিচে লেখা থাকবে 'মেড ইন বাংলাদেশ'। জার্সির মাধ্যমে লুইজ ফেলিপ্পে স্কলারির দল এবার জানবে বাংলাদেশের নাম। ব্রাজিল বিশ্বকাপে স্বাগতিক ব্রাজিলসহ প্রায় সকল দেশের জার্সি প্রস্তুতের দায়িত্ব পেয়েছে বাংলাদেশের প্রায় শতাধিক পোশাক কারখানা। তবে ব্রাজিল ছাড়া বাংলাদেশে তৈরী পোশাক অন্য কোন দেশ পড়ে মাঠে নামবে কি না সেটা পরিষ্কার করে এখনই বলা যাচ্ছে না। তবে ডেনমার্ক ও ফ্রান্সও বাংলাদেশের তৈরি জার্সি পরে খেলতে পারে বলে জানা হয়েছে।

গত বছর বাংলাদেশের রানা প্লাজা এবং তাজরীন গার্মেন্টস ট্র্যাজেডিতে সহস্রাধিক পোশাক কর্মীর মৃত্যুর খবর জানানো হয়েছিলো ব্রাজিল ফুটবল ফেডারেশন (সিবিএফ)কে। এসব বিবেচনা করে তারা বাংলাদেশের পোশাক শ্রমিকদের প্রতি সম্মান জানিয়ে জার্সির নিচে 'মেড ইন বাংলাদেশ' লেখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ফলে এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশ না থাকলেও আমাদের দেশের নামটি বিশ্বসেরা ফুটবল দলের সঙ্গে যুক্ত থাকছে। ব্রাজিল বাংলাদেশের তৈরি জার্সি পরে খেললে এটা একটা অসামান্য অর্জন হিসেবেই বিবেচিত হবে।

প্রতি বছর বিশ্বের সেরা স্পোর্টস ব্রান্ড এডিড্যাস, নাইকি, পুমা বাংলাদেশের প্রায় শতাধিক গার্মেন্ট থেকে জার্সি শটস নিয়ে থাকে। ব্রাজিল বিশ্বকাপ উপলক্ষে চলতি বছরও নিয়েছে। বাংলাদেশে তৈরি নাইকির জার্সি পরে ব্রাজিল মাঠে নামলে অবাক হওয়ার কিছুই থাকবে না। মাঠজুড়ে দর্শক-সমর্থকদেরও অনেকেরই গায়ে থাকবে বাংলাদেশে তৈরি জার্সি ও টি-শার্ট। শুধু মাঠ নয়, এই মহাযজ্ঞের সময়ে বিশ্বজুড়ে ফুটবলপ্রেমীরা মেতে উঠবেন নানান ফ্যাশনে, যার বড় অনুষঙ্গ পোশাক।

বিভিন্ন দেশের খেলোয়াড় এবং দর্শক-সমর্থকদের জন্য অন্তত ১৫ আইটেমের ১ কোটি পিসের বেশি পোশাক সরবরাহ করছে বাংলাদেশ। এসব পোশাকের বেশিরভাগই নিট বা গেঞ্জি জাতীয়। বিশ্বকাপ উপলক্ষে গত তিনি মাসে নিটপণ্যের রফতানি আদেশ বেড়েছে আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় প্রায় ৩৫ শতাংশ। তবে প্রদীপের নিচে অন্ধকারের মতো এর একটি নেতিবাচক দিকও রয়েছে। ইংল্যান্ডের প্রভাবশালী জনপ্রিয় সংবাদপত্র ডেইলি টেলিগ্রাফের বরাতে জানা যায়, বিশ্বখ্যাত খেলাধুলার সরঞ্জামাদি প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান 'নাইকি' ইংল্যান্ড জাতীয় দলের জার্সি স্পন্সর করেছে। তারা নামমাত্র মজুরিতে সেই জার্সি বানিয়ে নিচ্ছে ঢাকার সাভারের পোশাক কারখানা থেকে। বাংলাদেশী পোশাক শ্রমিকদের পারিশ্রমিক প্রতি ঘণ্টার জন্য মাত্র ২১ পেন্স। সেই হিসেবে পুরো মাসের পারিশ্রমিক মাত্র ৪৭ ইউরো। অথচ প্রতিটি জার্সি বিক্রি করা হয় ১৬০ ইউরোতে। রাশিয়া বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী কয়েকটি দেশের অফিশিয়াল জার্সি এবার তৈরি হয়েছে বাংলাদেশের পোশাক কারখানায়। যার মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় ইংল্যান্ডের জার্সি। থ্রি লায়ন্সদের সাদা রঙের জার্সিতে রয়েছে বঙ্গযোগ।

মার্কিন মিডিয়ায় প্রকাশিত খবর অনুয়ায়ী নাইকির এই জার্সি তৈরি হয়েছে বাংলাদেশের ইপিজেড এলাকার বস্ত্র কারখানায়? সেখানকার শ্রমিকদের বেশীরভাগই মহিলা। ঘন্টায় ২১ পয়সার বিনিময়ে হ্যারিকেন-মার্কাস র‌্যাশফোর্ডদের বিশ্বকাপের পোশাক তৈরি করেছেন তারা।

একটি রিপোর্টে উঠে এসেছে, দৈনিক ১৫০টাকার বিনিময়ে ইংল্যান্ড দলের জার্সি প্রস্তুত করেছেন তাঁরা। শ্রমিকরা প্রতি সপ্তাহে প্রায় ৬০ ঘন্টা ধরে জার্সি প্রস্তুতির কাজ চালিয়ে গিয়েছেন। রিপোর্টে এও উঠে এসেছে ইংল্যান্ডের বাজারে সেই পোশাকই ১৪ হাজারের কিছু বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। ফুটবলারদের পোশাক ছাড়াও সমর্থকদের চাহিদার কথা মাথায় রেখেও তৈরি হয়েছে পোশাক।

আন্তর্জাতিক বাজারে সেই সব পোশাক চড়া দামে বিক্রি হলেও শ্রমিকরা পাচ্ছেন ঘন্টা পিছু মাত্র ২১ পয়সা। কেন এত কম টাকা দেয়া হয় তাঁদের, সেই নিয়ে ইতিমধ্যেই বিশ্ব জুড়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

তারপরেও খুশির বিষয় বাংলাদেশের পোশাক শ্রমিকরা বিশ্বকাপ ফুটবলসহ ঠাঁই করে নিয়েছে বিশ্ব দরবারে। এতে দেশের ভাবমূর্তিও উজ্জ্বল হচ্ছে দিন দিন। অন্য কয়েকটি দেশের পাশাপাশি বিশ্বের বৃহৎ দেশ রাশিয়ায়ও এসব জার্সিসহ অন্যবিধ উপকরণ সর্বোপরি পোশাক রফতানির সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়ে উঠছে বিশ্বকাপ উপলক্ষে।

দিলীপ কুমার আগরওয়ালা : লেখক
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীজুন - ২৫
ফজর৩:৪৫
যোহর১২:০১
আসর৪:৪১
মাগরিব৬:৫২
এশা৮:১৭
সূর্যোদয় - ৫:১২সূর্যাস্ত - ০৬:৪৭
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৫১৮.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.