নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৪ জুন ২০১৮, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৮ রমজান ১৪৩৯
সুন্দরগঞ্জে শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা
সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) থেকে আ. মতিন সরকার
সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা। দোকানিরা ক্রেতাদের আকর্ষণ বাড়ানোর জন্য সব ধরনের বাহারি পোশাক দোকানে সাজিয়ে রেখেছে।

বিশেষ করে শহরের মার্কেটগুলোতে এখন ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে। দাম একটু বেশি হলেও পছন্দমতো কাপড় কিনতে পেয়ে ক্রেতারা অনেক খুশি এবং বিক্রেতারাও আশানুরূপ বিক্রি করতে পেরে আনন্দ প্রকাশ করছে।

বিভিন্ন মার্কেট, শপিংমল আর বিপণি বিতানগুলোয় ভিড় করছেন নিজের ও প্রিয়জনদের পোশাক কিনতে। ক্রেতাদের পদচারণায় জমে উঠেছে ঈদের বাজার। নিম্ন আয়ের মানুষজন ছুটছেন ফুটপাত থেকে শুরু করে সাধারণ বিপণি কেন্দ্রগুলোতে। আর উচ্চবিত্তরা ছুটছেন শহরের বিভিন্ন অভিজাত ফ্যাশন হাউজ ও উন্নত মার্কেটগুলোতে।

এদিকে ঈদের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই মার্কেটগুলোতে চোখে পড়ার মতো ভিড় বাড়ছে। ঘুরে ফিরে দেখা গেছে এমনই চিত্র। শহরের সব মার্কেট এর দোকানগুলো ঈদ কালেকশন নিয়ে পসরা সাজিয়ে আছে। এছাড়া বিভিন্ন মডেলের ইন্ডিয়ান, সালোয়ার কামিজ ও দেশি-বিদেশি বিভিন্ন ব্রান্ডের তরুণীদের পোশাক চোখে পড়ছে। তবে ইন্ডিয়ান পোশাকের চেয়ে দেশি এসব পোশাকে ক্রেতাদের চাহিদা বেশি- বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা। তারা আরো বলেন, ১৫ রোজার পর থেকে ঈদের কেনাকাটা শুরু হলেও ভিড় বাড়ছে ২০ রোজার পরে।

এদিকে ঈদের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই মার্কেটগুলোর দোকানে ক্রেতাদের বাড়ছে প্রচ- সমাগম। সব শ্রেণীর মানুষের সাধ্য অনুযায়ী কেনাকাটা করছে। ক্রেতাদের নানানভাবে আকষ্ট করতে বিভিন্ন প্রকার ঈদ পসরা সাজিয়ে বসেছে বিপণি বিতানগুলো ঘুরে দেখা যায়। ১৭ রমজানের পর থেকে শহরের মার্কেটগুলোতে সকাল ৯টা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত বিভিন্ন এলাকা থেকে সব বয়সী নারী-পুরুষ ও শিশু ক্রেতাদের উপচেপরা ভিড় দেখা যাচ্ছে। তবে মধ্যম ও উচ্চ বিত্তের কেনাকাটায় শহরে উৎসব বিরাজ করছে। ক্রেতারা বিপণি-বিতানগুলোতে নতুন-নতুন ডিজাইনের পোশাক খুঁজে বেড়ান। দোকানিরা ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে উঠিয়েছেন বিভিন্ন ব্রান্ডের লেভেলের পোশাক।

শিশুদের জন্য রয়েছে বাহারি রঙের পোশাক। এবাররের ঈদে এসেছে মহিলাদের জামদানিসহ বিভিন্ন নামের ব্রান্ড শাড়ি। দাম একটু বেশি হলেও ক্রেতাদের পছন্দ সেদিকেই।

তাছাড়া রয়েছে ইন্ডিয়ান শাড়ি।

ছেলেদের পছন্দের তালিকায় বেশি বিক্রি হচ্ছে দেশীয়ও বিভিন্ন ব্রান্ডের ডিজাইন শার্ট এবং বাহারি ডিজাইনের জিন্স প্যান্ট ও রঙিন নশকা পাঞ্জাবি। ঈদে শপিং করতে আসা ক্রেতাদের সাথে আলাপ করে জানা যায়, এবারের ঈদে নতুন নতুন ডিজাইনে পোশাক এসেছে মার্কেটগুলোতে। তবে দাম গত বছরের তুলনায় কিছুটা বেশি। এদিকে দর্জিরা এখন অনেক ব্যস্ত। কাজের চাপে অনেক দর্জি অর্ডার নেয়া বন্ধ করে দিয়েছেন।

তবে রেডিমেট কাপড়ের দোকানগুলোতেই গভীর রাত পর্যন্ত বিক্রি চলছে। শহরের বাইরে হলেও পাঁচপীর বাজারে এক দরের দোকান নূর ফ্যাশান হাউজেও উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে, শিক্ষক নূরুল আলমের সাথে কথা হলে তিনি বলেন আমরা শরের সাথে তাল মিলিয়ে গ্রামাঞ্চলে এই ফ্যাশান হাউজ প্রতিষ্ঠা করেছি যাতে ভালো মানের ও আধুনিক পোশাক কিনতে ক্রেতাদের কষ্ট করে শহরে যেতে না হয়।

ঈদের রাত পর্যন্ত বিক্রি চলবে বলে বিক্রেতারা আশা করছেন। এ বছর সুন্দরগঞ্জে ভিন্ন মাত্রার বিপণি বিতান মণীপুরি ফ্যাশান হাউজে নারী ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীঅক্টোবর - ১৫
ফজর৪:৪০
যোহর১১:৪৫
আসর৩:৫৫
মাগরিব৫:৩৬
এশা৬:৪৮
সূর্যোদয় - ৫:৫৬সূর্যাস্ত - ০৫:৩১
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৭৩০০.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.