নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, সোমবার ১৮ জুন ২০১৭, ৪ আষাঢ় ১৪২৪, ২২ রমজান ১৪৩৮
কলারোয়ায় বেসরকারি শিক্ষকদের সিকি বোনাসেই ঈদ
কলারোয়া (সাতক্ষীরা) এম এ কাশেম
মনে হয় যে সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার শিক্ষকদের প্রতিবাদ, ফরিয়াদ কিংবা আর্তনাদ- কোনটাই শুনবার যেন কেউ নেই। থাকলে এত স্মারকলিপি, মানববন্ধন, সভা, সমাবেশ, কিছুতেই আজও কারও কর্ণপাত নেই কেন ? একজন শিক্ষকের কথা লক্ষ মানুষে শুনে থাকে । লক্ষ শিক্ষকের কথা এক-দু'জন মানুষে শুনে না! কলির যুগ বলে কী তাই? দেশে দেশে কালে কালে এক শিক্ষকের কথা হাজার লোকে শুনেছে। আজও শুনছে। হায়রে শিক্ষকের বচন !

পৃথিবীর আর কোনো দেশে শিক্ষকরা এত নিগৃহীত কি-না জানা নেই। আশ্চর্য একমাত্র আমাদের শিক্ষকদের যত দুর্দশা ও দুর্ভোগ। এখানে অনেক শিক্ষক বিনা বেতনে শিক্ষকতা করেন। বিশেষ করে এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা মাত্র ১০০০ টাকা বাড়ি ভাড়া, ৫০০ টাকা চিকিৎসা ভাতা এবং বেতনের ২৫% মাত্র ঈদে বোনাস পেয়ে থাকেন। তারা ইনক্রিমেন্ট ও বৈশাখী ভাতার জন্য শত আন্দোলন করেন। কিন্তু, নিষ্ঠুরদের পাষাণ হৃদয় এতটুকু বিগলিত হয় না । গত কয়েকটা মাস তারা নানাভাবে আবেদন-নিবেদন করেছেন। নিজেদের মাঝে একতার অভাব বলে তারা খ-িত আন্দোলন করেছেন। তবু তাদের মাঝে এতটুকু ঐক্যের আলামত নেই। সারা জীবন তারা পড়ান, 'একতাই বল'। পুরো জীবনে নিজেরা একটি বারের জন্য এক হতে পারেন না। হায়রে শিক্ষক! হায় শিক্ষাগুরু? এ লজ্জা ঢেকে রাখবার জায়গা কোথায়? পবিত্র রমজান শেষ হবার পথে। মুসলিম জাহানে এ মাসের পৃথক তাৎপর্য বহন করে। এ মাসে সিয়াম সাধনার মাধ্যমে মুসলিম জাহান পরম করুণাময়ের সন্তুষ্টি অর্জনের সর্বাত্নক চেষ্ঠা করে থাকে । রাব্বুল আলামীন এ মাসে বান্দার জন্য অনুগ্রহ করে রহমত, বরকত ও মাগফেরাত দিয়ে থাকেন। রমজানের প্রথম দশ দিন রহমতের, দ্বিতীয় দশদিন মাগফেরাতের আর শেষের দশ দিন নাজাতের।

কত দয়াময় আমাদের সৃষ্টিকর্তা রাহমানুর রাহীম ! রমজানের শেষে ঈদুল ফেতরের শুভাগমন। মুসলমানদের সর্বশ্রেষ্ঠ ধর্মীয় উৎসব। সবচেয়ে আনন্দের দিন । কিন্তু, দিনটি নিরানন্দে কাটে এখানে বেসরকারি শিক্ষকদের। আনন্দের জায়গায় থাকে দীর্ঘশ্বাস। পরিজনের মুখে হাসি ফুটাতে না পারার কষ্ট। আবার কারও কারও কোন বোনাসই নেই। আর কারও কারও সিকি বোনাস। প্রসঙ্গত: বোনাসের তো কোন পার্সেন্টেজ হয় না। শিক্ষকদের হেয় করে রাখার মানসিকতা পরিহার করা উচিত। 'দিচ্ছি-দেব' করে করে না দিয়ে মনের মাঝে কষ্টের কাঁটা গেঁথে দিয়ে কী আনন্দ মেলে ? যার যা পাওনা তার তা মিটিয়ে দেয়া উচিত। বেসরকারি শিক্ষকদের মর্যাদা দেয়া উচিত বলে কলারোয়া বেসরকারি শিক্ষকরা মন্তব্য করেন।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীজানুয়ারী - ১৯
ফজর৫:২৩
যোহর১২:১০
আসর৪:০০
মাগরিব৫:৩৯
এশা৬:৫৫
সূর্যোদয় - ৬:৪২সূর্যাস্ত - ০৫:৩৪
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৫৭৯২.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.