নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, সোমবার ১৮ জুন ২০১৭, ৪ আষাঢ় ১৪২৪, ২২ রমজান ১৪৩৮
ভয় আর আতঙ্কের মৌসুম পাহাড়ে
এবার মৌলভীবাজারে পাহাড় ধস : মা-মেয়ে নিহত : ধস আতঙ্কে দিন কাটছে পাহাড়িদের
জনতা রিপোর্ট
বন্দরনগরী চট্টগ্রামসহ ৫ জেলায় পাহাড় ধসে ব্যাপক প্রাণহানির শোক না কাটতেই খাগড়াছড়িতে ফের পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটেছে। জেলার রামগড় ও লক্ষ্মীছড়ি উপজেলার এ ঘটনায় ২ সহোদর ভাইসহ ৩ শিশু নিহত হয়েছে। অপরদিকে মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলায়ও পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটেছে। এতে মা-মেয়ে নিহত হয়েছে। গতকাল রোববার এসব প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। এ পরিস্থিতিতে আতঙ্কে দিন কাটছে পাহাড়ি অঞ্চলের মানুষের। একটু বৃষ্টি হলেই আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়েন তারা। এদিকে রাঙামাটিতে গতকাল রোববার মুষলধারে বৃষ্টি শুরু হওয়ায় ফের প্রাণহানির আশঙ্কায় লোকজনকে নিরাপদ স্থানে সরে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস।

গত সোমবার থেকে টানা বর্ষণ ও পাহাড় ধসে সৃষ্ট বিপর্যয়ে রাঙামাটি, বান্দরবান, খাগড়াছড়ি, চট্টগ্রাম ও কঙ্বাজারে ১৫৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। পহাড় ধসের মাটি সারিয়ে সড়ক যোগাযোগ সচল করতে গিয়ে নিহত হয়েছেন সেনাবাহিনীর ২ কর্মকর্তা ও ২ সৈনিক।

এসব এলাকায় আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্ধার কাজ সমাপ্ত ঘোষণা করার পরও রাঙামাটিতে ২ জনের মরদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিস। এরই মধ্যে খাগড়াছড়িতে গতকাল রোববার পাহাড় ধসে ৩ শিশু নিহত হয়েছে। এত বিপুল সংখ্যক মানুষের প্রাণহানির পরও মৌলভীবাজারের বড়লেখায় নতুন করে পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটেছে। সেখানে মা-মেয়ে নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন- আছিয়া বেগম (৪০) ও তার মেয়ে ফাহমিদা (১৩)। ওসি জানান, প্রবল বর্ষণের কারণে গত শনিবার রাত ৩টা থেকে ভোর ৪টার মধ্যে ডিমাই এলাকার বেশ কয়েকটি পাহাড় ধসে পড়ে। মাটিচাপা পড়ে আছিয়া বেগমের ঘর। এতে তিনি ও তার মেয়ে চাপা পড়েন।

পরে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে সকাল ৯টার দিকে মাটি সরিয়ে লাশ উদ্ধার করে। ডিমাই এলাকায় আরও কয়েকটি পাহাড় ধসে কয়েকটি ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। তবে সেখানে হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

এদিকে ঐ জেলার কুলাউড়া উপজেলায় পাহাড় কেটে রাস্তা বানানোর পর সেলফি তুলে ফেসবুকে দিয়েছেন ১ আওয়ামী লীগ নেতা। এতে হতবাক এলাকাবাসী। অবৈধভাবে পাহাড় কাটার ফলেই বিভিন্ন সময়ে পাহাড় ধসে বিপুল সংখ্যক মানুষের প্রাণহানি হচ্ছে- এমন অভিযোগ দীর্ঘদিনের। এরপরও বন্ধ হচ্ছে না পাহাড় কাটা। একদিকে ভারী বর্ষণ তথা প্রাকৃতিক দুর্যোগ অন্যদিকে মানুষের দ্বারা প্রকৃতি ধ্বংস- এই দুয়ের কারণেই বিগত দিনে পাহাড় ধসে জান-মালের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। গত ১০ বছরে চট্টগ্রাম, রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবানে পাহাড় ধসে মৃত্যু হয়েছে অন্তত ৪৫০ জনের।

এতদিন বিচ্ছিন্নভাবে পাহাড় ধস ঘটলেও সাম্প্রতিককালে তা নিরবচ্ছিন্ন বিপর্যয়ে পরিণত হয়েছে। প্রতিবছরই বর্ষা মৌসুমে এ হতাহতের ঘটনা ঘটছে। রাঙামাটিতে এবারের পাহাড় ধসের ঘটনাকে 'মহাবিপর্যকর' বলছেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নান।

খাগড়াছড়ির পুলিশ সুপার আলী আহমদ খান জানান, গতকাল রোববার ভোরে রামপড় উপজেলার নাকাপা বুদুমছড়া এলাকায় পাহাড় ধসে ২ জন নিহত হয়েছে।

নিহতরা হলো- নাকাপা বুদুমছড়া এলাকার গোলাম মোস্তাফার ২ ছেলে নূরনবী (১৪) ও নূর হোসেন (১০)। রামগড় থানার ওসি শরিফুল ইসলাম জানান, পাহাড় ধসে ঘরচাপা পড়ে ঐ ২ ভাইয়ের মৃত্যু হয়।

অপরদিকে লক্ষ্মীছড়ি উপজেলার জতিন্দ্র কারবারি পাড়ায় সকাল ৭টার দিকে পাহাড় ধসে লিটন চাকমাসহ (৭) আরও ১ শিশু নিহত হয় বলে জানিয়েছেন থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার (ওসি) আরিফ।

মৌলভীবাজরের বড়লেখা থানার ওসি শহীদুল ইসলাম জানান, প্রবল বর্ষণের কারণে গত শনিবার রাত ৩টা থেকে ভোর ৪টার মধ্যে ডিমাই এলাকার বেশ কয়েকটি পাহাড় ধসে পড়ে। মাটিচাপা পড়ে আছিয়া বেগমের ঘর। এতে তিনি ও তার মেয়ে চাপা পড়েন।

নিম্নচাপের প্রভাবে টানা বৃষ্টির ফলে গত ১২ জুন রাত থেকে ১৪ জুন সকাল পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে পাহাড়ি ঢল ও ভূমিধসে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়।
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীজুন - ২৪
ফজর৩:৪৪
যোহর১২:০১
আসর৪:৪১
মাগরিব৬:৫২
এশা৮:১৭
সূর্যোদয় - ৫:১২সূর্যাস্ত - ০৬:৪৭
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২০১৯.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.