নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, রোববার ১৩ আগস্ট ২০১৭, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৪, ১৯ জিলকদ ১৪৩৮
দৌলতদিয়া ফেরি ঘাটে যানজটের ফাঁদে মরছে মুরগির বাচ্চা
গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) থেকে আবু কালাম আজাদ
দৌলতদিয়া ফেরি ঘাটের দীর্ঘ সময় আটকা পড়ায় মারা যাচ্ছে হাজার হাজার মুরগির বাচ্ছা। এতে চরম ক্ষতির মুখে পরছে পোলট্রি হ্যাচারিজ শিল্প। এই ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতে থাকলে খুব তাড়াতাড়িই হ্যাচারি সর্বসান্ত হয়ে যাবে বলে দাবি করেছেন মালিকরা।

জানা যায়, ৩ দশকে ধীরে ধীরে গোয়ালন্দ উপজেলা দেশের মধ্যে পোলট্রি জোন হিসাবে সুপ্রতিষ্টিত হয়েছে। ৩ দশকে শুধু এই এলাকাতেই অন্তত অর্ধশত পোলট্রি হ্যাচারি গড়ে উঠেছে। এ ছাড়া রাজবাড়ী ও ফরিদপুরেও প্রতিষ্ঠিত হয়েছে বহু পোলট্রি হ্যাচারি। এ সব হ্যাচারিতে উৎপাদিত হচ্ছে বিভিন্ন জাতের লাখ লাখ মুরগির বাচ্চা। সারাদেশের পোলট্রি খামারিদের বাচ্চার চাহিদা বড় একটি অংশ পুরণ হচ্ছে ত্রই এলাকার হ্যাচারি থেকে। তবে এ সব হ্যাচারির বাচ্চা পরিবহণের জন্য ব্যবহার করা হয়। যান বাহনগুলোর বেশির ভাগই দৌলতদিয় পাটুরিয়া নৌরুট দিয়ে ফেরিতে নদী পরাপার হয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে বাচ্চা সরবরাহ করে থাকে। এতেই হচ্ছে বিপত্তি। কিছুদিন ধরে নদীতে তীব্র স্রোত ও ফেরি সঙ্কটের কারণে দৌলতদিয়া জাতীয় মহাসড়কের ওপর থাকতে ২-৩ কিলোমিটার দীর্ঘ যানবাহনের সারি। প্রইভেট কার ও মাইক্রোবাসগুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পারাপার করা হলেও যাত্রীবাহী বাসের পেছনে অন্যান্য পচনশিল পণ্যের সঙ্গে পারাপার করা হয়ে থাকে একদিন বয়সের মুরগির বাচ্চাবাহী গাড়ি। এতে দীর্ঘ সময় যানযটে আটকা থাকতে হয় বাচ্চাবাহী যানবাহনগুলোকে। প্রচ- গরম সহ্য করতে না পেরে প্রতিনিয়ত মারা পড়ছে অসংখ্যা বাচ্চা। গতকাল বুধবার ২টায় দৌলতদিয়া ঘাটে সিরিয়ালে আটকে থাকা মুরগির বাচ্চাবাহী গাড়ির চালক মো. শাহীন জানান, গত মঙ্গলবার ফেরিঘাটের সিরিয়াল দীর্ঘ সময় আটকে থেকে তার পিকাপে ২হাজারেরও বেশি বাচ্চা মারা যায়। যার মূল্য ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা । ঘাটের টা্রফিকরা কোনো কিছুই বুঝতে চায় না। কিছু বললেই মামলা দিয়ে দেয়।

ফরিদপুরে আমিন এগ্রো ফার্মেসির মালিক নূরুল আমিন জানান, গত ১ মাসে দৌলতদিয়া ঘাটের যানবাহনের সারিতে তার কোম্পানির বাচ্চাবাহী গাড়ি আটকা পড়ে যে পরিমাণ বাচ্চা মারা পড়েছে তাতে তার অন্তত ৮ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। বিআইডবিস্নউটিসির দৌলতদিয়া অফিসের ব্যবস্থাপক মো. সফিকুল ইসলাম জানান, বাচ্চাবাহী যানবাহনের চালক কে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ফেরির টিকিট দেয়া হয়। তবে সড়কের সিরিয়াল পরিচালনা করে পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ। দৌলতদিয়া ঘাটের ট্রাফিক মৃদুল কুমার জানান, নিয়ম অনুযায়ী অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পর্যায়ক্রমে প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস, যাত্রীবাহী পরিবহণ এর পর পচনশীল পণ্যবাহী ট্রাক ও পোলট্রি হ্যাচারির বাচ্চাবাহী গাড়ি পারাপারের ব্যবস্থা করা হয় ।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ১৬
ফজর৫:১২
যোহর১১:৫৪
আসর৩:৩৯
মাগরিব৫:১৭
এশা৬:৩৫
সূর্যোদয় - ৬:৩৩সূর্যাস্ত - ০৫:১২
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩১০২.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.