নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, রোববার ১৩ আগস্ট ২০১৭, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৪, ১৯ জিলকদ ১৪৩৮
জেদ্দায় ২ বছর বেতন পায় না আড়াইশ বাংলাদেশি শ্রমিক
স্টাফ রিপোর্টার
সৌদি আরবের জেদ্দার ইলেকট্রো কোম্পানির প্রায় আড়াইশ বাংলাদেশি শ্রমিক গত ২ বছর ধরে বেতন-ভাতা না পেয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। এ অবস্থায় সমস্যা সমাধানে বাংলাদেশ সরকারের হস্তক্ষেপ দাবি করেছেন ভুক্তভোগী শ্রমিকরা।

সৌদি-লেবানিজ যৌথ মালিকানায় প্রতিষ্ঠিত জেদ্দার ইলেকট্রো কোম্পানি ২ বছর আগে কোনো নোটিশ ছাড়াই আড়াইশ বাংলাদেশি শ্রমিকের বেতন-ভাতা বন্ধ করে দেয়। আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান না হওয়ায় বাধ্য হয়ে আদালতে যান শ্রমিকরা। আদালতের রায় শ্রমিকদের পক্ষে গেলেও এখনও পর্যন্ত কোনো সমাধান মেলেনি। দীর্ঘদিন বেতন-ভাতা না পাওয়ায় শ্রমিক ও তাদের দেশে থাকা পরিবারের সদস্যরা মানবেতর জীবনযাপন করছেন।

কোম্পানি বন্ধ থাকায় বৈধ কাগজপত্র নরায়ন করতে না পারায় পুলিশ কয়েকজনকে আটক করে দেশে পাঠিয়ে দিয়েছে। এ কারণে গ্রেফতার আতঙ্কে দিন কাটছে তাদের।

শ্রমিকরা জানান, কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ছিলেন লেবাননের ১ নাগরিক। ২ বছর আগে, কোম্পানির বিপুল অঙ্কের অর্থ আত্মসাৎ করে পালিয়ে যান তিনি। শ্রমিকদের দেনা-পাওনা শোধ না করায় আদালত মালিকদের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন।

জেদ্দার সৌদি ইলেক্ট্রো ইন্ডাস্ট্রিজে কাজ করতেন, এসব হতভাগ্য বাংলাদেশি। বেতন-ভাতা, চিকিৎসাসেবা বঞ্চিত শ্রমিকরা, ২০১৫ সালে বাংলাদেশ কাউন্সিলয়ের (লেবার) সহায়তায় মামলা করেন সৌদি লেবার আদালতে। রায়ে শ্রমিকদের বেতন-ভাতা পরিশোধের নির্দেশ দেয়া হলেও কোম্পানি উল্টো ঐসব শ্রমিকদের খাবার সরবরাহ বন্ধ করে দেয়। এরপর গেল বছর বিষয়টি গড়ায় সৌদি উচ্চ আদালতে। সর্বোচ্চ আদালতের রায়ে আবারও বাংলাদেশি শ্রমিকদের বেতন-ভাতা পরিশোধের নির্দেশনা দেয়া হয়। এরপরও ন্যায্য পাওনা মেলেনি হতভাগ্যদের।

এবার ঐ কোম্পানির মালিক ও ম্যানেজারকে গ্রেফতারের নির্দেশ দেন আদালত। এরপরই লাপাত্তা সৌদি ইলেক্ট্রো ইন্ডাস্ট্রিজের মালিক ও ম্যানেজার।

সমস্যা সমাধানে ১ জন অভিজ্ঞ আইনজীবী নিয়োগ দিয়েছেন জেদ্দার বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল। তবে শ্রমিকদের অভিযোগ, বেতন-ভাতা এবং আকামা নবায়ন না হওয়ায় প্রতিনিয়ত পুলিশের হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে তাদের। এ বিষয়ে জেদ্দার বাংলাদেশ কনসুলেটের কনসাল জেনারেল এফ. এম. বোরহান উদ্দিন গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি। তবে শ্রমিকদের এই সমস্যা সমাধানে সৌদির বাংলাদেশ কনস্যুলেট ১ জন আইনজীবী নিয়োগ দিয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ১৬
ফজর৫:১২
যোহর১১:৫৪
আসর৩:৩৯
মাগরিব৫:১৭
এশা৬:৩৫
সূর্যোদয় - ৬:৩৩সূর্যাস্ত - ০৫:১২
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩১৩৩.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.