নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, শুক্রবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৩০ ভাদ্র ১৪২৫, ৩ মহররম ১৪৪০
রেকর্ড ছাড়িয়েছে সিরিয়ায় বাস্তুচ্যুত মানুষের সংখ্যা
জনতা ডেস্ক
সিরিয়ার ইদলিবে সামরিক অভিযানের আশঙ্কার মধ্যে সেখানকার মধ্যপন্থী বিদ্রোহীদের অস্ত্র সহায়তা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে তুরস্ক। গেল সপ্তাহে জেনেভায় রাশিয়া এবং ইরানের সঙ্গে সামরিক অভিযানের বিষয়ে মতৈক্যে না পৌঁছানোয় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে বিদ্রোহীদের পক্ষ থেকে জানানো হয়। ইদলিবে সামরিক অভিযান চালানো হলে দেশের মধ্যেই অসংখ্য মানুষ বাস্তুচ্যুত হবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ। সিরিয়ায় বাস্তুচ্যুত মানুষের সংখ্যা এ বছর অতীতের সব রেকর্ড ছাপিয়ে গেছে উল্লেখ করে সংস্থার এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, দেশটির উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের শরণার্থী ক্যাম্পগুলোতে আর কোন মানুষকে আশ্রয় দেয়া সম্ভব নয়।

বিদ্রোহীদের কাছ থেকে ইদলিব পুনরুদ্ধারে রুশ বাহিনীর সহায়তায় সিরীয় বাহিনীর বিমান হামলা সামনে আরও তীব্র হওয়ার আশঙ্কায় বুধবারও প্রদেশটির বিভিন্ন অঞ্চল ছেড়ে যেতে দেখা যায় স্থানীয় বাসিন্দাদের। নিজ ঘরবাড়ি ছেড়ে পালানো এসব বাসিন্দা আশ্রয় নিচ্ছে তুরস্ক সীমান্তে। বুধবার, তুর্কি সেনাবাহিনী নিয়ন্ত্রিত সীমান্ত এলাকা বাসৌটায় জড়ো হওয়া সিরীয়দের ছবি প্রকাশ করে গণমাধ্যম।

সিরিয়া বিষয়ক জাতিসংঘের স্বাধীন তদন্ত কমিশন প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, এ বছরের প্রথমার্ধে সিরিয়ায় বাস্তুচ্যুত মানুষের সংখ্যা অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে। এ অবস্থায়, ইদলিবে সামরিক অভিযান চালানো হলে, অভ্যন্তরীণ বাস্তুচ্যুত মানুষের সংখ্যা নজিরবিহীন মাত্রায় পৌঁছে যাবে বলেও ২৪ পৃষ্ঠার ওই প্রতিবেদনে আশঙ্কা করা হয়।

জাতিসংঘের সিরিয়া বিষয়ক স্বাধীন তদন্ত কমিশনের চেয়ারপারসন পাওলো সার্জিও পিনেইরো বলেন, ইদলিব পরিস্থিতি এই মুহূর্তে খুবই নাজুক। বহু নারী ও শিশু সেখানে মৃত্যুঝুঁকিতে রয়েছে। বিশেষ করে যারা অন্য অঞ্চল থেকে বাস্তুচ্যুত হয়ে এসেছে তাদের অবস্থা আরও খারাপ। ইদলিবের প্রায় ৩০ লাখ বাসিন্দার মধ্যে ২৯ লাখই দুই পক্ষের মধ্যে চুক্তির সুবাদে অন্যান্য অঞ্চল থেকে এসে আশ্রয় নিয়েছিল। এটা সত্যি খুব কষ্টের যে, যাদেরকে অন্য এলাকা থেকে এখানে এনে আশ্রয় দেয়া হয়েছে, আজ তাদের ওপরই বিমান থেকে বোমা নিক্ষেপ করা হচ্ছে।

জাতিসংঘ এমন হতাশাজনক চিত্র তুলে ধরলেও ইদলিবের বিদ্রোহীরা নতুন করে শক্তি সঞ্চয় অব্যাহত রেখেছে। বিদ্রোহীদের উদ্ধৃত করে রয়টার্স জানায়, গেল সপ্তাহে জেনেভায় সিরিয়া বিষয়ক আলোচনায়, ইদলিবে সামরিক অভিযানের বিষয়ে রাশিয়া, এবং ইরানের সঙ্গে সমঝোতা না হওয়ায় বিদ্রোহীদের নতুন করে অস্ত্র সহায়তার মাধ্যমে তাদেরকে আরও তবে, ইদলিবে সামরিক অভিযানের বিষয়ে জেনেভায় তিন দেশের মধ্যে মতৈক্য না হলেও, চলমান এ শান্তি আলোচনায় সিরিয়ার রাজনৈতিক সংস্কার ও সংবিধান প্রণয়নের লক্ষ্যে গঠন হতে যাওয়া কমিটিতে মনোনীত ব্যক্তিদের দুটি তালিকার প্রাথমিকভাবে রাশিয়া, ইরান এবং তুরস্ক এতমত হয়েছে বলে জানা গেছে। বুধবার, সাংবাদিকদের বিষয়টি জানান রুশ প্রতিনিধি আলেকজান্দার ল্যাভরেন্তিয়েভ।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ১৯
ফজর৪:৫৬
যোহর১১:৪৪
আসর৩:৩৭
মাগরিব৫:১৫
এশা৬:৩১
সূর্যোদয় - ৬:১৫সূর্যাস্ত - ০৫:১০
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩২৩১.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.