নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বুধবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১ আশ্বিন ১৪২৭, ২৭ মহররম ১৪৪২
২০২৩ সাল পর্যন্ত প্রকল্পের প্রস্তাব
প্রায় দেড় কোটি শিক্ষার্থীকে দুপুরের খাবার দিতে চায় সরকার
স্টাফ রিপোর্টার
দেশের ৬৫ হাজার ৬২০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক কোটি ৪০ লাখ শিক্ষার্থীর মধ্যে মিড ডে মিল চালু করার পরিকল্পনা করা হয়েছে বলে গতকাল মঙ্গলবার প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন একটি প্রকল্পের কথা উল্লেখ করে বলেছেন, 'দেশের ৬৫ হাজার ৬২০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক কোটি ৪০ লাখ শিক্ষার্থীর মাঝে মিড ডে মিল (দুপুরের খাবার) চালু করা হবে। এটার ব্যবস্থাপনার জন্য আমাদের অনেক ধরনের প্রশিক্ষণ ও প্রস্তুতির প্রয়োজন রয়েছে।'

গতকাল মঙ্গলবার সচিবালয়ে নিজ দফতরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন সিনিয়র সচিব আকরাম-আল হোসেন। এ সময় মিড ডে মিল প্রকল্পের বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন তিনি। খিচুড়ি রান্না শিখতে এক হাজার কর্মকর্তা বিদেশ যাচ্ছেন- এমন একটি সংবাদ গত সোমবার বিভিন্ন গণমাধ্যমের অনলাইন ভার্সনে প্রকাশিত হয়। গতকাল আবার বিভিন্ন পত্রিকায়ও একই সংবাদ দেখা গেছে। গতকাল থেকেই মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ও কর্মকর্তা এ নিয়ে বিভিন্নজনের প্রশ্নের মুখোমুখি হচ্ছেন বলে জানিয়েছেন।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেনকেও আজকে সাংবাদিকরা এই প্রশ্ন করলে তিনি সরাসরি এর জবাবে বলেন, খিচুড়ি কীভাবে রান্না করে সেটা দেখা বা শেখার জন্য কিন্তু আমরা বিদেশে লোক পাঠাচ্ছি না। প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের জন্য 'মিড ডে মিল' সঠিক বাস্তবায়নের জন্য বিদেশে কয়েকজন কর্মকর্তার প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করার প্রস্তাব করা হয়েছে। এ প্রকল্পটি এখনো পরিকল্পনার পর্যায়ে রয়েছে।''

প্রকল্পের বিষয়টি তুলে ধরে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব বলেন, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর স্কুল ফিডিং পলিসির আওতায় ১৯ হাজার ২৯৬ কোটি টাকার একটি প্রকল্প পরিকল্পনা কমিশনে পেশ করেছে। বর্তমানে এ প্রকল্পটি ১০৪টি উপজেলায় চলমান রয়েছে। এটি আগামী ৩১ ডিসেম্বর শেষ হবে।'

বর্তমান সরকারের নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী পর্যায়ক্রমে ২০২৩ সালের মধ্যে দেশের সব প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মিড ডে মিল চালু করা হবে বলে জানান সচিব। তিনি আরো বলেন, 'সেই নির্বাচনী ইশতেহারকে সামনে রেখে আমরা ২০২৩ সাল পর্যন্ত একটা প্রকল্প প্রণয়ন করেছি।'

'অন্য দেশের স্কুলগুলোতে মিড ডে মিল কীভাবে বাস্তবায়ন করা হয়, এ বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করার জন্য অতি অল্প অর্থ ব্যয়ে একটি কর্মসূচি রাখা হয়েছে। এ অর্থ ব্যয় কোনো অপচয় নয় বরং অভিজ্ঞতা অর্জনে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাটা রাখা হয়েছে।'

সচিব আরো বলেন, 'এ প্রকল্পটি এখনো অনুমোদন হয়নি। গতকাল পরিকল্পনা কমিশনের সদস্যের সভাপতিত্বে এটার পিইসি মিটিং ছিল। মিটিং থেকে প্রকল্পটির বিষয়ে আমাদের কাছে কিছু তথ্য জানতে চাওয়া হয়েছে। আমরা সেগুলোর জবাব দেব। জবাবের পর যদি তারা সন্তুষ্ট হয় তাহলে একনেক বৈঠকে উত্থাপিত হবে। একনেকে অনুমোদিত হলে জানুয়ারি থেকে বাস্তবায়ন করতে পারব।'

অপর এক প্রশ্নের জবাবে সচিব বলেন, পরিকল্পনা কমিশন এ প্রকল্প বাস্তবায়নের অনুমোদন দেবে কি না, সেটি তাদের বিষয়। বাচ্চাদের আমরা দুপুরে দুই ধরনের খাবার দেয়ার পরিকল্পনা নিয়েছি। তিন দিন বিস্কুট এবং তিন দিন রান্না করা খাবার। বর্তমানে ছয় দিন বিস্কুট দেয়া হয়। রান্না করা খাবারের মধ্যে খিচুড়িটি সবচেয়ে প্রোটিনসমৃদ্ধ।'

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীসেপ্টেম্বর - ২৬
ফজর৪:৩৪
যোহর১১:৫১
আসর৪:১১
মাগরিব৫:৫৪
এশা৭:০৭
সূর্যোদয় - ৫:৪৮সূর্যাস্ত - ০৫:৪৯
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৫৯২২.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.