নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বুধবার, ৯ অক্টোবর ২০১৯, ২৪ আশ্বিন ১৪২৬, ৯ সফর ১৪৪১
কলমাকান্দায় নদীভাঙনে হুমকির মুখে সার্বজনীন কবরস্থান
কলমাকান্দা (নেত্রকোনা) থেকে রিনা হায়াৎ
নেত্রকোনার কলমাকান্দা সদর ইউনিয়নের ডোয়ারিয়াকোনা সার্বজনীন কবরস্থানটি হুমকির মুখে পড়েছে। এর মধ্যে মেইন রাস্তা হতে কবরস্থানে যাতায়াতের একমাত্র রাস্তাটিও নদীর গর্ভে বিলিন হয়ে যাচ্ছে।

১৯৭৮ সালে চান্দুয়াইল গ্রামের তাহের আলী সার্বজনীন কবরস্থানের নামে ৪ একর জমি দান করেন। তারমধ্যে সমপ্রতি ১.৫ একর জমি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। কলমাকান্দা, ডোয়ারিয়াকোনা, চান্দুয়াইল, চানপুর, বাদে আমতৈল, আনন্দপুর, বিশাড়া. চিনাহালা, শালজানসহ ১০-১৫টি গ্রামের একমাত্র ভরসা ওই কবরস্থানটি ।

গত শনিবার বিকেলে সরেজমিন পর্যবেক্ষণে দেখা যায়, উব্দাখালী নদীর তীরবর্তী ডোয়ারিয়াকোনা গ্রামের নদী ভাঙন দেখা দিয়েছে। নদীর পানি কমতে শুরু করায় নতুন করে ভাঙন শুরু হয়েছে। উব্দাখালী নদীর তীব্র ভাঙনের স্বীকার হয়ে ইতিমধ্যে কবরস্থানের প্রায় ১.৫ একর জমি বিলীন হয়ে গেছে। জরুরী ভিত্তিতে ভাঙন রোধে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে ভাঙনের কবলে পরে নদীগর্ভে বিলিন হয়ে যেতে পারে ওই কবরস্থানটি।

অবিলম্বে এই ভাঙন প্রতিরোধে পদক্ষেপ নেয়ার জন্য স্থানীয় সরকারের জনপ্রতিনিধিসহ সংশিষ্ট মন্ত্রণালয়ে সুদৃষ্টি কমনা করেন স্থানীয়রা। চান্দুয়াইল গ্রামের বাসিন্দা মো. নাজিম উদ্দিন স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান কবরস্থানটি ভাঙনের কবলে পড়লেও এ পর্যন্ত ভাঙন ঠেকাতে সংশিষ্ট কর্তৃপক্ষ কোন কার্যকরী উদ্যোগ নেয়নি। জরুরি ভিত্তিতে কবরস্থানের গাইড ওয়াল নির্মাণ করা না হলে কবরস্থানটি নদীতে বিলিন হয়ে যেতে পারে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কবরস্থান পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুল জলিল স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, সমপ্রতি নদী গর্ভে কবরস্থানের জায়গা ভাঙা পড়ায় জায়গা সংকট দেখা দিয়েছে। ভাঙন রোধে একটি গাইড ওয়াল নির্মাণ করার জন্য সংশিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে বার বার যোগাযোগ করেও এর কোন সুরাহা হয়নি। প্রায় ৫ বছর পূর্বে উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয় হতে গাইড ওয়াল নির্মাণের লক্ষে পরিকল্পনা করলেও আজও তা বাস্তবে পরিণত হয়নি। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা প্রকৌশলী মো. আফসার উদ্দিন স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, আমি এখানে নতুন যোগদান করেছি। এ ব্যাপারে আমার জানা নেই। তবে খোঁজ খবর নিয়ে দেখব এবং ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীঅক্টোবর - ১৪
ফজর৪:৩৯
যোহর১১:৪৫
আসর৩:৫৫
মাগরিব৫:৩৭
এশা৬:৪৮
সূর্যোদয় - ৫:৫৫সূর্যাস্ত - ০৫:৩২
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৭১২.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.