নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বুধবার, ৯ অক্টোবর ২০১৯, ২৪ আশ্বিন ১৪২৬, ৯ সফর ১৪৪১
বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো শারদীয় দুর্গোৎসব
স্টাফ রিপোর্টার
মহালয়ায় দেবী দুর্গা পৃথিবীতে নেমে এসেছিলেন, গতকাল মঙ্গলবার বিজয়া দশমীর দিন আবার মর্ত্যলোক ছেড়ে স্বর্গলোকে প্রস্থান করবেন। অগণিত ভক্তের মনে তাই বিদায়ের বিষাদ। তবে বিষাদ ভুলে হাসিমুখে মাকে বিদায় জানাতে ভক্তরা সিঁদুর খেলায় মাতেন। বিসর্জনের আগ পর্যন্ত তারা একে অপরকে সিঁদুরে রাঙান, নাচ-গান করেন, যেন সারা বছর এমন আনন্দে কাটে। এমন আনন্দ-বেদনার আবহে মঙ্গলবার দুপুর থেকে রাজধানীর সদরঘাট সংলগ্ন বিনা স্মৃতি স্নানঘাটে প্রতিমা বিসর্জন শুরু হয়। শুরুতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের পূজাম-প তাদের প্রতিমা বিসর্জন দেয়। পর্যায়ক্রমে নগরীর বিভিন্ন পূজাম-পের প্রতিমা বিসর্জন দেয়া হয়। ঢাকার সদরঘাটের কেন্দ্রীয় বিসর্জন নিয়ন্ত্রণ কমিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এ বছর রাজধানী ঢাকায় ৩১ হাজার ৭৬৭টি পূজাম-পে দুর্গাপূজা হয়েছে। আয়োজকরা জানান, অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ছাড়া পূজা উদযাপন করা হয়েছে।

এদিকে প্রতিমা বিসর্জনকে কেন্দ্র করে সদরঘাট এলাকায় নেয়া হয় ব্যাপক নিরাপত্তা। র‌্যাব, পুলিশ ও নৌ-পুলিশের সমন্বয়ে নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হয়ে। দুর্গাপূজায় সবশেষ রীতিটি হচ্ছে 'দেবী বরণ'। এটি শুরু হয় বিবাহিত নারীদের সিঁদুর খেলার মাধ্যমে। বিবাহিত নারীরা সিঁদুর, পান ও মিষ্টি নিয়ে দুর্গা মাকে সিঁদুর ছোঁয়ানোর পর একে অপরকে সিঁদুর মাখিয়ে দেন। তারা এই সিঁদুর মাখিয়ে দুর্গা মাকে বিদায় জানান। সিঁদুরে মুখ রঙিন করে হাসিমুখে মাকে বিদায় জানানোর জন্যই এই সিঁদুর খেলা। তাই মাকে বিসর্জনের আগ পর্যন্ত তারা একে অপরকে সিঁদুর লাগান, নাচ-গান করেন, যেন সারা বছর এমন আনন্দেই কাটে। রীতি অনুযায়ী সধবা নারীর স্বামীর মঙ্গল কামনায় দশমীর দিন নারীরা নিজ কপালে সিঁদুর লাগান এবং সেই সিঁদুরের কিছু অংশ দিয়ে দেবীর চরণ স্পর্শ করে থাকেন। তারপর সবাই মিলে একে অপরকে সিঁদুর মাখেন। এই সিঁদুর খেলা বিবাহিত নারীদের জন্য বরাদ্দ থাকলেও সব বয়সীরাই ম-পে ম-পে ভিড় করেন, নেচে-গেয়ে এতে অংশ নেন। অবিবাহিতরা গালে আর হাতে মাখেন সিঁদুর। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির ঘুরে দেখা যায়, লাল শাড়ি, লাল পাড়ের সাদা শাড়ি পরা নারীরা দেবীকে সিঁদুর ছোঁয়ানোর জন্য দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন। বাদ্যের তালে তালে ম-পে ম-পে চলছে বিদায়ের প্রস্তুতি। পূজা দিতে আসা এক তরুণী বলেন, 'বিয়ে ছাড়া মাথায় সিঁদুর দেয়া যায় না। আমাদের একদিন বিয়ে হবে তখন ভালো স্বামী এবং সুখের সংসারের কামনায় আমরা সিঁদুর খেলায় আসি।'

রঞ্জনা দাস নামের এক ভক্ত জানান, স্বামীর মঙ্গল কামনায় এই রীতি। মা দুর্গা আগামী বছর শাঁখা-সিঁদুর সঙ্গে নিয়ে আসবেন এবং সেই শাঁখা-সিঁদুর ধারণ করেই স্বামীর মঙ্গল হবে।

রাজধানীর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে অনুষ্ঠিত হয় সিঁদুর খেলা। সেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলি দাস। তিনি বলেন, এই বছর বাংলাদেশে সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে পূজা উদযাপিত হয়েছে, এজন্য আমি বাংলাদেশ সরকারকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীঅক্টোবর - ১৪
ফজর৪:৩৯
যোহর১১:৪৫
আসর৩:৫৫
মাগরিব৫:৩৭
এশা৬:৪৮
সূর্যোদয় - ৫:৫৫সূর্যাস্ত - ০৫:৩২
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৬৯৪.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.