নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বুধবার, ৯ অক্টোবর ২০১৯, ২৪ আশ্বিন ১৪২৬, ৯ সফর ১৪৪১
জলঢাকায় পিছিয়ে পড়া শিশুদের সাক্ষরতা দিচ্ছে আলোর কণা
জলঢাকা (নীলফামারী) থেকে মো. ছানোয়ার হোসেন বাদশা
নীলফামারীর জলঢাকার সামাজিক সংগঠন আলোর কণা নিরক্ষরতা দূরীকরণসহ সামগ্রিক সামাজিক উন্নয়নে এখন ভূমিকা রেখে চলছে আলোর পথে। সেই ২০১৫ সালে ৫ জন পিছিয়ে পড়া ছাত্রছাত্রীকে নিয়ে আলোর সন্ধানে সামাজিক অবদান রাখতে যাত্রা শুরু করেছিল প্রতিষ্ঠানটি। যা বর্তমানে প্রায় ১ হাজার জনে পৌঁছেছে। সমাজের সামাজিক অবক্ষয় দূরীকরণে দৃপ্ত চেতনা শপথ আলোর কণার পরিচালক ফুরাদ হোসেনের। নজ শিক্ষার পাশা-পাশী দারিদ্রপীড়িত পরিবারের সন্তানদের সু-শিক্ষিত করতে পেরেছে ফুরাদ। অজঁপাড়াগাঁ জলঢাকা পৌরসভাধীন দুন্দিবাড়িতে এর কার্যক্রম চালু হয়। শিক্ষার্থীদের উৎসব মুখর পরিবেশে পাঠ্যদান হয় নিত্যদিন। শিক্ষক সংখ্যাও ১৯ জন। যারা এখানকার শিক্ষক তারা সকলেই জলঢাকা সরকারি কলেজের ছাত্রছাত্রী।

গতকাল মঙ্গলবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, গোটা উপজেলায় এর ১১টি পাঠ্যকেন্দ্র রয়েছে। যেখানে ফ্রি পাঠদান করা হয়। এছাড়াও চলমান রয়েছে মাসিক ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প, মাসিক কুইজ প্রতিযোগিতা, সাপ্তাহিক কুইজ প্রতিযোগিতা, রচনা ও উপস্থিত বক্তৃতা প্রতিযোগিতা, আবৃত্তি প্রতিযোগিতা, বইপড়া প্রতিযোগিতা, সঙ্গীত প্রতিযোগিতা, সুন্দর হাতের লেখায় পারদর্শীতা, সাপ্তাহিক গুণীজন দ্বারা ভাল মানুষ হতে উৎসাহ প্রদান, মানবতার দেয়াল, গ্রন্থাগার ও সততা স্টোর, শিক্ষার বিনিময়ে খাদ্য কর্মসূচি রয়েছে, আলোর কণার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ফুরাদ হোসেন বলেন, ২০১২ সালে সংগঠনটি চালু করার পর ২০১৫ সালে আমার সকলস্তরের বন্ধুদের সাথে নিয়ে আলোর কণার ফ্রি পাঠদান কর্মসূচি সফল করার যে সব কার্যক্রম চলমান রয়েছে তা একসময় দুন্দিবাড়ির মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল যা আজ গোটা উপজেলায় বিস্তৃত।

বাংলাদেশ সরকার আলোর কণাকে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিলে আলোর কণা শুধু জলঢাকা নয়, জেলা কিংবা বিভাগে এর কার্যক্রম ছড়িয়ে দেয়া সম্ভব হবে। শিক্ষিকা আতিকা আক্তার, লিপছি আক্তার আকলিমা আক্তার, শিক্ষক তুহিন ইসলাম, সাজু ইসলাম জানান, আমরা এখানে পাঠদান দিতে পেরে নিজেদেরকে গর্বিতবোধ করছি। নিরক্ষরতা দূরীকরণে সাক্ষর রাখছে আলোর কণা। শিক্ষার্থী আঁখি, রহিমা, সাকিব, পিংকি, দীপ্তি রানী, মোস্তাকিন, মানিক বলেন, আমরা শিক্ষালাভে অনেকটা এগিয়ে, মানসম্মত পাঠদান সহ নানান কিছু শিখেছি।

অভিভাবক মিলাল ইসলাম ও হাসান জানিয়েছেন অর্থ ছাড়াই আমাদের সন্তানরা যে শিক্ষালাভ করেছে আমরা তাতে ধন্য। এলাকার গুণী ব্যক্তিত্ব ছাইদুল ইসলাম পিকু বলেন, এ পাঠশালা গুণগতমানের ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের জ্ঞানের ভা-ার যে আলো ছড়াচ্ছে পুরো উপজেলায়। প্রতিষ্ঠানটির প্রতি সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুজাউদ্দৌলা সুজা, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার চঞ্চল কুমার ভৌমিক, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার নুর মোহাম্মদ ছাড়াও বিভিন্ন কর্মকর্তাবৃন্দ।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ২৩
ফজর৪:৫৯
যোহর১১:৪৫
আসর৩:৩৬
মাগরিব৫:১৫
এশা৬:৩১
সূর্যোদয় - ৬:১৮সূর্যাস্ত - ০৫:১০
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৬৭২.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.