নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বুধবার, ৯ অক্টোবর ২০১৯, ২৪ আশ্বিন ১৪২৬, ৯ সফর ১৪৪১
আবরার হত্যা অপরাজনীতির স্বাক্ষর
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে অপরাজনীতির শিকার হলো আরেকটি প্রাণ। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ইলেকট্রিক্যাল এবং ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ছাত্র আবরার ফাহাদকে (২১) পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ মোট দশ জনকে আটক করেছে পুলিশ। ইতোমধ্যে ১১ জনকে দল থেকে বহিষ্কারও করেছে ছাত্রলীগ। এ ঘটনায় আবরারের বাবা ১৯ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন।

আইনের স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় আবরার হত্যার বিচারকাজ চলবে। আমরা আশা করি দোষীরা সাজা পাবে। তবে আবরারের মৃত্যুতে যে শূন্যতার সৃষ্টি -তা শুধু টের পাবে আবরারের বাবা-মা, পরিবার। এ ঘটনায় সারাদেশে প্রতিবাদ চলছে। সচেতন নাগরিক সমাজ বড় কোনও অসঙ্গতি দেখলে প্রত্যক্ষ কিংবা পরোক্ষভাবে তার প্রতিবাদ করে। গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়, দেশ উত্তাল হয়। এরপর আবার নতুন কোনও ঘটনা বা অঘটন জন্ম নেয়, দৃষ্টি চলে যায় সেদিকে। আবরাররা তখন 'উদাহরণ' হয়ে যায়।

২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ যখন ক্ষমতায় এসেছিল তখন তাদের ইশতেহারে 'দিন বদলের' প্রতিশ্রুতি ছিল। দিন বদলেছে। বিশ্বব্যাংক বলছে ২০১০ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত ৬ বছরে দেশের ৮০ লাখ মানুষ দারিদ্র্য থেকে বেরিয়ে এসেছে। অর্থমন্ত্রী বলছেন, এটি পুরনো তথ্য, হালনাগাদ তথ্য হলে দারিদ্য হরাসের হার আরও বেশি হতো, অর্থাৎ চলমান ২০১৯ সালে দরিদ্র মানুষের সংখ্যা ৮০ লাখ নয়, তার চেয়ে আরও অনেক বেশি কমেছে। এ বিষয়ে আমরাও আশাবাদী হতে চাই। কিন্তু তার সঙ্গে সঙ্গে প্রশ্নও থেকে যায়। বিত্তবানদের সংখ্যা কী হারে বেড়েছে? ধনীর সংখ্যা বাড়াকেও ইতিবাচক হিসেবে দেখতে চাই। কিন্তু প্রশ্নটা সেখানেই, যারা ধনী হয়েছেন তাদের সম্পদ অর্জনের প্রক্রিয়াটা কী?

বর্তমান সময়ে সুবিধা ও ফায়দা লোটার সবচেয়ে কার্যকর ও নির্ভরযোগ্য মাধ্যম হলো রাজনীতি। যেখানে নীতি ও আদর্শ থাকার কথা সেখানে এগুলোকে বিসর্জন দিয়ে মানুষ রাজনীতিতে ঢুকছে নগদ প্রাপ্তির লোভে। দল টিকিয়ে রাখতে এদেরকে ধরে রাখার প্রয়োজনে সুবিধা দিতেও হয়। এর ফলে দুর্নীতি ও দুর্বৃত্তায়ন বিকশিত রূপ ধারণ করে, উচ্চ স্থান থেকে একদম তৃণমূল পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে। এরই জ্বলজ্যান্ত প্রমাণ কয়েকদিনের 'শুদ্ধি' অভিযান। সরকারের এই উদ্যোগ সাধুবাদ পাওয়ার যোগ্য। কিন্তু এই প্রক্রিয়া কতটুকু ফলপ্রসূ হবে সেটাও ভাবার বিষয়। আশঙ্কা হচ্ছে, বর্তমান রাজনীতি যেভাবে দূষিত হয়েছে এবং ক্রমাগত দূষণের কবলে রয়েছে তাতে অদূর ভবিষ্যতে 'লোম বাছতে কম্বল উজাড়ের' মতো ঘটনা না ঘটে যায়।

দিন বদলের মানে শুধু অর্থনৈতিক আর অবকাঠামোগত উন্নয়ন নয়, বরং দুর্নীতি, দুর্বৃত্তায়ন, অপরাজনীতিসহ সকল অসঙ্গতিকে নির্মূলের মাধ্যমে একটি স্থিতিশীল ও শান্তিপূর্ণ রাষ্ট্র গঠন করা। বুয়েট ছাত্র আবরারকে পিটিয়ে হত্যায় জড়িতরা দুর্বৃত্ত, আর তাদের দুর্বৃত্তায়নের জন্য দায়ী অপরাজনীতি। যারা আবরারকে হত্যা করেছে তারা সবাই বুয়েটের মেধাবী শিক্ষার্থী, কিন্তু তাদের মেধাকে কোন কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে, কারা ব্যবহার করছে সেটি গুরুত্বসহকারে দেখার বিষয়। আমরা চাই না আর কোনও আবরার অপরাজনীতির শিকার হোক।
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীঅক্টোবর - ১৪
ফজর৪:৩৯
যোহর১১:৪৫
আসর৩:৫৫
মাগরিব৫:৩৭
এশা৬:৪৮
সূর্যোদয় - ৫:৫৫সূর্যাস্ত - ০৫:৩২
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৭০১.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.