নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১১ অক্টোবর ২০১৮, ২৬ আশ্বিন ১৪২৫, ৩০ মহররম ১৪৪০
জনতার মত
মৌলিক দায়িত্ব পালন থেকে বিরত থাকা মানুষের ক্ষতির মূল কারণ
আবদুর রফিক
সৃষ্টিকর্তা যত কোটি প্রাণী সৃষ্টি করে পৃথিবীতে বিচরণের যোগ্যতা দান করেছেন তার মধ্যে অন্যতম ও শ্রেষ্ঠতম সুন্দর আকৃতি বিশিষ্ট জ্ঞান বুদ্ধিসম্পন্ন রূপে মানুষকে শ্রেষ্ঠত্ব দান করেছেন। স্রষ্টা ঘোষণা দিয়েছেন মানুষ শ্রেষ্ঠ হয়েছে। মানুষ পৃথিবীতে বসবাসকালে স্রষ্ঠার নির্দেশিত কিছু দায়িত্ব পালন করা বাধ্যতামূলক। এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ একটি দায়িত্ব মানুষকে অর্থ উপার্জন করতে হবে। এই অর্থ দ্বারা নিজের অন্ন, বস্ত্র, চিকিৎসা, বাসস্থানসহ সকল প্রকার প্রয়োজন মিটাতে হবে। অতপর নিজের পরিবার স্ত্রী, সন্তান, পিতা-মাতা, ভাই-বোন সকলের প্রয়োজনীয় চাহিদা পূরণে আন্তরিক হতে হবে। পরিবারকেন্দ্রিক অন্যান্য আত্মীয় স্বজনসহ পাড়া পড়শীর সম্ভব অনুযায়ী চাহিদা পূরণ করাও দায়িত্বের অংশ।

মূল এই দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি প্রত্যেক মানুষ সকালে ঘুম থেকে জেগে দাঁত ব্রাশ করে, মুখ ধুয়ে, নাস্তা খাওয়া থেকে শুরু করে সারাদিন যে যেকাজেই ব্যস্ত থাকুক না কেন রাতে শুইতে গিয়ে ঘুমানোর পূর্ব পর্যন্ত সকল কাজই তাকে পালন করতে হয়। যার যার কর্ম মার্জিত, সুন্দর হওয়ার জন্য সচেতনতার দায়িত্বও নিজের। মানুষ মাত্রই সৌন্দর্যপ্রিয় পাশাপাশি ভুল করার আবেগও মানুষের চিন্তায় মিশ্রিত আছে। মানুষ ভুল করে, ভুল পথে নিজেকে পরিচালিত করে ধ্বংস হয়ে যাবার সম্ভাবনা খুবই বেশি। এইরূপ ভুল পথের মানুষকে সঠিক পথের কথা স্মরণ করিয়ে দেয়া পাশের মানুষটির উপরই দায়িত্ব বর্তায়। তার এই ভুলকে শুধরিয়ে না দিলে পাশের ব্যক্তিও তার ক্ষতির অংশের অন্তর্ভুক্ত হবে। অতএব নিজ নিজ কল্যাণের জন্যই এই দায়িত্ব পালন করা প্রত্যেক মানুষের মৌলিক দায়িত্ব। যা সহজ ভাষায় বলা যেতে পারে মানুষকে ভাল কাজে উৎসাহিতকরণ ও মন্দ কাজ থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দানকরণ প্রক্রিয়া। মানুষের মূল এই মৌলিক দায়িত্ব পালনের মাধ্যমেই মানুষ শ্রেষ্ঠত্বের দাবিদার হতে পারে। এই দায়িত্ব পালনেও একটি প্রক্রিয়া গ্রহণ করা বাধ্যতামূলক। প্রথমে নিজের উপর নিজের দায়িত্ব পালনে কতটুকু সচেতন তা খতিয়ে দেখা প্রয়োজন। অতপর নিজের স্ত্রী, সন্তানদের সৎ কাজে আদেশ করা ও অসৎ কাজ থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দেয়ার দায়িত্ব নিজের, অন্যথায় তাদের কোনো ভুলের খেসারত দিতে গিয়ে পুরো পরিবার ধবংস হয়ে যাবার সম্ভাবনা আছে। ক্রমাগতভাবে নিজের বংশগত ব্যক্তিদের উপর পাড়া-পড়শীদের উপর এই আদেশ নির্দেশনামা যার যার অবস্থান থেকে পালন করা প্রত্যেক মানুষের দায়িত্ব। পিতা যেমন সন্তানকে ভুল পথ থেকে সরিয়ে ভাল পথে চলার পরামর্শ দিবে, তেমনি যোগ্য সন্তানও তার ভুল পথিক পিতাকে সৎ পথের সন্ধান দেয়া কর্তব্য। স্বামী স্ত্রীকে, স্ত্রী স্বামীকে, ভাই বোনকে, বোন ভাইকে সকলেই যদি নিজের দায়িত্ব ভেবে অন্যের ভুল শুধরিয়ে দেয় সেখানে অন্যায় স্থান করে নিতে পারে না। কোনো ভুলকে ক্ষুদ্র ভেবে ঢেকে না রেখে, কোনো ভাল কাজকে অবহেলা করে আড়ালে না রেখে সবকিছুই যদি প্রয়োজন মোতাবেক উন্মুক্ত করা যায় তা হলে সমাজ থেকে মন্দ বা খারাপ বিষয় দূর হতে বাধ্য। তবে স্মরণ রাখতে হবে এই কর্ম নির্দিষ্ট কোনো বিষয়কে কেন্দ্র করে নয়, নির্ধারিত কোনো স্থানে সীমাবদ্ধ রেখে নয়, সমগ্র দেশে-সকল বিষয়ে প্রযোজ্য। রাস্তায় ক্ষতিকারক বস্তু ফেলে রাখা কর্মটি ছোট ভুল না ভেবে তার প্রতিবাদ করা থেকে রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ ব্যক্তি রাষ্ট্রপতির কোনো ভুল সিদ্ধান্ত ঘোষণাকে চলমান না ভেবে তার প্রতিবাদ করা যার যার যোগ্যতা অনুযায়ী মৌলিক দায়িত্ব। মানুষ ক্রমশ এই দায়িত্ব পালন থেকে নিজেকে আড়াল করে নিচ্ছে। কিছু মানুষ তো আছে নিজের নিয়ন্ত্রণই নিজে ঠিক রাখতে পারছে না, কিছু লোক আছে নিজের স্ত্রী সন্তান নিয়ন্ত্রণহীন জীবন-যাপন করছে। অতি সামান্য সংখ্যক মানুষ আছেন যারা অপরকে শুধুমাত্র ভাল কাজের সন্ধান দিয়ে থাকেন কিন্তু তারা অসৎ কর্ম থেকে বিরত থাকার মতো নির্দেশ দেয়ার সৎ সাহস হারিয়ে ফেলেছেন। যার ভয়াবহ পরিণতি ব্যক্তি জীবন থেকে রাষ্ট্রীয় জীবন পর্যন্ত চলমান। এই দায়িত্ব পালন থেকে বিরত থাকার কারণেই মানুষ আজ বড় ধরনের ক্ষতিগ্রস্তের সম্মুখীন। রাষ্ট্রীয়ভাবে এই দায়িত্ব প্রচলন করে সবাইকে দায়িত্ব পালনে বাধ্য করা রাষ্ট্রীয় প্রধানের রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব। নিশ্চয়ই আল্লাহ্ উত্তম সাহায্যকারী।

আবদুর রফিক : লেখক

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীঅক্টোবর - ২৩
ফজর৪:৪৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৪৯
মাগরিব৫:২৯
এশা৬:৪২
সূর্যোদয় - ৫:৫৯সূর্যাস্ত - ০৫:২৪
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৭১৫.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.