নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১১ অক্টোবর ২০১৮, ২৬ আশ্বিন ১৪২৫, ৩০ মহররম ১৪৪০
কুষ্টিয়ায় সাবরেজিস্ট্রার খুন
৩ যুবককে খুঁজছে পুলিশ আটক ২
কুষ্টিয়া থেকে শরিফ মাহমুদ
কুষ্টিয়া সদর সাব রেজিস্ট্রার নূর মোহাম্মদ শাহকে কুপিয়ে ও শ্বাসরোধ করে হত্যার ঘটনায় পুলিশ দুজনকে আটক করেছে। গত সোমবার রাত ১১টার দিকে কুষ্টিয়া শহরের বাবর আলী গেট নামক এলাকার হানিফ আলীর চারতলা ভবনের ৩য় তলার ভাড়া বাসা থেকে পুলিশ হাত-পা বাঁধা গুরুতর রক্তাক্ত জখম অবস্থায় নূর মোহাম্মদকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক রাজিবুল হাসান তাকে মৃত বলে ঘোষণা দেন। এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার কুষ্টিয়া মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা

দায়ের করা হয়েছে। নিহতের ছোট ভাই কামরুজ্জামান বাদী হয়ে অজ্ঞাতদের আসামি করে হত্যা মামলাটি দায়ের করেছেন। এদিকে পুলিশ এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাব রেজিস্ট্রি অফিসের দুই পিয়ন ফারুক এবং রাবি্বকে আটক করেছে। কুষ্টিয়া সদর ফাাঁড়ির ইনচার্জ এসআই সন্তু বিশ্বাস জানান, রাত ১১টার দিকে বাড়ির মালিক পুলিশকে ফোন করে সংবাদটি জানান। সংবাদ পেয়ে পুলিশ সদর সাব-রেজিস্টার নূর মোহম্মদকে তার নিজ ভাড়াটে বাসার রান্না ঘর থেকে হাত-পা বাধা অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়। নূর মোহাম্মদের বাড়ি কুড়িগ্রাম জেলায়। তিনি কুষ্টিয়া শহরের বাবর আলী রেলগেট এলাকার বিসি স্ট্রিট সড়কের হানিফ আলীর বাড়ির তিন তলার একটি ফ্ল্যাটে একাই ভাড়া থাকতেন। পরিবারের অন্য সদস্যরা ঢাকায় থাকেন। বাড়িওয়ালা হানিফ আলী থাকেন দোতলায়। বাড়িওয়ালার ছেলে আল মাহমুদ সোহাগ সাংবাদিকদের জানান, রাতে সাড়ে ১০ টার দিকে হঠাৎ করে একটা শব্দ শুনতে পেয়ে তিনি চোর ঢুকেছে মনে করে ছাদে উঠে যান। এ সময় তিন তলার ডান দিকের নূর মোহাম্মদের ফ্লাটের দরজার নিচের মেঝের ফাঁকা জায়গা পাপোশ দিয়ে আটকানো দেখেন। ঘরে উচ্চ শব্দে টেলিভিশন চলছিল। এ সময় তিনি কলিং বেল বাজান এবং নূর মোহাম্মদের সাড়া না পেয়ে কয়েকবার তার মোবাইলে ফোন দেন। রিপ্লাই না পেয়ে তিনি নিচে নেমে এসে পানির মেশিনের সুইচ বন্ধ করতে যান। সে সময় তিনি সিঁড়ি বেয়ে তিনজনকে নিচে নামতে দেখেন। এদের মধ্যে একজনের হাতে একটা ছুড়ি ছিল। তাদের পরিচয় এবং কার কাছে এসেছেন জানতে চাইলে তারা সাব রেজিস্ট্রারের কাছে গিয়েছিলেন বলে জানিয়ে তাকে রেজিষ্ট্রারের কাছে যেতে বলেন। আল মাহমুদ বাসার ভেতরে রান্না ঘরে হাত-পা ও মুখ বাঁধা অবস্থায় নূর মোহাম্মদকে পড়ে থাকতে দেখেন। বাড়ির অন্য ফ্ল্যাটের বাসিন্দাদের সহায়তায় তিনি পুলিশকে খবর দেন। পরে পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়। কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক রাজিবুল হাসান জানান, সোমবার রাত ১১টার পর হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আসার আগেই নূর মোহাম্মদ শাহ মারা যান। তার দুই হাতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো রক্তাক্ত জখমের চিহ্ন রয়েছে। রশি দিয়ে হাত-পা বাঁধা ও গলায় ফাঁসের চিহ্ন আছে। এদিকে নিহত সাব রেজিস্ট্রার নূর মোহাম্মদ শাহের লাশের ময়না তদন্ত শেষে অফিসের সহকর্মীদের হাতে লাশ হস্তান্তর করে পুলিশ। এরপর বেলা ২টার দিকে নিহতের নিজ কার্যালয় জেলা রেজিষ্ট্রী অফিস চত্বরে জানাযা সম্পন্ন হয়। জানাযা শেষে পরিবারের পক্ষে নিহতের ছেলে সিফাত ইবনে নূর এবং নিহতের ছোট ভাই মহসিন আলী শাহ লাশ গ্রহণ করেন। এর পর পরই লাশবাহী এ্যাম্বুলেন্সটি গ্রামের বাড়ি কুড়িগ্রামের উদ্দেশে রওনা হয়। নিহত নূর মোহাম্মদ কুড়িগ্রাম রাজারহাট উপজেলার পাড়ামওলা গ্রামের আলহাজ্ব মজিবুর রহমান শাহর ছেলে। নিজ বাসায় ঢুকে সাব-রেজিস্ট্রার নূর মোহাম্মদ শাহকে হত্যার ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। পুলিশ হত্যাকান্ডের পর পরই ওই বাড়ির সামনের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ উদ্ধার করেছে। ওই ফুটেজে মাথায় টুপি পরিহিত তিন যুবককে প্রবেশ করতে এবং নেমে যেতে দেখা গেছে। পুলিশ ওই তিন যুবককে খুঁজে বের করতে মাঠে নেমেছে। কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ নাসির উদ্দিন জানান, ইতিমধ্যে তারা জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহত নূর মোহাম্মদের দুই অফিস পিয়ন ফারুক এবং রাবি্বকে আটক করেছে। তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। ওসি জানান, সম্ভাব্য কয়েকটি দিক মাথায় রেখে তারা কাজ করে যাচ্ছেন। পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার একাধিক টিম মাঠে কাজ করছে জানিয়ে ওসি বলেন দ্রুততম সময়ের মধ্যে চাঞ্চল্যকর এই হত্যাকা-ের রহস্য উদঘাটনসহ আসামিদের গ্রেফতার করে আইনের হাতে সোপর্দ করা হবে। এদিকে একটি সূত্র জানায়, কুষ্টিয়া সদর রেজিস্ট্রি অফিসে কথিত দলিল লেখক সমিতির মাধ্যমে সমিতির নামে রেজিস্ট্রার, সাব রেজিস্ট্রার নূর মোহাম্মদসহ সংশ্লিষ্টরা প্রতিটি দলিলসহ অন্যান্য সেবা খাতে অবৈধভাবে প্রতিদিন লাখ লাখ টাকা ঘুষ আদায় করতেন। প্রত্যেক সেবা গ্রহীতাকে সমিতির নির্ধারিত হারে ঘুষ দেওয়া ছিল বাধ্যতামূলক। প্রতিদিন প্রকাশ্যে এই ঘুষ লেনদেন হতো। দিন শেষে এই টাকা দলিল লেখক সমিতির নেতৃবৃন্দ এবং রেজিস্ট্রার, সাব রেজিস্ট্রারসহ অফিস স্টাফদের মধ্যে রেসিও অনুযায়ী ভাগ-বাটোয়ারা হতো। এ নিয়ে সবাই অসন্তুষ্ট হলেও কুষ্টিয়া সদর রেজিস্ট্রি অফিসে ঘুষ লেনদেন ছিল ওপেন সিক্রেট। সেবা গ্রহিতাদের সাথে প্রায়ই বাদানুবাদ হতো বলে জানা গেছে। এ কারণেও এই হত্যাকান্ড সংঘটিত হয়ে থাকতে পারে বলে সূত্রটি দাবি করেছে। পুলিশ এ বিষয়টিও খতিয়ে দেখছে বলে জানা গেছে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ১০
ফজর৫:০৮
যোহর১১:৫১
আসর৩:৩৭
মাগরিব৫:১৬
এশা৬:৩৩
সূর্যোদয় - ৬:২৯সূর্যাস্ত - ০৫:১১
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৩৪২.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.