নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১২ অক্টোবর ২০১৭, ২৭ আশ্বিন ১৪২৪, ২১ মহররম ১৪৩৯
দিনাজপুরের ১৩টি উপজেলায় বিক্রি হচ্ছে ভেজাল ওষুধ
দিনাজপুর প্রতিনিধি
দিনাজপুরের ১৩টি উপজেলার বিভিন্ন ফার্মেসিতে প্রকাশ্যে বিক্রয় হচ্ছে ভেজাল ও নিম্নমানের ওষুধ। ফলে সাধারণ মানুষ নিম্নমানের ওষুধ সেবন করে নানারোগে আক্রান্ত ও প্রতারিত হচ্ছে। এছাড়া দিনাজপুরের ১৩টি উপজেলার সরকারি হাসপাতালের সরকারি ওষুধ উপজেলার বিভিন্ন গ্রামগঞ্জের হাটবাজারের ফার্মেসিগুলোতে দেদারছে বিক্রি হচ্ছে। প্রতিবেশী দেশ ভারত থেকে চোরাইপথে নিম্নমানের ওষুধ একশ্রেণীর অসাধু অর্থলোভী কমিশন বাণিজ্যের কারণে এখন জমজমাটভাবে বিক্রি হচ্ছে। নামসর্বস্ব কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধিদের সাথে হাসপাতালের চিকিৎসকদের গোপন সমঝোতার কারণে নিম্নমানের ওষুধ সেবন করতে হচ্ছে অসহায় রোগীদের। আর এর খেসারত টানতে হচ্ছে এলাকার অসহায় সাধারণ মানুষদের।

অনুসন্ধানে জানা যায় দিনাজপুরের ১৩টি উপজেলার জনবহুল এলাকা হওয়ায় ব্যাঙের ছাতার মতো গজিয়ে উঠছে ফার্মেসি ও প্রাইভেট ক্লিনিকসহ হাতুড়ে ডাক্তারদের হাতে জিম্মি হয়ে পড়েছে উক্ত উপজেলাগুলোর প্রায় লাখ লাখ মানুষ। প্রতিকার বা দেখার কেউ নেই। তবে হাসপাতালগুলোতে ডাক্তার ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নাকে তেল দিয়ে তাদের কার্যক্রম চালাচ্ছেন। রোগীরা এসব ডাক্তার ও কর্মকর্তাদের কাছ থেকে কোনো রকম সঠিক চিকিৎসা পাচ্ছেন না। নার্সরেরা রোগীদের ঠিকমতো সেবা দিচ্ছেন না। অনেক নার্স বছরের পর বছর একই হাসপাতালে চাকরি করে যাচ্ছেন। ফলে তাদের দাপটে রোগীরা পর্যন্ত জিম্মি হয়ে পড়েছে। যেমন ফুলবাড়ী হাসপাতাল সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নার্সরা রোগীদের ঠিকমতো সেবা দিচ্ছে না। ইচ্ছামতো তার কাজকর্ম করছে। অনেকে এখানে বাসা-বাড়ি বানিয়ে যুগ যুগ ধরে অবস্থান করছেন। রোগীরা অভিযোগ করে বলেন, আমরা ডাকলেও তাদের কাছে পাই না। আবাসিক মেডিকেল অফিসার দিনে দুইবার পরিদর্শন করেন। সকালে এবং রাতে। তাও আবার ঠিকমতো আসেন না বলে রোগীরা জানান। অপরদিকে প্রসূতি মায়েদের জরুরি বিভাগ না থাকায় দিনাজপুরের ১৩টি উপজেলার মানুষ সরকারি সেবা পাচ্ছে না। সরকার স্বাস্থ্যসেবার মান উন্নয়নের কথা বলেও বাস্তবে দিনাজপুরের ১৩টি উপজেলার হাসপাতালগুলিার বেহাল অবস্থা।

জেলা সিভিল সার্জন উপজেলা পর্যায়ে হাসপাতালগুলো পরির্দশন করলেও পরর্বতীতে ঐ একই অবস্থা দেখা যায়। এ ব্যাপারে দিনাজপুরের বিভিন্ন পেশাজীবীর মানুষ স্বাস্থ্যসেবার প্রতি সুদৃষ্টি দিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর আসু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীঅক্টোবর - ২৪
ফজর৪:৪৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৪৮
মাগরিব৫:২৯
এশা৬:৪২
সূর্যোদয় - ৫:৫৯সূর্যাস্ত - ০৫:২৪
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৮৫৯.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.