নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১২ অক্টোবর ২০১৭, ২৭ আশ্বিন ১৪২৪, ২১ মহররম ১৪৩৯
মায়ানমারে গণহত্যা তদন্তে নাগরিক কমিশন গঠন
স্টাফ রিপোর্টার
মায়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর যে গণহত্যা ও নির্যাতন চলছে তা তদন্তে বাংলাদেশে একটি নাগরিক কমিশন গঠন করা হয়েছে। এই কমিশনের চেয়ারম্যান করা হয়েছে অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি শামছুল হুদাকে। আর সদস্য সচিব করা হয়েছে অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি শামসুদ্দীন চৌধুরী মানিককে। গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই কমিশন গঠনের কথা জানানো হয়। একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির এই কমিশন ঘোষণা করেন। কমিশন ঘোষণাকালে দেশের বিশিষ্ট নাগরিকরা উপস্থিত ছিলেন। এই কমিশনে ৩৩ বিশিষ্ট নাগরিককে সদস্য করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছেন বুদ্ধিজীবী, সুশীল সমাজের সদস্য, বিচারপতি, আইনজীবী, শিক্ষক, সাংবাদিক, লেখক ও কয়েকজন আলেম।

কমিশনের উল্লেখযোগ্য সদস্যরা হলেন বিচারপতি মোহাম্মদ গোলাম রব্বানী, বিচারপতি কাজী এবাদুল হক, বিচারপতি মমতাজ উদ্দিন, ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ, সঙ্ঘনায়ক শুদ্ধানন্দ মহাথেরো, বিচারপতি সৈয়দ আমিরুল ইসলাম, অধ্যাপক অজয় রায়, অধ্যাপক আনিসুজ্জামান, অধ্যাপক বোরহান উদ্দিন খান জাহাঙ্গীর, বিচারপতি মো. নিজামুল হক, অধ্যাপক অনুপম সেন, সাংবাদিক কামাল লোহানী, কথাশিল্পী হাসান আজিজুল হক, শিল্পী হাশেম খান, অধ্যাপক মুনতাসির মামুন, নিরপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল (অব.) আবদুর রশিদ, নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল (অব.) এ কে মোহাম্মদ আলী শিকদার, সাংবাদিক শাহরিয়ার কবির প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এই কমিশন সম্পূর্ণ স্বাধীনভাবে কাজ করবে, নির্মূল কমিটি তাদের প্রয়োজনীয় সহযোগিতা দেবে। কঙ্বাজারে একটি গণশুনানির আয়োজন করবে। তিনটি বিষয় নিয়ে কাজ করবে কমিশন। গণহত্যা কিংবা জাতিগত হত্যাকা- কি-না, সেখানে কোনো সন্ত্রাসী সংগঠন কতটা সক্রিয় এবং পরিশেষে তৃতীয় কোনো দেশ থেকে আন্তর্জাতিক আদালতে এ হত্যাকা-ের বিচার চাওয়া হবে। সংবাদ সম্মেলনে বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক বলেন, 'বার্মায় রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর চলমান গণহত্যা বিশ্ববিবেককে প্রকম্পিত করলেও এখন পর্যন্ত জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ কাঙ্ক্ষিত সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি। রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর নির্যাতনের কারণে তাদের ভেতরে বিচ্ছিন্নতাবাদ, বিদ্রোহ ও জঙ্গি-মৌলবাদ মাথাচাড়া দিচ্ছে। এটা শুধু বাংলাদেশ বা দক্ষিণ এশিয়ায় নয় পুরো বিশ্বের নিরাপত্তার জন্য একটি হুমকি হয়ে উঠতে পারে।

বিচারপতি শামছুল হুদার সভাপতি্বতে আরও বক্তব্য দেন অধ্যাপক অজয় রায়, অধ্যাপক মুনতাসির মামুন, নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল (অব.) আবদুর রশিদ, মেজর জেনারেল (অব.) মোহাম্মদ আলী শিকদার, সাবেক আইজিপি মোহাম্মদ নূরুল আনোয়ার প্রমুখ।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীঅক্টোবর - ২৪
ফজর৪:৪৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৪৮
মাগরিব৫:২৯
এশা৬:৪২
সূর্যোদয় - ৫:৫৯সূর্যাস্ত - ০৫:২৪
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৮৮০.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.