নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, রোববার ১৮ অক্টোবর ২০২০, ২ কার্তিক ১৪২৭, ৩০ সফর ১৪৪২
ময়মনসিংহে জামিনে বেরিয়ে বাদীকে হত্যার হুমকি
ময়মনসিংহ প্রতিনিধি
ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে সংঘবদ্ধভাবে দেশীয় অস্ত্রসস্ত্রসহ এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করে বাড়ি-ঘরে হামলা, মালামাল লুটের ঘটনায় ১ আসামি জেল হাজতে থাকলেও বাকী আসামিরা জামিনে বেরিয়ে এসে বাদীকে হত্যার হুমকিসহ নানাভাবে হয়রানি করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা যায়, উপজেলার বাসুরী গ্রামের মৃত আবুল কাশেমের পুত্র জামাল মিয়া এলাকার কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারী

হিসেবে পরিচিত। কিছুদিন পূর্বে র‌্যাবের অভিযানে তার বাড়ি থেকে গাঁজা গাছ উদ্ধার হয়। র‌্যাবের লোকজন একই গ্রামের মকবুল হোসেনকে গাঁজা উদ্ধার হওয়া বাড়ির মালিকের নাম জানতে চায় তখন মকবুল হোসেন জামালের বাড়ি বলে জানায়। এরই সূত্রতার জের ধরে মাদক ব্যবসায়ী জামাল নিরীহ মকবুল হোসেনকে সন্দেহ করে সে র‌্যাবকে খবর দিয়ে এনেছে বলে মনে করে। তারপর থেকেই জামাল ও তার পরিবারের লোকজন প্রতিনিয়ত বিভিন্নভাবে মকবুল ও তার পরিবারের লোকজনদের অকথ্য ভাষায় গালাগালসহ বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিয়ে আসছিল। গত ৩০ সেপ্টেম্বর বেলা ২ টায় আবুল কাশেমের নেতৃত্বে জামালসহ ৭/৮ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল দেশীয় অস্ত্রসহ মকবুলের বাড়িতে অনধিকার প্রবেশ করে ভাঙচুর, মালামাল লুট করে। এ সময় বাধা দিতে গেলে মকবুলের স্ত্রী ফাহিমা আক্তারের উপর হামলা করে তার গলা থেকে স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নেন। এ সময় হামলাকারীরা লোহার রড দিয়ে ফাহিমার মাথায় আঘাত করে এবং ডান হাতের বাহুতে আঘাত করে হাড় ভেঙে দেয়।

পরবর্তীতে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা চলে যায়। স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে মুক্তাগাছা হাসপাতালে ভর্তি করলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তার অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেন। এ ব্যাপারে মুক্তাগাছা থানায় ৫ জনকে আসামি মামলা হয়। মামলা নং- ১৪ তারিখ- ৯/১০/২০ ইং। এদিকে মামলার আসামিরা আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে বিজ্ঞ আদালত জামাল মিয়াকে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দিয়ে বাকি আসামিদের জামিন মঞ্জুর করেন। এদিকে আসামিরা জামিনে বেরিয়ে এসে বাদী ফাহিমা আক্তার ও তার স্বামী মকবুল হোসেনকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে। তারা প্রকাশ্য বলে বেড়াচ্ছে যে, জামাল মিয়া বেরিয়ে আসলেই তাদেরকে মেরে লাশ টুকরো টুকরো করে ফেলা হবে। বাদী ও তার পরিবারের লোকজন আসামিদের ভয়ে চলাচল করতে পারছে না। যে কোন সময় তাদের উপর হামলাসহ বড় ধরনের ক্ষতি করতে পারে। এ ব্যাপারে শুক্রবার বাদী ফাহিমা আক্তার মুক্তাগাছা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। এ ব্যাপারে পুলিশ প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হচ্ছে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীঅক্টোবর - ৩১
ফজর৪:৪৭
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৪৪
মাগরিব৫:২৪
এশা৬:৩৮
সূর্যোদয় - ৬:০৪সূর্যাস্ত - ০৫:১৯
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৭৫৩০.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.