নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, রোববার ১৮ অক্টোবর ২০২০, ২ কার্তিক ১৪২৭, ৩০ সফর ১৪৪২
তালতলীতে যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা করে বিপাকে এক নারী
আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি
বরগুনার তালতলী উপজেলার নলবুনিয়া গ্রামের রোজিনা আক্তার নামে এক নারী উপজেলা যুবলীগ যুগ্ম আহবায়ক মোঃ হাবিবুর রহমান কামাল মোল্লার বিরুদ্ধে মামলা করে বিপাকে পড়েছেন। মামলা তুলে নিতে জীবন নাশের হুমকি দিচ্ছেন যুবলীগ নেতা। সাক্ষিরা তার ভয়ে সাক্ষ্য দিচ্ছেন না। তদন্তকারী কর্মকর্তা তালতলী থানার এসআই গোলাম সরোয়ার মামলার আসামি যুবলীগ নেতাকে সাথে নিয়ে মামলা তদন্ত করছেন। এতে স্বাক্ষীরা যুবলীগ নেতার ভয়ে

মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না। দ্রুত তদন্ত কর্মকর্তা পরিবর্তন করে সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগী রোজিনা আক্তার। গতকাল শনিবার আমতলী সাংবাদিক ইউনিয়নে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে এমন অভিযোগ করেন তিনি।

লিখিত অভিযোগে রোজিনা আক্তার বলেন, উপজেলার নলবুনিয়া গ্রামের রোজিনা আক্তার পারিবারিক কাজে গত ৮ সেপ্টেম্বর তালতলী উপজেলা শহরের বাঁধঘাট চৌরাস্তায় মনিকা সাতক্ষীরা দধি ঘরে বসে তার পরিচিত জলিল নামের একজনের সাথে কথা বলছিলেন। ওই সময় তালতলী উপজেলা যুবলীগ যুগ্ম আহ্বায়ক হাবিবুর রহমান কামাল মোল্লার সহযো্গী শ্রী সাগর ও সাগর মিয়া নামের দুই বখাটে এসে মোবাইলে তাদের ছবি ধারণ করে। ওই সময়ে রোজিনা তাদের ছবি তুলতে নিষেধ করলে ক্ষেপে যান সাগর ও তার আরেক সহযোগী সাগর মিয়া। এক পর্যায় তারা ওই নারীকে মারধর শুরু করে। এর কিছুক্ষণ পরই যুবলীগ নেতা কামাল মোল্লা এসে ওই নারীকে টেনে হেঁচড়ে রাস্তায় ফেলে প্রকাশ্যে বেধড়ক মারধর করে। নারীর ডাক চিৎকারে শত শত লোক এসে জমা হয় কিন্তু মূর্তিমান আতঙ্ক যুবলীগ নেতার ভয়ে কেউ ওই নারীকে রক্ষায় এগিয়ে আসতে সাহস পায়নি। ওই নারীকে মারধর শেষে রাস্তায় ফেলে চলে যান যুবলীগ নেতা। পরে স্থানীয়রা ওই নারীকে উদ্ধার করে তালতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙ্ েনিয়ে আসে। মামলার বাদী রোজিনা আক্তার শনিবার আমতলী সাংবাদিক ইউনিয়নে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন।

তিনি আরো বলেন, স্থানীয় একজনের সহযোগীতায় থানায় যান। পুলিশ তাকে সহযোগীতা না করে উল্টো কামাল মোল্লার পক্ষাবলম্বন করে। পুলিশ তাকে সারা রাত থানার আসামি সেলে আটকে রাখে এবং তাদের ইচ্ছামাফিক অভিযোগপত্র লিখে তার স্বাক্ষর নিয়ে মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় পুলিশ তাদের ইচ্ছা মাফিক সাক্ষী রেখেছেন। এ ঘটনার একমাস পেরিয়ে গেলেও পুলিশ প্রধান আসামি সাগর ও যুবলীগ নেতা কামাল মোল্লাকে গ্রেফতার করছে না। আসামিরা প্রকাশ্যে পুলিশের সাথে ঘুরে বেড়াচ্ছে এবং মামলা তুলে নিতে বাদী রোজিনা আক্তারকে জীবন নাশের হুমকি দিচ্ছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মো. গোলাম সরোয়ার মোটা অংকের টাকা নিয়ে মামলা তদন্তে আসামি যুবলীগ নেতা হাবিবুর রহমান কামাল মোল্লাকে সাথে নিয়ে ঘটনাস্থলে তদন্ত করছেন। এতে কামলা মোল্লার ভয়ে সাক্ষীরা সাক্ষ্য দিতে সাহস পাচ্ছে না। তদন্তকারী কর্মকর্তা আসামি কামাল মোল্লাকে মামলা থেকে অব্যাহতি ও মামলা ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য এমন তদন্ত করছেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা তদন্তের নামে তাকে বিভিন্ন ভাবে হয়রানী করছেন।

তিনি আরো বলেন, তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই গোলাম সরোয়ার তদন্ত করলে আমি সুবিচার পাব না বলে প্রতীয়মান হয়। দ্রুত তদন্তকারী কর্মকর্তা পরিবর্তনের দাবি জানাই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন বলেন, উপজেলা যুবলীগ যুগ্ম আহ্বায়ক কালাম মোল্লাকে নিয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই গোলাম সরোয়ার ঘটনাস্থলে এসে প্রকাশ্যে দেখা স্বাক্ষীদের সাক্ষ্য নিচ্ছেন। কামাল মোল্লা সাথে থাকায় কেউ তার বিরুদ্ধে সাক্ষী দিতে সাহস পায়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই মামলার এজাহার নামীয় এক সাক্ষী বলেন, কামাল মোল্লার বিরুদ্ধে স্বাক্ষ্য দিতে আমাকে এক নেতা বারন করেছেন।

তালতলী উপজেলা যুবলীগ যুগ্ম আহ্বায়ক হাবিবুর রহমান কামাল মোল্লা মামলা তুলে নিতে বাদীকে জীবন নাশের হুমকির বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, আমি এটা আইনগতভাবে মোকাবিলা করবো। আমি বর্তমানে উচ্চ আদালত থেকে আগাম জামিনে আছি।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই গোলাম সরোয়ার বলেন, বাদীর আনিত সকল অভিযোগ মিথ্যা। আমি যদি চার্জশিট থেকে কামাল মোল্লাকে অব্যাহতি দিতাম তাহলে এমন অভিযোগ দিতে পারতেন। তিনি আরো বলেন, বাদী রোজিনাকে আসামির সেলে রাখা হয়নি তাকে ডিউটি অফিসারের কক্ষে তার মায়ের সাথে রাখা হয়।

তালতলী থানার ওসি মো. কামরুজ্জামান বলেন, দ্রুত মামলার চার্জশিট দেয়া হবে। তবে বাদীর অভিযোগ ভিত্তিহীন।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ১
ফজর৪:৪৮
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৪৩
মাগরিব৫:২৩
এশা৬:৩৭
সূর্যোদয় - ৬:০৫সূর্যাস্ত - ০৫:১৮
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৭৫৭২.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.