নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, শুক্রবার ৮ নভেম্বর ২০১৯, ২৩ কার্তিক ১৪২৬, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১
ক্লাসিক্যাল ড্যান্সের সাথে সুরের মূর্ছনায় পর্দা উঠলো ঢাকা লিট ফেস্টের
সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী বললেন-বাংলাকে নিয়ে যাবে বিশ্বের কাছে
স্টাফ রিপোর্টার
নবমবারের মতো ঢাকায় শুরু হলো আন্তর্জাতিক সাহিত্য উৎসব 'ঢাকা লিট ফেস্ট।' গতকাল বৃহস্পতিবার ক্লাসিক্যাল ড্যান্সের সাথে সুরের মূর্ছনায় শুরু হয় এই আয়োজন। লিট ফেস্টের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বাবু ও ম্যানবুকার পুরস্কারের চূড়ান্ত তালিকায় স্থান পাওয়া সাহিত্যিক মনিকা আলী। আরও ছিলেন ঢাকা লিট ফেস্টের পরিচালক সাদাফ সায্, কাজী আনিস আহমেদ এবং আহসান আকবর, টাইটেল স্পন্সর বাংলা ট্রিবিউনের সম্পাদক জুলফিকার রাসেল ও ঢাকা ট্রিবিউনের সম্পাদক জাফর সোবহান। সাধনা নৃত্য গোষ্ঠীর পরিবেশনের মাধ্যমে শুরু হয় উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি'র বক্তব্যে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেন, '২০১১ সালে যার যাত্রা শুরু হয়েছিল, আজকে তার নবম আসর। বাংলা সাহিত্যকে সারাবিশ্বে ছড়িয়ে দিতে ঢাকা লিট ফেস্টের আয়োজন। আমাদের আশা, একদিন লিট ফেস্ট বাংলাকে নিয়ে যাবে বিশ্বের কাছে। এর আগে হে ফেস্টিভ্যাল ছিল বহির্বিশ্বের সাহিত্যকে বাংলাদেশে পরিচিত করার জন্য। যারা আয়োজক তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই এরকম একটা শুভ উদ্যোগ গ্রহণ করার জন্য। ঢাকা লিট ফেস্টের উত্তরোত্তর সমৃদ্ধির জন্য সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় সহযোগিতা করছে। আগামী বছর এই আয়োজনের শ্রী এবং মান আরও বৃদ্ধি করা হবে বলে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি।' তিনি আরও বলেন, 'আমাদের সাহিত্যের ওপর প্রতিবেশীর যে আগ্রাসন, মিয়ানমারের রোহিঙ্গাদের যে অপসংস্কৃতির অনুপ্রবেশ, সেটির বিষয়ে আয়োজকদের কাছ থেকে কিছু কিছু উত্থাপন করার জন্য অনুরোধ থাকলো। এই ১১ লাখ লোকের লালন-পালন আমাদের সাহিত্যের ওপর প্রভাব বিস্তার করছে, তা থেকে আমরা পরিত্রাণ চাই। তাদের সরকার যেন আমাদের সহায়তা করে। যেসব অতিথি বিদেশ থেকে এসেছেন, তারা তাদের দেশের সরকারের কাছে যেন বিষয়টি লেখালেখির মাধ্যমে তুলে ধরেন।'

ঢাকা লিট ফেস্টের পরিচালক, সাহিত্যিক, ঢাকা ট্রিবিউন ও বাংলা ট্রিবিউনের প্রকাশক কাজী আনিস আহমেদ বলেন, 'আমরা ঢাকা লিট ফেস্ট আয়োজন করি একটি চিন্তার উৎসব হিসেবে। দর্শনার্থীদের উপস্থিতি এই উৎসবকে সরব ও সবল করে তোলে। তাই আজকে আমরা আমাদের এই অনুষ্ঠান শুরু করছি তাদেরকে ধন্যবাদ জানিয়ে। আমাদের গভীর আশা, এই বিশাল বাংলা এবং তার গোটা জনবল একদিন মুক্তচিন্তার বিশাল, সুদৃঢ় পাটাতনে পরিণত হবে।'

কবি ও ঢাকা লিট ফেস্টের পরিচালক আহসান আকবর বলেন, তিন দিনের এই উৎসবে দেশি ও বিদেশি সাহিত্যকে তুলে ধরা হবে। ঢাকা লিট ফেস্ট ফিকশনের সঙ্গে বিজ্ঞান, বিজ্ঞানের সঙ্গে কবিতা, কবিতার সঙ্গে কলার মেলবন্ধন ঘটায়। বাক স্বাধীনতা, বহুত্ববাদ এবং রাজনীতির বিভিন্ন প্রেক্ষাপট ও মুক্তচিন্তার গুরুত্ব নিয়ে আমাদের আয়োজন সাজানো হয়।

ঢাকা লিট ফেস্টের পরিচালক ও কবি সাদাফ সায্? বলেন, বই এবং কবিতা একজন মানুষের আমূল পরিবর্তন ঘটাতে পারে। আমরা তিন পরিচালক শব্দ ও আইডিয়ার শক্তিতে বিশ্বাস করি। এটি আমাদের অনুপ্রেরণা জোগায় প্রতি বছর ঢাকা লিট ফেস্ট আয়োজন করতে। যেকোনও মূল্যে একটি সাহিত্য উৎসবের আয়োজন আজকের দিনে খুব গুরুত্বপূর্ণ।

বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক ও কবি হাবিবুল্লাহ সিরাজী বলেন, ঢাকা লিট ফেস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শতবর্ষ উপলক্ষে উৎসর্গ করেছে। তাই আমি গৌরবের সঙ্গে উচ্চারণ করতে চাই, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবরের নাম। তিনি না থাকলে এই মঞ্চে বাংলা সাহিত্য নিয়ে, ৫৬ হাজার বর্গমাইলের এই বাংলাদেশকে নিয়ে, বাংলাদেশের সাহিত্য নিয়ে বিশ্বের সঙ্গে যুক্ত হওয়ার এই অভিজ্ঞতা আমার হতো না।

ঢাকা লিট ফেস্টে আসতে পারে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন ম্যানবুকারের জন্য সংক্ষিপ্ত তালিকায় মনোনীত সাহিত্যিক মনিকা আলী। এসময় তিনি আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান।

সাহিত্যিক মনিকা আলী ছাড়াও উপমহাদেশের অন্যতম সাহিত্য ব্যক্তিত্ব শংকর, পুলিৎজার প্রাইজ বিজয়ী লেখক জেফরি গেটলম্যান, ডিএসসি পুরস্কারজয়ী সাহিত্যিক এইচএম নাকভি, ইতিহাসভিত্তিক লেখক উইলিয়াম ডালরিম্পল, ভারতীয় রাজনীতিবিদ ও লেখক শশী থারুর, কবি তিশানি দোশি, সাহিত্যিক স্বপ্নময় চক্রবর্তী, কবি ও সাংবাদিক মৃদুল দাশগুপ্ত, কথাসাহিত্যিক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, ইমদাদুল হক মিলন, শাহীন আখতারসহ অনেকে অংশ নিচ্ছেন সাহিত্যের এই উৎসবে। প্রথমদিন এই উৎসবে দেয়া হয় বাংলাদেশের জনপ্রিয় সাহিত্য সম্মাননা জেমকন সাহিত্য পুরস্কার।
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ১৯
ফজর৪:৫৬
যোহর১১:৪৪
আসর৩:৩৭
মাগরিব৫:১৫
এশা৬:৩১
সূর্যোদয় - ৬:১৫সূর্যাস্ত - ০৫:১০
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৮২৬.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.