নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, শুক্রবার ৯ নভেম্বর ২০১৮, ২৫ কার্তিক ১৪২৫, ২৯ সফর ১৪৪০
ঝালকাঠিতে বিচারাধীন সম্পত্তির ঘরে পানি উন্নয়ন বিভাগের তালা
ঝালকাঠি থেকে বিশেষ প্রতিনিধি
ঝালকাঠির বিনয়কাঠি ইউনিয়নের মানপাশা মৌজায় ডিক্রিমূলে মালিকানা কিছু সম্পত্তি পানি উন্নয়ন বোর্ডের দাবি করিয়ে এলাকার একটি স্বার্থান্বেষী মহল স্বার্থ হাসিলের পাঁয়তারা চালাচ্ছে। উক্ত জমিতে নির্মিত একটি ঘরে গত ৬ নভেম্বর বিকেলে জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আতাউর রহমান জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হককে নিয়ে তালা লাগিয়ে সিলগালা করে। এসময় ঝালকাঠি সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আতাহার মিয়া উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে ডিক্রিমূলে মালিক মনোয়ারা বেগমের স্বামী তোফাজ্জেল আলী খন্দকার (৮০) জানান, তাঁর শ্বশুর মৃত আ. গফুর তালুকদার ডিক্রিমূলে বিরোধীয় ১.৯৮ শতাংশ জমির মালিক প্রাপ্ত হন। পরবর্তীতে গফুরের কন্যা মনোয়ারাকে দানপত্রের মাধ্যমে মালিকানা হস্তান্তর করেন। সেই থেকে উক্ত সম্পত্তি আমাদের দখলে আছে। উক্ত সম্পত্তির কিছু অংশ বিএস জরিপে পার্শ্ববর্তী

শেরেবাংলা স্কুলের নামে রেকর্ড হয়। তখন কিছু জমি পানিউন্নয়ন বোর্ডের নামেও রেকর্ড হয়েছে। যা সংশোধনের জন্য ঝালকাঠি ল্যান্ডসার্ভে ট্রাইব্যুনাল আদালতে মামলা (নং ২৬/২০১৭) প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। উক্ত মামলায় বিবাদীরা হলো-ঝালকাঠি নির্বাহী প্রকৌশলী পানি উন্নয়ন বোর্ড, জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রাজস্ব, সহকারী কমিশনার ভূমি। এ ছাড়াও ঐ জমির উপর ঝালকাঠি যুগ্ম জেলা জজ ১ম আদালতে দেং ৩৩/২০১৭ এবং অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আদালতে রিভিশন ১৩/২০১৮ নং মোকদ্দমা বিচারাধীন। এ অবস্থায় জেলা প্রশাসককে নিয়ে পানি উন্নয়ন বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী কিভাবে এ পদক্ষেপ নিলেন তা আমার বোধগম্য নয়। তারা এ কাজ করার আগে আমাদের কথা শুনে কাগজপত্র দেখে সত্যতা যাচাই করে নিতে পারত। তোফাজ্জেল আলী খন্দকার আরও জানান, আমার স্ত্রী মনোয়ারা বেগমকে তার মরহুম পিতা গফুর তালুকদার এই সম্পত্তি দান করল ঝালকাঠি যুগ্ম জেলা জজ ১ম আদালতের দেওয়ানী ৩/২০০৪ নং মামলার মাধ্যমে ডিক্রি প্রাপ্ত হন। এ জমির এসএ খতিয়ানগুলো হচ্ছে ৩৮৭, ২২০, ১২৩, এবং এসএ দাগ নং হলো ৮৫৪, ৮৫৫, ৮৫৬, ৮৫৭, ৮৫৮ ও ৮৫৯। এ জমিতে কোন কালেই ডাকবাংলা বা পানি উন্নয়ন বিভাগের কোন স্থাপনা ছিল না। ঐ দালানের ভিতরে আমাদের পারিবারিক গ্রুপ ছবি, আসবাবপত্র ও মালামাল রয়েছে। মামলা বিচারাধীন থাকা অবস্থায় আমাদের তালাবদ্ধ ঘরের তালা ভেঙে তারা তাদের তালা লাগিয়েছে। এ ব্যাপারের ঝালকাঠি পানি উন্নয়ন বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী এসএম আতাউর রহমান জানান, আমাদের জমিতে গাছ লাগানো নিয়ে স্থানীয় দু' পক্ষের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য আমাদের জমি আমরাই জেলা প্রশাসককে নিয়ে দখল বুঝে নিয়ে তালা লাগিয়ে সিলগালা করেছি।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ১৬
ফজর৪:৫৬
যোহর১১:৪৪
আসর৩:৩৭
মাগরিব৫:১৬
এশা৬:৩১
সূর্যোদয় - ৬:১৪সূর্যাস্ত - ০৫:১১
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৭৫৯.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.