নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বুধবার ১৫ নভেম্বর ২০১৭, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২৫ সফর ১৪৩৯
নওগাঁ-রাণীনগর-নাটোর আঞ্চলিক সড়ক নির্মাণ কাজ শিগগিরই শুরু
রাণীনগর (নওগাঁ) থেকে এ বাশার (চঞ্চল)
নওগাঁ-রাণীনগর-নাটোর সরাসরি যোগাযোগ স্থাপন এবং বগুড়ার সাথে যোগাযোগের বিকল্প সড়ক হিসেবে চলাচলের জন্য ২০০৫ সালে সান্তাহার রেলওয়ে স্টেশন থেকে নাটোর স্টেশন পর্যন্ত রেল লাইনের পশ্চিম পাশ দিয়ে শুরু হয় নওগাঁ-রাণীনগর-নাটোর আঞ্চলিক মহাসড়কের নির্মাণ কাজ। সাড়ে ৪৮ কিলোমিটার সড়কের মধ্যে সাড়ে ২৩ কিলোমিটার সড়ক পাকাকরণ হওয়ার পর ২০০৭ সালে রাজনৈতিক পট পরিবর্তনের সাথে সাথে এই সড়কের নির্মাণ কাজ রহস্যজনক কারণে বন্ধ হয়ে যায়। প্রায় এক যুগ পার হলেও বাকি অংশের নির্মাণ কাজ অদ্যাবধি শুরু না হওয়ায় নওগাঁ-রাণীনগর-নাটোরের সাথে সরাসরি যোগাযোগে দুর্ভোগ যেন পিছু ছাড়ছে না। তবে মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) সভায় এই সড়কের নির্মাণ কাজের জন্য প্রায় ২০১ কোটি টাকা অনুমোদন করা হয়েছে। এক যুগ পর হলেও লাল ফিতার গিট খুলতে শুরু করায় খুব শীঘ্রই এই সড়কের নির্মাণ কাজের দরপত্র আহ্বান করা হবে বলে জানিয়েছেন নওগাঁর সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী। নওগাঁর সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, নওগাঁ-নাটোর আঞ্চলিক মহাসড়কের জন্য ২০০৫ সালে যোগাযোগ মন্ত্রণালয় ৯৮ কোটি টাকার প্রকল্প উন্নয়ন প্রস্তাব (ডিপিপি) অনুমোদন দেয়। কিন্তু পরে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) সীমিত আকারে ৫০ কোটি টাকার অনুমোদন দিলে ঐ বছরের ২৮ ডিসেম্বর তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া নাটোরের নলডাঙ্গায় এই সড়কের নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করেন।

২০০৭ সালের জুন মাস পর্যন্ত নওগাঁ-সান্তাহারের ঢাকা রোড মোড় থেকে রাণীনগর-আত্রাই হয়ে নাটোর জেলার নলডাঙ্গা উপজেলা পর্যন্ত প্রায় ৪৮ কিলোমিটার সড়কের মাটি ভরাটের কাজ শেষ হয়। আঞ্চলিক সড়কের নওগাঁ জেলা অংশের ২৫ কিলোমিটারের মধ্যে প্রায় ৭ কিলোমিটার সড়ক পাকাকরণ করা হয়। আর নাটোর জেলা অংশের প্রায় ২২ কিলোমিটার সড়কের মধ্যে ১৬ কিলোমিটার সড়ক পাকাকরণের কাজ সম্পূর্ণ হয়। নতুন করে অর্থ বরাদ্দ না হওয়ায় মোট ২৩ কিলোমিটার সড়ক পাকা হওয়ার পর হাইড্রোলজি সমীক্ষার নামে নানান রশি টানাটানির এক পর্যায়ে সড়কটির নির্মাণ কাজ বন্ধ হয়ে যায়। ফলে সড়কটির বাকি প্রায় ২৫ কিলোমিটার সড়ক এখন এলাকাবাসীর চলাচলের উপযোগী না হওয়ায় সড়কটি গো-চারণ ভূমিতে পরিণত হয়েছে। এমনকি সড়কের উপরে কলার বাগান, সবজি চাষসহ পাশ্ববর্তী বসবাসরত লোকজনরা ছোট ছোট গৃহনির্মাণ করে বসবাস করছে। এরমধ্যে শুধুমাত্র সান্তাহারের ঢাকা রোড থেকে রাণীনগর রেল স্টেশন পর্যন্ত পাকাকরণের কাজ সমাপ্ত হলেও ভাঙাচুরা আর খানাখন্দের কারণে ঝুঁকি নিয়েই বিভিন্ন যানবাহনে চলাচল করতে হয় জনসাধারণের। রাণীনগর-নলডাঙ্গা পর্যন্ত রাস্তার মাটি ভরাটসহ অন্য কাজ সমাপ্ত না হওয়ায় নাটোর-নওগাঁ-সান্তাহার হয়ে বগুড়া যাওয়ার জন্যে সড়কটি ব্যবহার করা যাচ্ছে না।

রাণীনগর সিএনজি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. সাইফুল ইসলাম লাল জানান, এই সড়কটির নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ করা হলে আমাদের গাড়ি চলাচলের জন্য নতুন একটি সড়ক পাবো। যা এই জনপদে বসবাসরত মানুষদের রাণীনগর থেকে সরাসরি নাটোর হয়ে রাজশাহী যাওয়ার জন্য শুধুমাত্র রেল গাড়ি নির্ভরশীলতা কমে যাবে এবং আমাদের শ্রমিকদের নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে। তাই এই আঞ্চলিক সড়কটি জনস্বার্থে নিমার্ণ কাজ শেষ করার দাবি জানাচ্ছি। রাণীনগর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ছনিয়া ইসলাম জানান, রাণীনগরবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি এই সড়কটি নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ করার। চলাচলের জন্য সড়কটি চালু হলে ব্যবসা-বাণিজ্যসহ জীবনযাত্রার মান পাল্টে যাবে।

তাই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আমার দাবি এই সড়কের নির্মাণ কাজ দ্রুত সম্পূর্ণ করা হোক। নওগাঁ সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী আবুল মনছুর আহম্মেদ জানান, এই পর্যন্ত সড়কটি নিয়ে বহু সময় নষ্ট হয়েছে। স্থানীয় সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলমের সহযোগিতায় নওগাঁ-রাণীনগর-নাটোর আঞ্চলিক মহাসড়কটির প্রায় ২৫ কিলোমিটার সড়কের পাকাকরণের কাজের জন্য ২০১ কোটি টাকার মতো একনেকে অনুমোদন হয়েছে। গেজেট জারি হওয়ার পর ফান্ড পাওয়া মাত্রই এই সড়কের অসমাপ্ত কাজের সমাপ্তকরণের দরপত্র আহ্বান করা হবে।

নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আসনের সংসদ সদস্য মো. ইসরাফিল আলম জানান, এই আঞ্চলিক সড়কটির নির্মাণ কাজ শেষ করার জন্য মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) সভায় এই সড়কের নির্মাণ কাজের অনুমোদন করা হয়েছে। গত সাত বছরে এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে জাতীয় সংসদে এগারোবার দাবি উত্থাপন করেছি। এর ধারাবাহিকতায় প্রকল্পটি অনুমোদন দেয়া হয়েছে। খুব শীঘ্রই এই সড়কের অসমাপ্ত কাজের সমাপ্তকরণের কাজ শুরু হবে। এলাকাবাসী দীর্ঘদিনের দুর্ভোগ থেকে রক্ষা পাবে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ২৫
ফজর৫:০১
যোহর১১:৪৬
আসর৩:৩৫
মাগরিব৫:১৪
এশা৬:৩০
সূর্যোদয় - ৬:২০সূর্যাস্ত - ০৫:০৯
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৬৯৮.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.