নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বুধবার ১৫ নভেম্বর ২০১৭, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২৫ সফর ১৪৩৯
নরসিংদীতে অন্ধ ভিক্ষুক স্ত্রী ও শিশু কন্যাকে গলাটিপে হত্যা করেছে পাষণ্ড স্বামী
নরসিংদী প্রতিনিধি
ভিক্ষার টাকা নিয়ে কলহের জেরে কবির হোসেন নামে এক নেশাখোর স্বামী তার অন্ধ স্ত্রী হাফেজা বেগম (৩৫) ও কন্যা সাদিয়া বেগমকে (৫) নির্মমভাবে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করেছে। গত সোমবার রাতে নরসিংদী শহর এলাকার ঘোড়াদিয়া গ্রামের বণিকপাড়ায় এই হত্যাকা-টি সংঘটিত হয়েছে। এ খবর প্রচারিত হবার পর এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। শত শত মানুষ এই ঘটনা জানা ও দেখার জন্য অন্ধ ভিক্ষুকের বাড়িতে ভিড় জমাচ্ছে। পাশাপাশি মা ও মেয়ের লাশ দেখে অনেকের চোখ থেকে অশ্রু গড়াতে দেখা গেছে। অনেক মানুষ ক্ষোভ প্রকাশ করে পাষাণ স্বামী কবির হোসেনকে অতিশীঘ্র গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবী জানিয়েছে। এলাকাবাসী জানিয়েছে, রায়পুরা উপজেলার চরমধুয়া ইউনিয়নের গাজীপুরা গ্রামের রিকশাচালক কবির হোসেন ও তার অন্ধ স্ত্রী হাফেজা বেগম তাদের সন্তান সন্তুতি নিয়ে ঘোড়াদিয়া গ্রামের জনৈক দেলোয়ার হোসেন সওদাগরের বাড়ীতে ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করতো। পাশাপাশি ঘরে বসবাস করতো রাজিয়া ও মিনারা নামে আরো দুই জন ভাড়াটিয়া। প্রতিদিন সকালে রিঙ্াচালক কবির হোসেন তার অন্ধ স্ত্রী হাফেজা ও তার ছোট কন্যা সাদিয়াকে রিঙ্ায় করে নরসিংদী কলেজ ক্যাম্পাসের রাস্তা ও শহরের বিভিন্ন জনবহুল এলাকায় নিয়ে ভিক্ষা করার জন্য রেখে যেতো। আবার রাতে তাদেরকে নিয়ে যেতো। কবির হোসেন রিকশা চালিয়ে যে টাকা উপার্জন করতো তা সে, নেশা করেই উড়িয়ে দিতো। সংসার চলতো তার স্ত্রী হাফেজা বেগমের ভিক্ষাবৃত্তির টাকায়। প্রতিদিন রাতে হাফেজাকে বাড়ীতে নিয়েই নেশাখোর রিকশাচালক হাফেজার নিকট থেকে ভিক্ষাবৃত্থির সমস্ত টাকা কেড়ে নিয়ে যেতো। অন্ধ হাফেজা এর প্রতিবাদ করলেই তাকে নির্মমভাবে মারধর করতো স্বামী কবির হোসেন। এমইভাবে প্রায়ই কবির হোসেনের সাথে অন্ধ হাফেজার ভিক্ষার টাকা নিয়ে কলহ লেগে থাকতো। আশেপাশের মানুষ হাফেজার কান্নাকাটি শুনে দৌড়ে গিয়ে তাকে স্বামীর অত্যাচারের হাত থেকে রক্ষা করতো। পার্শ্ববতী ঘরের ভাড়াটিয়া রাশিদা ও মিনারা জানায়, গতকাল মঙ্গলবার সকালে ঘুম থেকে উঠে তারা গেইটের চাবির জন্য অন্ধ হাফেজাকে ডাকাডাকি করতে থাকে। কিন্তু হাফেজার পক্ষ থেকে কোন সারা না পেয়ে তারা দরজা ধাক্কা দিলে দরজা খুলে যায়। ভিতরে ঢুকে গিয়ে দেখে অন্ধ হাফেজার মৃত দেহ মাটিতে পড়ে রয়েছে। আর ছোট কন্যা সাদিয়ার মৃতদেহ পড়ে রয়েছে চৌকির উপর। রিকশাচালক কবির হোসেন ঘরে নেই। এই অবস্থায় তারা ঘটনাটি তাৎক্ষণিকভাবে বাড়ির মালিক দেলোয়ার হোসেন সওদাগরকে জানালে তিনি ঘটনাটি নরসিংদী থানা পুলিশকে অবহিত করেন। থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে মা হাফেজা ও তার কন্যা সাদিয়ার লাশ উদ্ধার করে। নরসিংদী থানা পুলিশের এসআই তাপস কান্তি রায় জানিয়েছেন, যে মা ও মেয়েকে সোমবার গভীর রাতে যে কোন সময় গলাটিপে হত্যা করা হয়েছে। হত্যাকান্ডের পর রিকশাচালক কবির হোসেন রাতেই ঘরের দরজা চাপিয়ে পালিয়ে গেছে। তবে পুলিশ জানিয়েছে পলাতক স্বামী কবির হোসেনকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। তাকে যেকোন সময় গ্রেফতার করা হবে। নিহত হাফেজা ও তার কন্যা সাদিয়ার লাশ ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত লাশ দুটি হাসপাতাল মর্গেই পড়ে রয়েছে। কোন আত্মীয়-স্বজন লাশ নিতে আসেনি।
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ২৫
ফজর৫:০১
যোহর১১:৪৬
আসর৩:৩৫
মাগরিব৫:১৪
এশা৬:৩০
সূর্যোদয় - ৬:২০সূর্যাস্ত - ০৫:০৯
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৭০৩.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.