নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বুধবার ১৫ নভেম্বর ২০১৭, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২৫ সফর ১৪৩৯
রাণীনগরে নকল সরবরাহ করায় এক শিক্ষক সাময়িক বরখাস্ত
রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি
নওগাঁর রাণীনগরে চলতি জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষায় মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নকল সরবরাহ করায় মো. আবু বক্কর সিদ্দিক নামের এক ধর্ম শিক্ষককে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য সকলপ্রকার কাগজপত্র সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বরাবর প্রেরণ করা হয়েছে। এই ঘটনার পরও পরীক্ষা কেন্দ্রে বন্ধ হয়নি নকলের দৌরাত্ম্য। পাশের হার বৃদ্ধি করার জন্য শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের কাছে নকল সরবরাহ করছেন বলে একাধিক গোপন সূত্রে জানা গেছে। উপজেলা নির্বাহী অফিস সূত্রে জানা গেছে, গত সোমবার চলতি জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষার কক্ষ পরিদর্শক হিসাবে উপজেলার রাণীনগর মহিলা অনার্স কলেজে দায়িত্ব পালন করেন পার্শ্ববর্তী আদমদীঘি উপজেলার কয়াকঞ্চি উচ্চ বিদ্যালয়ের ধর্ম বিষয়ের সহকারী শিক্ষক মো. আবু বক্কর সিদ্দিক। পরীক্ষা কক্ষে দায়িত্ব পালন করার সময় তিনি গোপনে তার মোবাইল ফোনে প্রশ্নপত্রের ছবি তুলে বাইরে প্রেরণ করেন। বাইর থেকে সেই প্রশ্ন সমাধান করে উত্তরপত্র শিক্ষক আবু বক্কর সিদ্দিকের ফোনে পাঠানো হয়। সেই উত্তর শিক্ষক আবু বক্কর সিদ্দিক ঐ কক্ষ এবং তার আশপাশের কক্ষে বিতরণ করেন। এসময় উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার বিষয়টি বুঝতে পেরে অন্যান্য শিক্ষকের সহায়তায় শিক্ষক আবু বক্কর সিদ্দিককে মোবাইল ফোনসহ হাতে-নাতে আটক করে। আটককৃত শিক্ষককে তখন সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করা হয়। বরখাস্তকৃত শিক্ষককে গত মঙ্গলবার বিকালে উপজেলা পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দপ্তরে হাজির করানো হয়। এসময় নির্বাহী কর্মকর্তা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নিয়ে এক বিশেষ সভার আয়োজন করেন। সভায় শিক্ষকের স্বীকারোক্তিসহ সকল প্রকার প্রমাণ বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য উপ-পরিচালক বরাবর পাঠানোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

কয়াকঞ্চি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. রওশন আলী বলেন, আমি বিষয়টি লোকমুখে শুনেছি। আমি এই নাক্কার জনক কাজের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। আশা রাখি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ঐ শিক্ষকের বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার মো. কামরুল হাসান সবুজ জানান, অভিযুক্ত শিক্ষককে সকল প্রমাণসহ উপজেলা পরীক্ষা নিয়ন্ত্রন কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে সোপর্দ করা হয়েছে। তিনি অপরাধ অনুযায়ী শিক্ষকের বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। উপজেলা পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোনিয়া বিনতে তাবিব জানান, গত মঙ্গলবার বিকালে শিক্ষকের স্বীকারোক্তি গ্রহণ করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য শিক্ষকের স্বীকারোক্তিসহ সকল প্রকার প্রমাণাদি সংশ্লিষ্ট বিভাগের উপ-পরিচালক বরাবর প্রেরণ করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। উল্লেখ্য, উপজেলার ভেটুরিয়া গ্রামের মৃত-মজিবর রহমানের ছেলে মো. আবু বক্কর সিদ্দিক ১৯৮৯ সালে পার্শ্ববর্তী আদমদীঘি উপজেলার কয়াকঞ্চি উচ্চ বিদ্যালয়ে সহকারি ধর্ম শিক্ষক হিসাবে যোগদান করেন।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ২৫
ফজর৫:০১
যোহর১১:৪৬
আসর৩:৩৫
মাগরিব৫:১৪
এশা৬:৩০
সূর্যোদয় - ৬:২০সূর্যাস্ত - ০৫:০৯
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৬৪০.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.