নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, সোমবার ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২
কেনাবেচায় ব্যস্ত সময় পার করছেন দোকানি ও ক্রেতারা
নীলফামারীতে ফুটপাতের দোকানগুলোতে ভিড় বেড়েছে ক্রেতাদের
নীলফামারী প্রতিনিধি
হিমালয়ের কাছাকাছি উত্তরের জেলা নীলফামারীর অবস্থান। তাই ধীরে ধীরে নিচে নামছে তাপমাত্রা। ঠান্ডা ঠান্ডাভাব জানান দিচ্ছে শীত চলে এসেছে। রাত বাড়ার পর থেকেই শীত অনুভূত হলেও ভোরের দিকে শীত বেশি অনুভূত হচ্ছে। কুয়াশায় মোড়ানো রাত, শিশির ভেজা সকাল ও হালকা ঠান্ডার কারণে স্থানীয় গরম কাপড়ের দোকানে ভিড় বেড়েছে।

সরেজমিনে জেলার বিভিন্ন বাজারের দেখা যায়, জমে উঠেছে ফুটপাতের ভ্রাম্যমাণ শীত বস্ত্রের দোকানগুলো।

প্রতিদিন সকাল থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত ওই সব কাপড়ের দোকানে গরম কাপড় কিনতে ভিড় করছেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। জেলা শহরের প্রাণকেন্দ্র পৌর মার্কেট, মাধার মোড়, উকিলের মোড়, কালিতলা বাস স্ট্যান্ড ও ডালপট্টি মহল্লায় ও ফুটপাতে ভ্যানগাড়িতে করে বাহারি রঙের এসব শীত বস্ত্র বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা। বড় বাজারের ফেরিওয়ালা আব্দুল হাকিম জানান, কয়েকদিন ধরেই প্রায় সব দোকানে কম-বেশি শীতের কাপড় কেনাকাটা শুরু হয়েছে। ক্রেতাদের চাহিদার কথা ভেবে ছোট-বড়দের জ্যাকেট, মাফলার, সোয়েটার, হাত মোজা, কোট, টুপি ও মাংকি টুপিসহ সব ধরনের শীত বস্ত্র মিলছে এসব দোকানে।

নীলফামারী হাইস্কুলের বড় মাঠে, রাস্তার দু'ধারে বসা দোকানগুলোতে গরম কাপড় কেনাবেচায় ব্যস্ত সময় পার করছেন দোকানি ও ক্রেতারা। প্রতি বছর শীত মৌসুম এলেই তাদের বিক্রি বেড়ে যায়। কয়েকদিন ধরে শীতের তীব্রতা বেড়ে যাওয়ায় সাধ্যের মধ্যে পছন্দের পোশাক কিনতে ফুটপাতের দোকানগুলোতে ভিড় জমাচ্ছেন ক্রেতারা।

এক প্রশ্নের জবাবে ওই বাজারের ফেরিওয়ালা মোফাচ্ছের আলী জানান, উলের সোয়েটারের দাম পড়ছে ১৫০ থেকে ২৫০ টাকা। জ্যাকেট ২শ থেকে সাড়ে ৩শ টাকা, ফুলহাতা গেঞ্জি ও বাচ্চাদের জামা সেট ৬০-১৩০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে।

শীতের পোশাক কিনতে আসা পৌর শহরের নিউবাবু পাড়া মহল্লার আলেয়া বেগম বলেন, অনেক খোঁজ করে ছেলে-মেয়ে ও পরিবারের সবার জন্য সোয়েটারসহ কয়েকটি শীতের কাপড় কিনেছি। নিজের জন্য একটি উলের সোয়েটার কিনেছি। শীত বেশি পড়ায় দোকানিরা দামও বেশি চাচ্ছে। অনেক দর দামের পর তিনটি ট্রাউজার কিনেছি সাড়ে ৩শ টাকায়। শাশুড়ির জন্য একটি সোয়েটার কিনেছি ১২৬ টাকায়। অন্য সময় এগুলো ৬০-৭০ টাকায় পাওয়া যেতো বলে জানান তিনি। তিনি আরও বলেন, কম দামে ভাল কাপড় পাওয়া যায় ফুটপাতে। তাই আমাদের শেষ ভরসা ফুটপাত। এদিকে, ফুটপাতের দোকানি আবুল হোসেন জানান, তিন দিন ধরে বেচাকেনা বেশি হচ্ছে। সবাই ছোট সোনামনিদের জন্য বেশি কাপড় কিনছে। পাশাপাশি উলের সোয়েটার, মাফলার ও গরম কাপড়ের টুপিসহ অন্যান্য কাপড়ও ভালো বেচাকেনা হচ্ছে। জেলা শহরের বড় বাজারের স্মৃতি গার্মেন্টসের মালিক মো. মকবুল হোসেন জানান, গত এক সপ্তাহ থেকে শীতের প্রভাব দেখা দিয়েছে। এখন কাটা কাপড়ে চাহিদা অনেকটা কমে গেছে। মানুষ এখন ফুটপাতের গরম কাপড়ের দোকানে বেশি ভিড় করছেন। উলের সোয়েটার, ট্রাউজার, মাফলার, জ্যাকেটসহ গরম কাপড় কিনতে ক্রেতারা ব্যস্ত বলে জানান তিনি।
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীজানুয়ারী - ২৭
ফজর৫:২২
যোহর১২:১২
আসর৪:০৬
মাগরিব৫:৪৫
এশা৭:০০
সূর্যোদয় - ৬:৪১সূর্যাস্ত - ০৫:৪০
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
১০১১৯.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.