নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, মঙ্গলবার ৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৫ রবিউস সানি ১৪৪১
কুড়িগ্রামে রাস্তা মেরামতে ব্যাপক অনিয়ম দেখার কেউ নেই
কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলার থানাহাট ডিবি হইতে রাজারভিটা নদীর ঘাট পর্যন্ত রাস্তা মেরামতে ও কার্পেটিং এ ব্যাপক দেখা গেছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট এলাকাবাসী মৌখিকভাবে বার বার বলার পরও কোন সুফল পাননি। জানা যায়, চলতি বছরের বন্যায় থানাহাট ডিবি হইতে রাজারভিটা পর্যন্ত ২১'শ মিটার রাস্তার ব্যাপক ক্ষতি হয়। তার আগে টেন্ডার করে কার্যাদেশ দেয়ার পরও সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কাজ করেননি। বন্যার পর গত কয়েক দিন আগে তড়িঘড়ি করে কাজ শুরু করা হয়। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) এর অর্থায়নে ৪৯ লক্ষ ৩৪ হাজার টাকা ব্যয়ে রাস্তার কাজ শুরু হলেও শুরু থেকেই স্থানীয় লোকজন এলজিইডির কাছে মৌখিকভাবে অভিযোগ করেন। অভিযোগ করেন স্থানীয় সাংবাদিকরাও। বিষয়টি উপজেলা উন্নয়ন ও সমন্বয় কমিটির সভায়ও উত্থাপিত হয়। কিন্তু কোন কিছুই তোয়াক্কা করেননি এলজিইডি। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স মাসুদ রানা রাস্তার উপরের মাটি পরিস্কার না করে বিটুমিন ছাড়াই কার্পেটিং করেন। কার্পেটিং এর আগে খোয়ার পরিবর্তে রাবিশ ফেলে রোলিং করা মাত্রই রাবিশগুলো পানির সাথে মিশে যায়। বিষয়টি স্থানীয় এলজিইডিকে অবহিত করা হলেও কোন কাজ হয়নি। কার্পেটিং এর সময় সরেজমিন গিয়ে দেখা যায় রাস্তা পরিস্কার না করে এবং প্রাইম কোট ছাড়াই রাস্তা কার্পেটিং করা হচ্ছে। রাজারভিটা এলাকার আজিজুল হক জানান, আমাদের বিটুমিন ঠিকমত না দিয়ে কোনরকম দায়সারা ছিটিয়ে রাস্তার কার্পেটিং করা হয়। রাস্তাটির বিভিন্ন জায়গায় এখনেই কার্পেটিং উঠে যাচ্ছে, ফলে রাস্তাটির স্থায়ীত্ব নিয়ে জনমনে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। মন্ডলপাড়া'র বাসিন্দা সাইফুল ইসলাম জানান, এই রাস্তা যেভাবে তৈরী করা হয়েছে তাতে ৩ মাসের বেশী লাস্টিং করবে না। থানাহাট বিজয়নগর গ্রামের বিদ্যুৎ মিয়া বলেন, রাস্তার কাজের সময় আমরা একাধিক বার অভিযোগ দিলেও আমাদের কারও কথা শোনেন নি ঠিকাদার। স্থানীয় সাংবাদিক সাপ্তাহিক যুগের খবর পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক এস, এম নুরুল আমিন সরকার বলেন, আমি সরেজমিনে রাস্তাটি পরিদর্শন শেষে, রাস্তাটির মেরামতের তথ্য চাইতে স্থানীয় এলজিইডি প্রকৌশলীর কাছে যাই তিনি তথ্য না দিয়ে তালবাহানা শুরু করেন। এদিকে রাস্তার তথ্য চাইতে গেলে স্থানীয় এলজিইডি প্রকৌশলী আজিজার রহমান, তথ্য না দিয়ে তালবাহানা করতে থাকে। পরে বিষয়টি স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর কুড়িগ্রামের নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুল আজিজকে মুঠো ফোনে জানানো হলে, তিনি বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন বলে জানান।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীসেপ্টেম্বর - ২০
ফজর৪:৩২
যোহর১১:৫৩
আসর৪:১৬
মাগরিব৬:০১
এশা৭:১৩
সূর্যোদয় - ৫:৪৬সূর্যাস্ত - ০৫:৫৬
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
১৯৪৬৮.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.